টিথারিং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
একটি ফোনকে ল্যাপটপের সাথে টিথার করা হচ্ছে

টিথারিং (ইংরেজি: Tethering) অথবা ফোন কে মডেম হিসেবে ব্যাবহার করা হলো একটি উপায় যার মাধ্যমে মোবাইল ডিভাইস সমূহের ইন্টারনেট, সংযুক্ত অন্য কম্পিউটার অথাবা স্মার্টফোনের সাথে বিনিময় করা যায়। বিনিময়টি হতে পারে ওয়্যারলেস ল্যান (ওয়াই-ফাই), ব্লুটুথ, অথবা ক্যাবল সংযোগ যেমন; ইউএসবি এর মাধ্যমে। যদি ওয়ারলেস ল্যানের মাধ্যমে টিথার করা হয় তাহলে প্রক্রিয়াটিকে বলা হবে ব্যাক্তিগত বা মোবাইল হটস্পট। এই প্রক্রিয়ায় মোবাইল ডিভাইসটি একটি রাউটার হিসেবে কাজ করে। মোবাইল হটস্পট পিন অথবা পাসওয়ার্ডের মাধ্যমে সুরক্ষিত রাখা যায়।

প্রক্রিয়া[সম্পাদনা]

  • ওয়াই-ফাইয়ের মাধ্যমে টিথার করতে চাইলে ওয়াই-ফাই হটস্পট ইংরেজি "Wi-Fi hotspot" অপশনে গিয়ে তা চালু করতে হবে। নিরাপত্তার জন্য সিকিউরিটি পাসওয়ার্ড (আট সংখ্যার কম নয়) দেয়া ভালো।
  • ব্লুটুথের মাধ্যমে টিথার করতে চাইলে ব্লুটুথ টিথারিং ইংরেজি "Bluetooth tethering" অপশন চালু করতে হবে।
  • ইউএসবি ক্যাবলের সাহায্যে টিথার করতে চাইলে ফোনে ও পিসিতে (ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ) ইউএসবি সংযোগ দিতে হবে। এরপর ইউএসবি টিথারিং ইংরেজি "USB tethering" অপশন চালু করতে হবে। স্বয়ংক্রিয়ভাবেই ড্রাইভার সফটওয়্যার ইন্সটল হবে এবং টিথারিং চালু হবে।

যে সকল মোবাইল ওএস সমর্থন করে[সম্পাদনা]

বর্তমানের অধিকাংশ ফোন ব্লুটুথ টিথারিং এবং ইউএসবি টিথারিং সমর্থন করে। যেমনঃ উইন্ডোজ মোবাইল ৬.৫, উইন্ডোজ ফোন ৭, অ্যান্ড্রয়েড (২.২ হতে পরবর্তী) এবং আইওএস ৩.০ (অথবা পরবর্তী)। এছাড়াও ওয়াই-ফাই টিথারিং (ওয়াই-ফাই হটস্পট) সহ সকল টিথারিংই সমর্থন করে এরকম ওএস গুলো হলঃ আইওএস ৪.২.৫ হতে শুরু করে পরের গুলো, আইফোন ৪, ৪এস (২০১০), ৫, আইপ্যাড (৩য় প্রজন্ম), কতিপয় উইন্ডোজ মোবাইল ৬.৫ যেমন এইচটিসি এইচডি২, উইন্ডোজ ফোন ৭, ৮ এবং ৮.১ (প্রস্তুতকারক ও মডেল ভেদে পার্থক্য হয়) এবং কতিপয় অ্যান্ড্রয়েড ফোন (প্রস্তুতকারক ও সফটওয়্যার ভেদে ব্যাপক পার্থক্য বিদ্যমান)।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]