তুগলক তামার খান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

তুগলক তামার খান সুলতান আলউদ্দিন মাসুদ শাহের রাজত্বকালে উধবাংলার গভর্নর ছিলেন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

তুগরল তুগান খানের অধীনে বাংলা প্রদেশ ১২৪১ সালে ওড়িয়া সৈন্যবাহিনী দ্বারা আক্রান্ত হয়। প্রদেশ টি দখল করার পর, ওধের সুলতানী গভর্নর তুগলক তামর খান, তুগান খানকে সাহায্য করার জন্য বাংলায় একটি ত্রাণ বাহিনী নিযুক্ত করা হয় কিন্তু বাংলা ও বিহার সীমান্তে দারভাঙ্গায় তামর খান নিজে তুগান খানকে ক্ষমতাচ্যুত করার চেষ্টা করেন।[১]

তার প্রতিদ্বন্দ্বীকে হত্যা করতে অক্ষম হলেও তামর খান তাকে প্রদেশ থেকে তাড়িয়ে দিতে সক্ষম হন এবং অবশিষ্ট জেনারেলদের ঘুষ দিয়ে বাংলা ও উধ উভয় সুলতানি বাহিনীর নিয়ন্ত্রণ লাভ করতে সক্ষম হন। ১২৪৬ সালে তামর খান অবশেষে বাংলায় প্রবেশ করেন যেখানে স্থানীয় জমিদারদের বিদ্রোহের সহায়তায় তিনি দেবকোটের পুরাতন রাজধানী দখল করতে সক্ষম হন। যাইহোক তার নৌবাহিনী পুনর্নির্মাণ প্রচেষ্টা পরাজিত হয়।[২]

১২৪২ সালে ওডিয়া সেনাবাহিনী কর্তৃক বরখাস্ত হওয়া লাখনাউতী অবরোধে তামর খানের বাহিনীকে প্রতিহত করা হয়। ১২৪৭ সালে তামার খান জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মারা যান, যার উপর উত্তর বঙ্গ পুনরায় জয়লাভ করেন, পরমারদি দেব, তামর খানের মৃত্যু রহস্য-উদ-দীন যুজবাককে বাংলার গভর্নর হিসেবে নিয়োগের দিকে নিয়ে যায়, যা ১২৭২ সালে তুঘান খানের বিদ্রোহের নেতৃত্ব দেয়।

পূর্বসূরী
তুগরল তুগান খান
মামলুক সালতানাত (দিল্লির) বাংলার গভর্নর
১২৪৬-১২৪৭
উত্তরসূরী
জালালুদ্দিন মাসুদ জানি

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]