জিয়াউদ্দিন আহমেদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জিয়াউদ্দিন আহমেদ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
জাতিসত্তাবাঙালি
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
যে জন্য পরিচিত৯ নম্বর সেক্টরের সাব-সেক্টর কমান্ডার

মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং ৯ নম্বর সেক্টরের সুন্দরবন সাব-সেক্টর কমান্ডার। তাঁকে মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে মুক্তিবাহিনীর জেড ফোর্সের অধীন প্রথম ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের অধিনায়ক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। মুক্তিযুদ্ধে তাঁর ভূমিকা অনন্য।

জন্ম ও শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

জিয়াউদ্দিনের জন্ম পিরোজপুর জেলায়। তার পিতার নাম আফতাব উদ্দিন আহমেদ; তিনি পিরোজপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান ছিলেন।[১]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

জিয়াউদ্দিন আহমেদ ১৯৬৯ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে কমিশন লাভ করেন এবং সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট পদে যোগদান করেন। তিনি ১৯৭১ সালে সেনাবাহিনীর মেজর হিসেবে পশ্চিম পাকিস্তানে কর্মরত ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে জুলাই মাসে পাকিস্তান থেকে পালিয়ে এসে তাতে যোগ দেন। চাকরিতে থাকা অবস্থায় ১৯৭৪ সালে সাপ্তাহিক হলিডে পত্রিকায় নিবন্ধ লেখার জন্য শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে তাঁকে চাকরীচ্যুত করা হয়। তখন তাঁর পদবি ছিলো লেফটেন্যান্ট কর্নেল।[২]

মুক্তিযুদ্ধে ভূমিকা[সম্পাদনা]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

চাকরীচ্যুত হওয়ার পর তিনি পূর্ব বাংলার সর্বহারা পার্টিতে যোগ দেন।[২] তিনি ১৯৮৯-৯১ সালে বিপুল ভোটে পিরোজপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

প্রকাশণা[সম্পাদনা]

মুক্তিযুদ্ধে নিজের ও অন্যান্যদের অংশগ্রহণ এবং যুদ্ধের বিভিন্ন দিক নিয়ে তিনি "সুন্দরবন সমরে ও সুষমায়" নামে একটি বই লিখেছেন।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.dailyjanakantha.com/news_view.php?nc=15&dd=2013-01-19&ni=122812
  2. আনোয়ার উল আলম, রক্ষীবাহিনীর সত্য-মিথ্যা, প্রথমা, ঢাকা, দ্বিতীয় সংস্করণ, অক্টোবর ২০১৩, পৃষ্ঠা ৮২, ৯৫, ৯৬।
  3. http://rokomari.com/author/3457;jsessionid=605673579671BC84D870019931139105