পূর্ব সিক্কিম জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পূর্ব সিক্কিম জেলা
पूर्व सिक्किम
জেলা
সিক্কিমের দৈর্ঘ্য-বরাবর প্রবাহিত তিস্তা নদী
সিক্কিমের দৈর্ঘ্য-বরাবর প্রবাহিত তিস্তা নদী
সিক্কিমের মানচিত্রে পূর্ব সিক্কিম জেলার অবস্থান
সিক্কিমের মানচিত্রে পূর্ব সিক্কিম জেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৭°১৯′ উত্তর ৮৮°৩৬′ পূর্ব / ২৭.৩১৭° উত্তর ৮৮.৬০০° পূর্ব / 27.317; 88.600স্থানাঙ্ক: ২৭°১৯′ উত্তর ৮৮°৩৬′ পূর্ব / ২৭.৩১৭° উত্তর ৮৮.৬০০° পূর্ব / 27.317; 88.600
রাজ্য সিক্কিম
দেশ ভারত
আসন গ্যাংটক
আয়তন
 • মোট ৯৬৪ কিমি (৩৭২ বর্গমাইল)
উচ্চতা ৬১০ মিটার (২০০০ ফুট)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট ২,৮১,২৯৩
 • ঘনত্ব ২৯০/কিমি (৭৬০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চল ভারতীয় সময় (ইউটিসি+০৫:৩০)
আইএসও ৩১৬৬ কোড IN-SK-ES
ওয়েবসাইট http://esikkim.gov.in
গ্যাংটক থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘার দৃশ্য
রাতের গ্যাংটক
তরুণ সন্ন্যাসী

জেলার দৃশ্য

পূর্ব সিক্কিম জেলা (নেপালি: पूर्व सिक्किम) ভারতের সিক্কিম রাজ্যের একটি জেলা। এটি রাজ্যের দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অবস্থিত। পূর্ব সিক্কিম জেলার সদর শহর হল রাজ্যের রাজধানী গ্যাংটক

এই জেলার সাধারণ নাগরিকদের বসতি অঞ্চল শাসন করেন কেন্দ্রীয় সরকার নিযুক্ত এক জেলা সমাহর্তা। সামরিক এলাকা শাসন করেন এক মেজর জেনারেল।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

পূর্ব সিক্কিম জেলা অতীতে সিক্কিম দেশীয় রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত ছিল। উনবিংশ শতাব্দীতে ভুটান এই অঞ্চল দখল করে নেয়। ইঙ্গ-ভুটান যুদ্ধের পর এই অঞ্চল ব্রিটিশদের দখলে আসে। ১৯৪৭ সালে ভারত স্বাধীন হওয়ার পর এই অঞ্চল ভারতের আশ্রিত রাজ্য সিক্কিমের অন্তর্ভুক্ত ছিল। ১৯৬২ সালে ভারত-চীন যুদ্ধের সময় নাথুলা পাসে কয়েকটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছিল। ১৯৭৫ সালে সিক্কিম আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতের ২২তম অঙ্গরাজ্যে পরিণত হয়।

ভূগোল[সম্পাদনা]

এই জেলা ভৌগোলিকভাবে খুবই সংবেদনশীল। গণচীনভুটান রাষ্ট্রের সীমান্ত এই জেলা-বরাবর থাকার জন্য গ্যাংটকের পূর্বে এই জেলার বেশিরভাগ এলাকা ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রত্যক্ষ নিয়ন্ত্রণাধীন। কয়েকটি এলাকা ছাড়া গ্যাংটকের পূর্ব দিকে পর্যটকদের যেতে দেওয়া হয় না। এই জেলার ছাঙ্গু লেক, বাবা মন্দির ও নাথু লা গিরিপথ জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র। প্রাচীনকালে ভারত ও লাসার মধ্যে যে রেশম পথ ছিল, তা এই গিরিপথ দিয়ে প্রসারিত ছিল। শুধুমাত্র ভারতীয় নাগরিকদেরই বাবা মন্দির ও গিরিপথের কাছে যেতে দেওয়া হয়। এই অঞ্চলে যেতে পর্যটক কার্যালয় থেকে বিশেষ পারমিট নিতে হয়। গ্যাংটকের বিখ্যাত পর্যটনস্থলগুলি হল ফোডং মঠ ও রুমটেক মঠ

জনপরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে, পূর্ব সিক্কিম জেলার জনসংখ্যা ২৮১,২৯৩।[১] এই জনসংখ্যা বার্বাডোজ রাষ্ট্রের প্রায় সমান।[২] জনসংখ্যার হিসেবে ভারতের ৬৪০টি জেলার মধ্যে এই জেলার স্থান ৫৭৪তম।[১] এই জেলার জনঘনত্ব ২৯৫ জন প্রতি বর্গকিলোমিটার (৭৬০ জন/বর্গমাইল) ।[১] ২০০১-২০১১ দশকে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ১৪.৭৯%।[১] পূর্ব সিক্কিমের লিঙ্গানুপাত প্রতি ১০০০ পুরুষে ৮৭২ জন।[১] এই জেলার সাক্ষরতার হার ৮৪.৬৭%।[১]

পূর্ব সিক্কিম জেলার অধিকাংশ বাসিন্দা নেপালি বংশোদ্ভুত। ছাড়াও ভুটিয়া, লেপচাতিব্বতি জাতির মানুষ দেখা যায়। এই জেলার প্রধান ভাষা হল নেপালি ভাষা

উদ্ভিদ ও প্রাণী[সম্পাদনা]

পূর্ব সিক্কিম জেলায় তিনটি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য আছে: বারসে রডোডেনড্রন, ফামবং হো ও ক্যোংমোসলা আল্পীয়।[৩]

বিভাগ[সম্পাদনা]

পূর্ব সিক্কিম জেলা তিনটি মহকুমায় বিভক্ত:[৪]

নাম সদর গ্রামের সংখ্যা[৫] অবস্থান
গ্যাংটক গ্যাংটক
East Sikkim Subdivisions Gangtok.png
প্যাকিয়ং প্যাকিয়ং
East Sikkim Subdivisions Pakyong.png
রোংলি রোংলি
East Sikkim Subdivisions Rongli.png

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ ১.৩ ১.৪ ১.৫ ১.৬ "District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগৃহীত ২০১১-০৯-৩০ 
  2. US Directorate of Intelligence। "Country Comparison:Population"। সংগৃহীত ২০১১-১০-০১। "Barbados 286,705 July 2011 est." 
  3. Indian Ministry of Forests and Environment। "Protected areas: Sikkim"। সংগৃহীত সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১১ 
  4. The Registrar General & Census Commissioner, India, New Delhi, Ministry of Home Affairs, Government of India (2011) (in English) (PDF). Sikkim Administrative Divisions (মানচিত্র). http://censusindia.gov.in/2011census/maps/administrative_maps/SIKIM.pdf। সংগৃহীত হয়েছে 2011-09-29.
  5. "MDDS e-Governance Code (Sikkim Rural)" (PDF)। Office of the Registrar General & Census Commissioner, India। ২০১১। সংগৃহীত ২০১১-১০-১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]