বিষয়বস্তুতে চলুন

নিকি হ্যালি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নিকি হ্যালি
২০২৩ সালে নিকি হ্যালি
২৯তম জাতিসংঘ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত
কাজের মেয়াদ
২৭ জানুয়ারী ২০১৭ – ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮
রাষ্ট্রপতিডোনাল্ড ট্রাম্প
ডেপুটি
পূর্বসূরীসামান্থা পাওয়ার
উত্তরসূরীকেলি ক্রাফট
১১৬ তম দক্ষিণ ক্যারোলিনার গভর্নর
কাজের মেয়াদ
১২ জানুয়ারী ২০১১ – ২৪ জানুয়ারী ২০১৭
লেফটেন্যান্ট
পূর্বসূরীমার্ক সানফোর্ড
উত্তরসূরীহেনরি ম্যাকমাস্টার
-নির্বাচিত সদস্য
৮৭তম জেলা থেকে
কাজের মেয়াদ
১১ জানুয়ারী ২০০৫ – ১১ জানুয়ারী ২০১১
পূর্বসূরীল্যারি কুন
উত্তরসূরীটড অ্যাটওয়াটার
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মনিমারটা নিকি রান্ধাওয়া
(1972-01-20) ২০ জানুয়ারি ১৯৭২ (বয়স ৫২)
বামবার্গ, দক্ষিণ ক্যারোলিনা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
রাজনৈতিক দলরিপাবলিকান পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গীমাইকেল হ্যালি (বি. ১৯৯৬)
সন্তান
শিক্ষাক্লেমসন বিশ্ববিদ্যালয় (বিএস)
স্বাক্ষর
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

নিমারতা নিকি হ্যালি (জন্ম: ২০ জানুয়ারী ১৯৭২[১][২]) হলো একজন মার্কিন রাজনীতিবিদ। যিনি ২০১১ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ ক্যারোলিনার ১১৬ তম গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প দ্বারা জাতিসংঘে ২৯তম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিযুক্ত হন এবং ২০১৭ জানুয়ারি থেকে ২০১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত কাজ করেন।[৩]

হ্যালি দক্ষিণ ক্যারোলিনার বামবার্গে জন্মগ্রহণ করেন এবং ক্লেমসন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অ্যাকাউন্টিং এ ডিগ্রি অর্জন করেন। ন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অফ উইমেন বিজনেস ওনার্স- এর কোষাধ্যক্ষ এবং সভাপতি হিসেবে কাজ করার আগে তিনি তার পরিবারের পোশাক ব্যবসায় যোগ দেন। ২০০৪ সালে দক্ষিণ ক্যারোলিনা হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভসে প্রথম নির্বাচিত হন, তিনি তিনটি মেয়াদে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১০ সালে, তার তৃতীয় মেয়াদে তিনি দক্ষিণ ক্যারোলিনার গভর্নর নির্বাচিত হন এবং ২০১৪ সালে তিনি পুনরায় নির্বাচনে জয়ী হন। হ্যালি ছিলেন দক্ষিণ ক্যারোলিনার প্রথম মহিলা গভর্নর, দেশের সর্বকনিষ্ঠ গভর্নর এবং ভারতীয় বংশোদ্ভূত দ্বিতীয় গভর্নর (সাথী রিপাবলিকান ববি জিন্দালের পরেলুইসিয়ানার)। তিনি ছিলেন এশিয়ান আমেরিকান ঐতিহ্যের প্রথম মহিলা গভর্নর। ২০১৭ সালে হ্যালি রাষ্ট্রপতির মন্ত্রিসভার প্রথম ভারতীয় মার্কিন সদস্য হন।[৪]

হ্যালি ২০১৭ থেকে ২০২৮ সাল পর্যন্ত জাতিসংঘে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি মার্কিন সিনেট দ্বারা ৯৬-৪ ভোটে জয়ী হন এবং ২০১৭ সালের ২৭ জানুয়ারীযে শপথ গ্রহণ করেন। হ্যালি সামরিক শক্তি ব্যবহারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইচ্ছুকতা নিশ্চিত করেছেন ২০১৭-২০১৮ উত্তর কোরিয়া সংকটের পরিপ্রেক্ষিতে উত্তর কোরিয়ার আরও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার প্রতিক্রিয়া। তিনি নিরাপত্তা পরিষদে মার্কিন স্বার্থ রক্ষা করেন, বিশেষ করে ইসরায়েলের প্রতি মার্কিন সমর্থন,[৫] এবং জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহারের প্রচেষ্টার নেতৃত্ব দেন। তিনি ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর স্বেচ্ছায় রাষ্ট্রদূতের পদ থেকে সরে দাঁড়ান।[৬]

২০২৪ সালে হ্যালি মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের জন্য ২০২৪ সালের রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রাইমারিতে একজন প্রার্থী। তিনি ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে তার প্রচারণার ঘোষণা দেন।[৭]

তথ্যসূত্র

[সম্পাদনা]
  1. Haley, Nikki. @AmbNikkiHaley, Twitter, (20 May 2018): “Nikki is my name on my birth certificate. I married a Haley. I was born Nimarata Nikki Randhawa and married Michael Haley.”
  2. Cobb, Jelani। "The Complicated History of Nikki Haley"The New Yorker (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-০৩ 
  3. "Read Nikki Haley's resignation letter to Trump | CNN Politics"CNN। অক্টোবর ৯, ২০১৮। 
  4. "Nikki Haley - great advocate of India-US relationship: Indian-Americans"The Economic Times। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-০৩ 
  5. Hennigan, Adrian (সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮)। "13 Times Nikki Haley Stood Up for Israel at the UN (And AIPAC)"Haaretz 
  6. Borger, Julian (২০১৮-১০-১০)। "Nikki Haley resigns as US ambassador to UN, shocking fellow diplomats"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0261-3077। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০২-১৪ 
  7. "Nikki Haley launches presidential campaign, challenging Trump for GOP nomination"ABC News (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০২-১৪ 

বহিঃসংযোগ

[সম্পাদনা]
South Carolina House of Representatives
পূর্বসূরী
Larry Koon
Member of the South Carolina House of Representatives
from the 87th district

2005–2011
উত্তরসূরী
Todd Atwater
পার্টির রাজনৈতিক কার্যালয়
পূর্বসূরী
Mark Sanford
Republican nominee for Governor of South Carolina
2010, 2014
উত্তরসূরী
Henry McMaster
পূর্বসূরী
Joni Ernst
Response to the State of the Union address
2016
উত্তরসূরী
Steve Beshear
রাজনৈতিক দপ্তর
পূর্বসূরী
Mark Sanford
Governor of South Carolina
2011–2017
উত্তরসূরী
Henry McMaster
কূটনৈতিক পদবী
পূর্বসূরী
Samantha Power
United States Ambassador to the United Nations
2017–2018
উত্তরসূরী
Kelly Craft
United States order of precedence
পূর্বসূরী
Mark Sanford
Former Governor হিসেবে
Order of precedence of the United States
Within South Carolina
উত্তরসূরী
Mike Castle
Former Governor হিসেবে
Order of precedence of the United States
Outside South Carolina
উত্তরসূরী
John H. Sununu
Former Governor হিসেবে