বাউড়ি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বাউরী বাংলার এক আদিম জনগোষ্ঠি [১][[তফসিলি জাতি ও উপজাতি|তালিকাভুক্ত]। এদের গোত্র বা টটাম গুলো হচ্ছে=১ কাশ্যপ ২ পলাশগাছ ৩ বক ৪ ‌‌‌‌‌শালগাছ ৫ বাঘ ৬ ঈগল ৭ বানমাছ ৮ সাপ। Ref> আদিম বাউড়ি জনগোষ্ঠি এবং তার প্রাচীন বুদ্ধ তন্ত্র ধম্মো page no-১৬ পশ্চিমবঙ্গের রাঢ়অঞ্চল বাঁকুড়া, বীরভূম, পুরুলিয়া ও অন্যান্য জেলায় বাউরীরা প্রচুর সংখ্যায় বাস করেন।

২০০১ সালের জনগণনা অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গে বাউরীদের সংখ্যা ১,০৯১,০২২[২]। বাউরীদের মধ্যে মাত্র ৩৭.৫ শতাংশ সাক্ষর – এর মধ্যে পুরুষ সাক্ষরতার হার ৫১.৮ শতাংশ এবং নারী সাক্ষরতার হার ২২.৭ শতাংশ। মাত্র ৪.৭ শতাংশ বাউড়ি মাধ্যমিক উত্তীর্ণ হয়েছে অথবা বিদ্যালয় শিক্ষা সমাপ্ত করেছে।

উপবর্ণ[সম্পাদনা]

বাউরীরা নিম্নলিখিত উপবর্ণগুলিতে বিভক্ত: মল্লভূমিয়া, শিখরিয়া বা গোবারিয়া, পঞ্চকোটী, মোলা বা মুলো, ঢালিয়া বা ঢুলো, মালুয়া, ঝাটিয়া বা ঝেটিয়া ও পাথুরিয়া। বাউরীদের কয়েকটি উপবর্ণ নির্দিষ্ট অঞ্চলের সীমার মধ্যে বসবাস করতেন। মল্লভূমিয়া, মালুয়া ও সম্ভবত মোলারা মল্লভূমের (প্রাচীন মধ্য ও দক্ষিণ বাঁকুড়া) বাসিন্দা ছিলেন। শিখরিয়ারা সম্ভবত বাস করতেন শিখরভূম অর্থাৎ কাঁসাইবরাকর নদীর মধ্যবর্তী অঞ্চলে। ঢুলিয়ারা বাস করতেন ঢলভূম অর্থাৎ বর্তমান খাতড়া মহকুমা অঞ্চলে। পঞ্চকোটীরা ছিলেন পুরুলিয়া জেলার পঞ্চকোট এস্টেটের বাসিন্দা।

লাল-পৃষ্ঠবিশিষ্ট সারস ও কুকুর আজও বাউরীদের টোটেম। সারস এই জাতির প্রতীক রূপে ব্যবহৃত। বাউরীরা কুকুর পবিত্র মনে করে এবং কোনো অবস্থাতেই কুকুর হত্যা করে না।


  1. বাউরী জনগোষ্ঠীর বিবর্তনের ইতিহাস সুনীলকুমার দাস। কোলকাতা: আম্বেদকর প্রকাশনী। আইএসবিএন 978-81-89466-13-8  অজানা প্যারামিটার |সাল= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)
  2. "Census in West Bengal" (PDF)