পেড্রো দে বেটানকোর্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পেড্রো দে বেটানকোর্ট
Sanhermanopedro.JPG
সান্টো হেরমানো পেড্রোর গুহা (তেনেরিফে)
Missionary
জন্ম২১শে মার্চ, ১৬২৬
ভিলাফ্লোর, তেনেরিফে
মৃত্যু২৫শে এপ্রিল, ১৬৬৭
অ্যান্টিগুয়া গুয়াতেমালা, গুয়াতেমালা
শ্রদ্ধাজ্ঞাপনরোমান ক্যাথলিক চার্চ
স্বর্গসুখ লাভ২২শে জুন, ১৯৮০, সান পিয়েত্রোর বাসিলিকা, ভ্যাটিকান , পোপ জন পল II কর্তৃক
সিদ্ধ ঘোষণা৩০শে জুলাই, ২০০২, গুয়াতেমালা সিটি, গুয়াতেমালা , পোপ জন পল II কর্তৃক
প্রধান স্মৃতিযুক্ত স্থানঅ্যান্টিগুয়া, গুয়াতেমালাতে সান্টো হেরমানো পেড্রোর গুহা এবং সান্টো হেরমানো পেড্রোর আশ্রয়স্থল (তেনেরিফে) এবং সান ফ্রান্সিসকো চার্চ।
উৎসব২৪শে এপ্রিল (কারণ ২৫ তারিখে সেন্ট মার্ক এভাঞ্জালিস্ট উৎসব)।
বৈশিষ্ট্যাবলীHolds a walking stick and bell
এর রক্ষাকর্তাকানারি দ্বীপপুঞ্জ, গুয়াতেমালা, গুয়াতেমালার কাটিকাস্ট, তেনেরিফের দক্ষিণ পৌরসভা অনারারি মেয়র এবং অ্যান্টিগুয়া গুয়াতেমালার অনারারি মেয়র, গৃহহীন যারা​​।
বিতর্কদুটি অলৌকিক সুখীকরণ এবং সিদ্ধাবস্থা জন্য প্রয়োজনীয় কোন বর্ণনা নেই

পেড্রো দে বেটানকোর্ট বা সেন্ট জোসেফ বেটানকুরের পিটার (স্পেনীয়: Pedro de San José Betancur, ইংরেজি: Peter of Saint Joseph Betancur) (জন্ম: ২১শে মার্চ, ১৬২৬ (তেনেরিফে) - মৃত্যু: ২৫শে এপ্রিল, ১৬৬৭ (অ্যান্টিগুয়া গুয়াতেমালা) ছিলেন একজন স্পেনীয় সন্ত এবং ধর্মপ্রচারক ছিল। তিনি "আমেরিকাসের আসসিসির সেন্ট ফ্রান্সিস" হিসাবে পরিচিত। এছাড়াও তাকে হেরমানো পেড্রো দে সান জোস বেটানকোর্ট বা আরও সহজভাবে হেরমানো পেড্রো, সান্টো হেরমানো পেড্রো, বা সান পেড্রো দে ভিলাফ্লোর বলা হত। এটি কানারি দ্বীপপুঞ্জ, গুয়াতেমালামধ্য আমেরিকার প্রথম সেন্ট হয়। তিনি ক্ষতিগ্রত, দুর্বল এবং দরিদ্রের জন্য অনেক কাজ করে গিয়েছেন যা পরবর্তী শতাব্দীতে কলকাতায় মাদার টেরিজা করেছেন।

জীবনী[সম্পাদনা]

পেড্রো তেনেরিফে দ্বীপের ভিলাফ্লোরতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বর্তমান গ্রানাদিল্লা দে আবোনার পৌরসভার এল মেদানো শহরের নিকর্ট শুষ্ক অঞ্চলের একটি ছোট গুহার মধ্যে কিছু সময় কাটিয়েছেন। তিনি সেখানে একজন রাখাল বালক হিসেবে ২৩ বছর বয়স পর্যন্ত কাজ করেন। পরে তিনি গুয়াতেমালায় সরকারি সেবা জড়িত একজন আত্মীয় সাথে দেখা করার উদ্দেশ্যে রওনা হন। কিন্তু মাঝ পথে হাভানা, কিউবাতে আশার পরে তার টাকা শেষ হয়ে যায়। তিনি কিউবাতে কিছু সময় কাজ করার পরে পরবর্তী বছর সেই টাকা দিয়ে গুয়াতেমালা সিটিতে আসেন। তিনি এতো দুঃস্থ অবস্থায় গুয়াতেমালাতে এসে পৌছান যে, তিনি একটি রুটি বিতরনের সারিতে যোগ দেন যা ফ্রান্সিস্কান্স প্রতিষ্ঠিত করেছিল।

তিনি অধিরভাবে একটি পুরোহিত হতে চেয়েছিল এবং শীঘ্রই গুরুগিরি জন্য পড়াশোনা আশা স্থানীয় জেসুইট কলেজ (সান বোরজিয়ার জেসুইট কলেজ) যে নাম নথিভুক্ত করেন। তিনি প্রায় অসুস্থায় পড়ে গিয়েছিলেন কিন্তু পরে তিনি স্বাস্থ্য পুনরুদ্ধার করতে পারেন। তিনি একজন আমেরিকাসে যিশুর জন্মবিষয়ক চিত্রের অকিস্থলের প্রধান প্রচারক।[১]

তিনি অন্যদের সাহায্য করার মত মহৎ কাজ করে গিয়েছেন। তার প্রকৃত এবং স্বার্থক কাজসমূহের মধ্যে অবহেলিতদের যেমন, কুষ্ঠরোগী, বন্দী, ক্রীতদাস এবং ভারতীয়দের জন্য বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত এবং মানবাধিকারের জন্য অগ্রদূত হিসেবে কাজ করে গিয়েছেন।[২]

তিনি ৪১ বছর বয়সে অ্যান্টিগুয়া গুয়াতেমালায় মারা যান।

গ্যালারি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]