বিষয়বস্তুতে চলুন

টড হেইঞ্জ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
টড হেইঞ্জ
ইংরেজি: Todd Haynes
২০২৩ সালে হেইঞ্জ
জন্ম (1961-01-02) ২ জানুয়ারি ১৯৬১ (বয়স ৬৩)
মাতৃশিক্ষায়তনব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয় (বিএ)
বার্ড কলেজ (এমএফএ)
পেশাচলচ্চিত্র নির্মাতা
কর্মজীবন১৯৮৫-বর্তমান

টড হেইঞ্জ (ইংরেজি: Todd Haynes; /hnz/; জন্ম: ২ জানুয়ারি ১৯৬১) একজন মার্কিন চলচ্চিত্র পরিচালক, চিত্রনাট্যকার ও প্রযোজক। চার বছরের কর্মজীবনে তিনি বিখ্যাত সঙ্গীতজ্ঞ ব্যক্তিত্ব, অকার্যকর ও ভঙ্গুর সমাজ এবং অস্পষ্ট লৈঙ্গিক ভূমিকা নিয়ে নিরীক্ষণ করেছেন।

হেইঞ্জ সঙ্গীতশিল্পী ক্যারেন কার্পেন্টারের জীবন ও মৃত্যু নিয়ে নির্মিত বিতর্কিত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র সুপারস্টার: দ্য ক্যারেন কার্পেন্টার স্টোরি (১৯৮৭) দিয়ে প্রথম দর্শকের নজর কাড়েন, এতে তিনি অভিনয়শিল্পী হিসেবে বার্বি ডলের ব্যবহার করেন।[ক] সময়ের পরিক্রমায় সুপারস্টার কাল্ট ক্লাসিক তকমা লাভ করে।[১] এইডস যুগের উৎকট উপলব্ধি ও পরাভব নিয়ে নিরীক্ষণমূলক পয়জন (১৯৯১) দিয়ে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে তার অভিষেক ঘটে, যা তাকে নব সীমালঙ্ঘনকারী চলচ্চিত্রের উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে। পয়জন সানড্যান্স চলচ্চিত্র উৎসবের গ্র্যান্ড জুরি পুরস্কার অর্জন করে এবং নব্য উৎকট চলচ্চিত্রের প্রারম্ভিক কর্ম হিসেবে গণ্য করা হয়।

হেইঞ্জ মাল্টিপল কেমিক্যাল সেন্সিটিভিতে আক্রান্ত নারী কেন্দ্র করে নির্মিত তার দ্বিতীয় পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র সেফ (১৯৯৫) দিয়ে আরও সমাদৃত হন। পরবর্তী সময়ে দ্য ভিলেজ ভয়েস চলচ্চিত্র জরিপে সেফ ১৯৯০-এর দশকের শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র হিসেবে নির্বাচিত হয়। তার পরবর্তী চলচ্চিত্র ভেলভেট গোল্ডমাইন (১৯৯৮) ১৯৭০-এর দশকের গ্ল্যাম রক যুগের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি। এটি ১৯৯৮ কান চলচ্চিত্র উৎসবে শ্রেষ্ঠ শৈল্পিক অবদানের জন্য বিশেষ জুরি পুরস্কার অর্জন করে।

হেইঞ্জ ফার ফ্রম হেভেন (২০০২) দিয়ে সমাদৃত ও মূলধারার সফলতা অর্জন করেন এবং শ্রেষ্ঠ মৌলিক চিত্রনাট্য বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তিনি এরপর আ'ম নট দেয়ার (২০০৭), ক্যারল (২০১৫), ওয়ান্ডারস্ট্রাক (২০১৭), ডার্ক ওয়াটার্স (২০১৯) ও মে ডিসেম্বর (২০২৩) চলচ্চিত্র এবং দ্য ভেলভেট আন্ডারগ্রাউন্ড (২০২১) প্রামাণ্যচিত্র পরিচালনা করে সমালোচকদের নিকট থেকে প্রশংসা অর্জন করেন। হেইঞ্জ এইচবিওর মিনি ধারাবাহিক মিলড্রেড পিয়ার্স (২০১১) পরিচালনা ও যৌথভাবে রচনা করেন, যার জন্য তিনি তিনটি প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

বছর চলচ্চিত্রের শিরোনাম পরিচালক লেখক প্রযোজক অভিনেতা ভূমিকা
১৯৭৮ দ্য সুইসাইড হ্যাঁ হ্যাঁ না না
১৯৮৫ অ্যাসাসিন্স: আ ফিল্ম কনসার্নিং র‍্যাঁবো হ্যাঁ হ্যাঁ না হ্যাঁ স্বয়ং
১৯৮৭ সুপারস্টার: দ্য ক্যারেন কার্পেন্টার স্টোরি হ্যাঁ হ্যাঁ হ্যাঁ হ্যাঁ টড ডনোভান, ডিস্ক জকি
১৯৮৯ লা ডিভাইনা না না হ্যাঁ না
হি ওয়াজ ওয়ান্স না না হ্যাঁ হ্যাঁ র‍্যান্ডি

পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

বছর চলচ্চিত্রের শিরোনাম পরিচালক লেখক প্রযোজক
১৯৯১ পয়জন হ্যাঁ হ্যাঁ না
১৯৯৫ সেফ হ্যাঁ হ্যাঁ না
১৯৯৮ ভেলভেট গোল্ডমাইন হ্যাঁ হ্যাঁ না
২০০২ ফার ফ্রম হেভেন হ্যাঁ হ্যাঁ না
২০০৭ আ'ম নট দেয়ার হ্যাঁ হ্যাঁ না
২০১৫ ক্যারল হ্যাঁ না না
২০১৭ ওয়ান্ডারস্ট্রাক হ্যাঁ না না
২০১৯ ডার্ক ওয়াটার্স হ্যাঁ না না
২০২১ দ্য ভেলভেট আন্ডারগ্রাউন্ড হ্যাঁ হ্যাঁ হ্যাঁ
২০২৩ মে ডিসেম্বর হ্যাঁ না না

নির্বাহী প্রযোজক

টেলিভিশন[সম্পাদনা]

বছর চলচ্চিত্রের শিরোনাম পরিচালক লেখক নির্বাহী
প্রযোজক
টীকা
১৯৯৩ ডটি গেটস স্প্যাঙ্কড হ্যাঁ হ্যাঁ না টিভি স্বল্পদৈর্ঘ্য
২০১১ মিলড্রেড পিয়ার্স হ্যাঁ হ্যাঁ হ্যাঁ মিনি ধারাবাহিক[২]
২০১৩ এনলাইটেনড হ্যাঁ না না পর্ব: "অল আই এভার ওয়ান্টেড"
সিক্স বাই সন্ডহাইম হ্যাঁ না না খণ্ড: "আ'ম স্টিল হিয়ার"

বিজ্ঞাপনচিত্র[সম্পাদনা]

বছর শিরোনাম বিষয়
২০০৮ "শেয়ার দ্য গুড"[৩] হেইনেকেন প্রিমিয়াম লাইট

টীকা[সম্পাদনা]

  1. হেইঞ্জ কার্পেন্টারের সঙ্গীতের উপযুক্ত লাইসেন্সিং নেন নি, যার ফলে রিচার্ড কার্পেন্টার তার বিরুদ্ধে মামলা করেন এবং চলচ্চিত্রটির পরিবেশনা নিষিদ্ধ হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ডেভিস, গ্লিন (২০০৮)। Superstar: the Karen Carpenter storyওয়ালফ্লাওয়ার প্রেসআইএসবিএন 9781905674886 
  2. "HBO: Mildred Pierce"। এইচবিও। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০২৪ 
  3. "Full credits and video on Boards"। মার্চ ২৮, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জানুয়ারি ২০২৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]