বদরুল হায়দার চৌধুরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মাননীয় প্রধান বিচারপতি
বদরুল হায়দার চৌধুরী
বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি
কাজের মেয়াদ
১ ডিসেম্বর ১৯৮৯ – ১ জানুয়ারি ১৯৯০
পূর্বসূরীবিচারপতি এফ. কে. এম. এ মুনিম
উত্তরসূরীবিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১ জানুয়ারি ১৯২৫
নুরসোনাপুর গ্রাম, সুধারাম উপজেলা, নোয়াখালী জেলা, ব্রিটিশ ভারত (বর্তমান: বাংলাদেশ)
মৃত্যু১৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৮
ঢাকা, বাংলাদেশ
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
বাসস্থানঢাকা
প্রাক্তন শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়
লিংকনস্‌-ইন
পেশাআইন
জীবিকাআইনবিদ
ধর্মইসলাম

বদরুল হায়দার চৌধুরী (১ জানুয়ারি ১৯২৫ - ১৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৮) বাংলাদেশের একজন প্রখ্যাত আইনবিদ এবং ৫ম প্রধান বিচারপতি[১][২]

জন্ম ও পারিবারিক পরিচিতি[সম্পাদনা]

বদরুল হায়দার চৌধুরী ১৯২৫ সালের ১ জানুয়ারি তারিখে তত্কালীন ব্রিটিশ ভারতের নোয়াখালী জেলার সুধারাম উপজেলার নুরসোনাপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।[১] তার পিতার নাম খান বাহাদুর মোহাম্মদ গাজী চৌধুরী।[২]

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

বদরুল হায়দার চৌধুরী ১৯৪৮ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে এম.এ. ও ১৯৫১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি ডিগ্রি লাভের পর ১৯৫৫ সালে যুক্তরাজ্যের লিংকনস্‌-ইন থেকে বার আ্যট ল' ডিগ্রি অর্জন করেন।[১]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

ফজলুল করীম ১৯৫৬ সালে ঢাকা হাইকোর্টে আইনজীবি হিসাবে কাজ শুরু করেন এবং ১৯৭১ সালের এপ্রিলে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারক হিসেবে[২] ও পরবর্তীতে ১৯৭৮ সালে আপিল বিভাগে বিচারক হিসাবে নিয়োগ লাভ করেন।[১]

১৯৮৯ সালের ৩০ নভেম্বর তারিখে বিচারপতি এফ. কে. এম. এ মুনিমের অবসর গ্রহণের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের ৫ম প্রধান বিচারপতি হিসাবে বদরুল হায়দার চৌধুরীকে নিয়োগ প্রদান করেন এবং তিনি ১৯৮৯ সালের ১ ডিসেম্বর তারিখে প্রধান বিচারপতি হিসাবে শপথ গ্রহণ করেন ও ১৯৮৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর তারিখে ৬৫ বছর পূর্ণ হওয়ায় অবসর গ্রহণ করেন।[২]

রচনাবলী[সম্পাদনা]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]