পালমিরা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
পালমিরা
Tdmr2.png (পালমিরাইন)
تدمر (আরবি)
Ruins of Palmyra
২০১০ সালে পালমিরার ধ্বংসাবশেষ
Palmyra is located in the center of Syria
Palmyra is located in the center of Syria
সিরিয়ায় এর অবস্থান দেখাচ্ছে
বিকল্প নাম Tadmor
অবস্থান তাদমোর জেলা, তাদমোর, হমস প্রদেশ, সিরিয়া
অঞ্চল সিরিয়া মরুভূমি
স্থানাঙ্ক ৩৪°৩৩′০৫″ উত্তর ৩৮°১৬′০৫″ পূর্ব / ৩৪.৫৫১৩৯° উত্তর ৩৮.২৬৮০৬° পূর্ব / 34.55139; 38.26806স্থানাঙ্ক: ৩৪°৩৩′০৫″ উত্তর ৩৮°১৬′০৫″ পূর্ব / ৩৪.৫৫১৩৯° উত্তর ৩৮.২৬৮০৬° পূর্ব / 34.55139; 38.26806
ধরন বসতি
যার অংশ পালমিরা সাম্রাজ্য
এলাকা ৮০ হেক্টর (২০০ একর)
ইতিহাস
প্রতিষ্ঠিত খ্রিষ্টপূর্ব ২য় সহস্রাব্দ
পরিত্যক্ত 1932 (1932)
সময়কাল মধ্য ব্রোঞ্জ যুগ থেকে আধুনিক
সংস্কৃতি আরামিয়, আরবিয়, গ্রীকো রোমান যুগ
স্থান নোটসমূহ
অবস্থা ধ্বংসাবশেষ
মালিকানা Public
ব্যবস্থাপনা সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়, সিরিয়া
জনসাধারণের প্রবেশাধিকার প্রবেশ অযোগ্য (যুদ্ধক্ষেত্র)
প্রাতিষ্ঠানিক নাম সাইট অভ পালমিরা
ধরন সাংস্কৃতিক
মানক i, ii, iv
অন্তর্ভুক্তির তারিখ ১৯৮০ (১৯৮০) (4th Session)
রেফারেন্স নং 23
Region Arab States
Endangered ২০১৩ (২০১৩)–present.[১]

পালমিরা হচ্ছে প্রাচীন সেমিটিক শহর যা বর্তমান দিনে সিরিয়ার হমস প্রদেশে অবস্থিত। প্রত্নতাত্ত্বিক গণ নিয়োলিথিক যুগের সন্ধান পেয়েছেন এখানে এবং নগরটি সম্পর্কে খ্রিষ্টপূর্ব ২য় সহস্রাব্দের প্রথমভাগে নথিতে উল্লেখ করা হয়েছে। ১ম শতাব্দীতে পালমিরা রোমানদের হাতে আসার আগ পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সম্রাটের হাতে এসেছে।

নামকরণ[সম্পাদনা]

দামাস্কাস বন্দরের নিকটবর্তী পালমিরার ধ্বংসাবশেষ

তাদমোর নামটি দ্বিতীয় খ্রিস্টপূর্বাব্দের প্রথম দিক থেকে পরিচিত ছিলো[২]; মারিতে প্রাপ্ত আঠারো খ্রিষ্টপূর্বাব্দের শিলালিপিতে একে উল্লেখ করা হয়েছে তা-আদ-মি-ইর, অন্যদিকে ১১ খ্রিষ্টপূর্বাব্দের আশারিয় লিপিতে লেখা হয়েছে তা-আদ-মার[৩]। আরামিক পালমারিন লিপিতে নামের দুটি ধরণের উল্লেখ আছে[৪][৫]: তাদমার এবং তাদমোর। নামের উৎপত্তি পরিষ্কার নয়। আলবার্ট স্কাল্টেনস সমর্থিত আদর্শ অনুবাদ খেঁজুরের সেমিটিক শব্দ তামারের[৬] সংগে যুক্ত করে যা দ্বারা বোঝা যায় শহরটিকে ঘিরে প্রচুর খেঁজুর গাছ বিদ্যমান ছিলো।[৭]

গ্রীক নাম Παλμύρα (লাতিন রূপ পালমিরা) প্রথম উল্লেখ করেন প্লিনি দ্যা এল্ডার ১ম খ্রিস্টাব্দে[৮]। এটা গ্রীকো-রোমান বিশ্বে ব্যবহৃত হতো[৬]। এটা সাধারণত ভাবা হয়ে থাকে পালমিরা তাদমোর থেকে উদ্ভূত হয়েছে। ভাষাবিদেরা দুটি সম্ভাব্যতার কথা উল্লেখ করেছেন; একটি মতে পালমিরা তাদমোরের পরিবর্তেও ব্যবহৃত হতো[৬]। স্কালটেন্সের মতে তাদমোরে একটি ভগ্নরূপ তালমুরা যা লাতিন শব্দ পালমা'র (খেঁজুর) প্রভাবে পালমুরাতে পরিবর্তিত হয়েছে[২]। খেঁজুর গাছের জন্য শেষপর্যন্ত পালমিরা চূড়ান্ত নাম হিসেবে প্রচলিত হয়।[২][৭] দ্বিতীয় মতটি হচ্ছে, যেমন জ্যঁ স্টারক্কির মতে, তাদমোরকে গ্রীকে অনুবাদ করার সময়ে তাদমোরকে এভাবে অনুবাদ করা হয় কারণ একে খেঁজুর ভাবা হয়।

অবস্থান[সম্পাদনা]

জনগোষ্ঠী, ভাষা, সমাজ[সম্পাদনা]

বিশিষ্ট স্থান[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Baghdadi 2015
  2. O'Connor 1988, পৃ. 238
  3. Limet 1977, পৃ. 104
  4. Bubeník 1989, পৃ. 229
  5. Wolfensohn 2016, পৃ. 118
  6. Charnock 1859, পৃ. 200
  7. O'Connor 1988, পৃ. 235
  8. O'Connor 1988, পৃ. 248