জামিয়া আল-কারম

স্থানাঙ্ক: ৫৩°১৭′৪৩″ উত্তর ০°৫৫′৫৩″ পশ্চিম / ৫৩.২৯৫২° উত্তর ০.৯৩১৩° পশ্চিম / 53.2952; -0.9313
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জামিয়া আল-কারম
Jamia Al-Karam
জামিয়া আল-কারমের লোগো.png
জামিয়া আল-কারমের লোগো
ঠিকানা
ইটন হল, ইটন

রেটফোর্ড
, ,
ডিএন২২ ০পিআর

স্থানাঙ্ক৫৩°১৭′৪৩″ উত্তর ০°৫৫′৫৩″ পশ্চিম / ৫৩.২৯৫২° উত্তর ০.৯৩১৩° পশ্চিম / 53.2952; -0.9313
তথ্য
ধরনবেসরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ
ধর্মীয় অন্তর্ভুক্তিসুন্নি ইসলাম
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৮৫
প্রতিষ্ঠাতামুহাম্মদ ইমদাদ হুসেন পীরজাদা
শিক্ষা বিভাগ ইউআরএন১২২৯৪৫ ছক
ধর্মীয় প্রধানমুহাম্মদ ইমদাদ হুসেন পীরজাদা
লিঙ্গসহ-শিক্ষা
ওয়েবসাইট

জামিয়া আল-কারম (আরবি: جامعة الکرم‎‎ ) ইংল্যান্ডের নটিংহ্যামশায়ারের ইটনে অবস্থিত একটি ইসলামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ইটনের ৩০ একর জায়গা জুড়ে প্রতিষ্ঠানটি অবস্থিত।[১] প্রতিষ্ঠানটি মুহাম্মদ ইমদাদ হুসেন পীরজাদা পরিচালনা করেছেন।[২][৩][৪]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৯৫ সালে জামিয়া আল-কারম তার বর্তমান অবস্থানে নটিংহামশায়ার রেটফোর্ডে চলে আসে, যেখানে এর প্রতিষ্ঠাতা শেখ পীরজাদা একটি নতুন প্রকল্প আল কারম মাধ্যমিক বিদ্যালয় চালু করেছিলেন। এটি একটি বোর্ডিং স্কুল ছিল যা জিসিএসই স্তর পর্যন্ত শিক্ষা প্রদান করে। স্কুলটি শিক্ষার মান বজায় রেখেছিল এবং এর ফি কম থাকায় অনেকের জন্য সেটা সাশ্রয়ী ছিল।[৫][৬]

এটি ইংরেজি, গণিত এবং বিজ্ঞান বিষয়ে পাঠদান করে। পাশাপাশি আরবি ভাষা, ইসলামিক স্টাডিজ এবং উর্দু বিষয়গুলিও পাঠদান করে।[৭]

ইনস্টিটিউট ৪০০ ব্রিটিশ ইসলামিক পণ্ডিত তৈরি করেছে যার মধ্যে ৪০ জন মিশরের কায়রোতে আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক হয়েছেন। [৮] ১৯৫১ সাল দুটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সম্পর্ক বিদ্যমান। যখন বিচারপতি শাইখ মুহাম্মদ কারম শাহ আল-আজহারী (যার নাম অনুসারে জামিয়া আল-কারম নামকরণ করা হয়) আহমাদ জাকি, মুস্তাফা শিলবি এবং মুহাম্মদ আবু জাহরাসহ আল-আজহারের মহান পণ্ডিতদের তত্ত্বাবধানে আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা শুরু করেন।

২০১১ সালের ১৫ মে রবিবার, জামিয়া আল-কারম প্রাঙ্গণে ওয়ার্ল্ড অ্যাসোসিয়েশন ফর আল-আজহার গ্র্যাজুয়েটস (ডাব্লুএএজি)-এর যুক্তরাজ্য শাখা এবং গ্রেট ব্রিটেনের আল-আজহার যোগাযোগ অফিসের উদ্বোধন করা হয়। এতে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় ও কেমব্রিজ মুসলিম কলেজের টিমোথি উইন্টার, নাজির আহমেদ, ব্যারন আহমেদ, ফায়াজ গফুর (সিওও, এআরওয়াই নেটওয়ার্ক) সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।[৯]

জামিয়া আল কারমের ইমাম ও প্রবীণ প্রভাষক গুল মুহাম্মাদ ব্রিটিশ জিম্মি অ্যালান হেনিংকে মুক্তি দেওয়ার জন্য আইএসআইএস-এর কাছে আবেদন করেছিলেন এবং জঙ্গিদের ইসলামের বিরুদ্ধে 'সবচেয়ে নিন্দনীয় পাপ' না করার আহ্বান জানান।[১০][১১]

শিক্ষায়তনিক[সম্পাদনা]

জামিয়া আল-কারম প্রতিষ্ঠাতার দৃষ্টিভঙ্গি অনুসারে এটি ব্রিটিশ মুসলমানদের শিক্ষাগত ও সামাজিক সামাজিক চাহিদা পূরণের জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।[১২]

জামিয়া আল কারমে দারসে নিজামি কোর্স পড়ায় যা ইসলামিক শিক্ষার প্রাচীনতম প্রতিষ্ঠান আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সংযুক্ত।[১৩] এটি আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সম্পৃক্ততা অর্জন করেছে এবং জামিয়া আল-কারমের স্নাতকদের আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএ ডিগ্রি কোর্সের তৃতীয় বর্ষে ভর্তির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এটি ৬০ জনেরও বেশি ইসলামিক পণ্ডিত তৈরি করেছে।[১৪]

প্রতিষ্ঠানটি একটি আল কারম নাশিদ গ্রুপ পরিচালনা করে। যা ঈদে মিলাদুন্নবী উদযাপনের সময় সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ইসলামিক গান পরিবেশন করে।[১৫]

এটি বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে সংলাপের কেন্দ্র হিসাবে কাজ করে।[১৬] ব্রিটিশ কনজারভেটিভ পার্টির রাজনীতিবিদ ও নেওয়ার্কের সংসদ সদস্য (এমপি) রবার্ট জেনেরিক জামিয়া আল কারম পরিদর্শন করেন এবং এর প্রতিষ্ঠাতার প্রচেষ্টার প্রশংসা করেন।[১৭]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Higher calling"The Guardian। ১৩ ডিসেম্বর ২০০৫। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  2. "Online Prospectus of Jamia Al-Karam — www.alkaram.org"alkaram.org। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  3. Nicola Davison Reed (৬ নভেম্বর ২০১২)। Retford Through Time। Amberley Publishing Limited। পৃষ্ঠা 133–। আইএসবিএন 978-1-4456-1196-9 
  4. Q News: The Muslim Magazine। Q News International। ১৯৯৯। 
  5. "Jamia Al-Karam"gatewaytodivinemercy.com। ১৬ আগস্ট ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ মে ২০২১ 
  6. "Nottinghamshire pupils buck national trend and get best GCSE results ever"Nottingham Post। ৮ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ মে ২০২১ 
  7. "The Official Website of Shaykh Pirzada — Home"। mihpirzada.com। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুলাই ২০১৫ 
  8. mihpir। "The Official Website of Shaykh Pirzada — Jamia Al-Karam officially opens the UK Branch of the World Association for Al-Azhar Graduates"mihpirzada.com 
  9. mihpir। "The Official Website of Shaykh Pirzada — Jamia Al-Karam officially opens the UK Branch of the World Association for Al-Azhar Graduates"mihpirzada.com mihpir. "The Official Website of Shaykh Pirzada — Jamia Al-Karam officially opens the UK Branch of the World Association for Al-Azhar Graduates". mihpirzada.com.
  10. "Leicestershire Muslims call on Islamic State to release British hostage Alan Henning"Leicester Mercury। ২২ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ মে ২০২১ 
  11. "Alan Henning: British Muslim leaders unite to urge Isis to release UK hostage"The Independent 
  12. Fran Abrams। "Higher calling"The Guardian 
  13. "Online Prospectus of Jamia Al-Karam — www.alkaram.org"alkaram.org। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। "Online Prospectus of Jamia Al-Karam — www.alkaram.org". alkaram.org. Archived from the original on 27 September 2007.
  14. "Jamia Al-Karam"gatewaytodivinemercy.com। ১৬ আগস্ট ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ মে ২০২১ "Jamia Al-Karam" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৬ আগস্ট ২০১৭ তারিখে. gatewaytodivinemercy.com.
  15. "Slideshow: Boothroyd Primary Academy celebrates Prophet's birthday"dewsburyreporter.co.uk। ৫ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ মে ২০২১ 
  16. Bernard Trafford (২০০৬)। I2 = Independent + Innovative: Examples of Innovation in HMC Schools। John Catt Educational Ltd। পৃষ্ঠা 66–। আইএসবিএন 978-1-904724-41-4 
  17. "Visit to Jamia Al-Karam"robertjenrick.com। ১৬ আগস্ট ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ মে ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]