ফুলকুঁড়ি ইসলামিক একাডেমী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
ফুলকুঁড়ি ইসলামিক একাডেমী
ঠিকানা
চাঁপাইনবাবগঞ্জ, বাংলাদেশ
চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী
বাংলাদেশ
তথ্য
ধরন অর্ধ-সরকারী
নীতিবাক্য "পড় তোমার প্রভুর নামে, যিনি তোমায় সৃষ্টি করেছেন"
প্রতিষ্ঠাকাল ১৯৮২
শ্রেণী শিশু থেকে ১০ম শ্রেণী পর্যন্ত
ছাত্র সংখ্যা ১২০০

ফুলকুঁড়ি ইসলামিক একাডেমী বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এটি ১৯৮২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

একটি কলেজ, একটি স্কুল, একটি মাদ্রাসা, একটি মসজিদ, একটি হাসপাতাল ও একটি এতিমখানাসহ পূর্ণাঙ্গ একটি কমপ্লেক্স প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ইউনুস মোল্লা এই স্কুলের জমি দান করেছিলেন। বর্তমানে হাসপাতাল বাদে সকল অবকাঠামোই রয়েছে। এটি ইকরা ট্রাস্ট কমপ্লেক্স নামেও পরিচিত। ২০১১ সালে এই স্কুলের বর্তমান ভবনটি তৈরি হয় এবং পূর্বের ভবন থেকে অফিস স্থানান্তরিত হয়। বর্তমানে মোট ৩টি ভবনে(১টি টিনশেড) শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

শিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

এটি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এখানে শিশু শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত প্রায় ১,২০০ জন ছাত্রছাত্রী ৪০ জন শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে লেখাপড়া করে। স্কুলের নিজস্ব কম্পিউটার গবেষণাগার এবং বিজ্ঞান গবেষণাগার রয়েছে। এছাড়াও বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয় কর্তৃক প্রদত্ত মাল্টিমিডিয়া প্রোজেক্টরের সাহায্যে ক্লাস পরিচালনা করা হয়।

খেলাধুলা[সম্পাদনা]

২০০৯ সালে এই বিদ্যালয় হ্যান্ডবলে জাতীয় চ্যাম্পিয়ন হয় এবং ২০১৫ সালে হ্যান্ডবল ও সাঁতারে জেলা চ্যাম্পিয়ন[১] সাফল্য অর্জন করে। ২০১৬ সালে প্রাইম ব্যাংক আয়োজিত জাতীয় স্কুল ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয় স্কুলটি।[২]

সহশিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্কুল ও মাদ্রাসা ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন"। সানশাইন। 
  2. "প্রাইম ব্যাংক জাতীয় স্কুল ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় ফুলকুঁড়ি'র জয়"। Chapai Nawabganj News। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]