জনতা কার্ফ্যু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জনতা কার্ফু
মধ্য প্রদেশের ভোপাল জনতা কারফিউ চলাকালীন খালি রাস্তা
পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় জনতা কারফিউ চলাকালীন খালি রাস্তা
তারিখ২২ মার্চ ২০২০ (2020-03-22)
সময়সকাল সাতটা থেকে রাত্রি নটা
অবস্থানভারত

জনতা কার্ফু ছিল করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার বিরুদ্ধে লড়াই করার একটি প্রচেষ্টা। ২০২০ সালে ভারতে করোনভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীটির পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এটির উদ্যোগ নেন। [১] প্রধানমন্ত্রী ভারতে করোনাভাইরাস রোগের ভাইরাস সংক্রমণকে হ্রাস করতে সহায়তায় জন্য ২০২০ সালের ২২ শে মার্চ রোববার সকাল ৭টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত একটি স্বেচ্ছা ' সান্ধ্য আইন ' পালন করার জন্য ভারতের সকল নাগরিককে অনুরোধ করেছিলেন। [২]

কর্ম পরিকল্পনা[সম্পাদনা]

২০২০ সালের ২২ মার্চ জনতা কার্ফুটি ১৪ ঘণ্টা থাথে। পুলিশ, চিকিৎসা পরিষেবা, মিডিয়া, হোম ডেলিভারি পেশাদার এবং দমকলকর্মীদের মতো প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলি বাদে প্রত্যেককে কার্ফুতে অংশ নেয়। সন্ধ্যা ৫ টায় সমস্ত নাগরিককে প্রয়োজনীয় সেবা সরবরাহকারী পেশাদারদের প্রশংসা করার জন্য তাদের নিজেদের দ্বারপথ, বারান্দা বা জানলায় দাঁড়িয়ে এবং হাততালি দিয়ে বা ঘণ্টা বাজানোর জন্য উত্সাহ দেওয়া হয়। [২] দেশে কার্ফু প্রয়োগের জন্য জাতীয় ক্যাডেট কর্পস এবং জাতীয় পরিষেবা প্রকল্পের ব্যক্তিরা থাকে। [৩] প্রধানমন্ত্রী যুবকদের আরও ১০ জনকে জনতা কার্ফু সম্পর্কে অবহিত করার এবং সবাইকে কার্ফু পালন করতে উত্সাহিত করার আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী জনতা কারফিউ আহ্বানকে উৎসাহ দেবার সময়, তেলঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে. চন্দ্রশেখর রাওকে করোনা ভাইরাসটির সম্ভাব্য বিস্তার রক্ষার জন্য রবিবার সকাল ৬ টা থেকে সোমবার সকাল ৬ টা পর্যন্ত তেলেঙ্গানার জনগণকে বাড়ির ভিতরে থাকতে অনুরোধ করেছিলেন। [৪]

অন্যান্য সংস্থা বা ইউনিয়ন দ্বারা সমর্থন[সম্পাদনা]

দিল্লির কয়েকটি অটো এবং ট্যাক্সি ইউনিয়ন জানিয়েছে যে জনতা কার্ফু চলাকালীন তারা পরিষেবা সরবরাহ করবে না। [৫]

কার্ফু চলাকালীন রাজ্য কর্তৃক গৃহীত সাবধানতা এবং পদক্ষেপগুলি[সম্পাদনা]

কিছু রাজ্য রেল এবং মনোরেল পরিষেবা বন্ধের মতো আরও সতর্কতা অবলম্বন করে। [৬][৭] তামিলনাডু জনতা কারফিউ চলাকালীন কারাগারে দর্শনার্থীদের প্রবেশের অনুমতি দেয়নি, এবং মাছ ধরারও অনুমতি নেই। [৮] শুধুমাত্র মুম্বাইয়ের প্রয়োজনীয় পরিষেবায় কর্মরত মুম্বাইয়ের স্থানীয় ট্রেনগুলিতে যাতায়াত করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল, এবং ৩,৭০০ এরও বেশি ট্রেন বাতিল করার কারণে রেল পরিষেবা অনেকটাই পিছিয়ে পড়ে, কারফিউ কার্যকর হওয়ার পরে এই পদক্ষেপগুলি শুরু হয়ে তবে ৩১ শে মার্চ তা শেষ হয়।[৯][১০]

সামাজিক মাধ্যম প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

সামাজিক মাধ্যম জনতা কার্ফু নিয়ে প্রতিক্রিয়া, বিশ্বব্যাপী কয়েকটি প্ল্যাটফর্মের প্রবণতার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। টুইটারে, #জনতাকার্ফুমার্চ২২ হ্যাশট্যাগটি এতবার ট্যাগ করা হয়েছে যে এটি বিশ্বব্যাপী অন্যতম প্রবণতার বিষয় হিসাবে তালিকাভুক্ত হয়েছিল। [১১] জনতা কার্ফুর খবর ছড়িয়ে দিতে কিছু বিখ্যাত ব্যক্তি সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করেছেন । [৭][১২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bureau, Our। "PM Modi calls for 'Janata curfew' on March 22 from 7 AM-9 PM"@businessline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মার্চ ২০২০ 
  2. DelhiMarch 19, India Today Web Desk New; March 19, India Today Web Desk New। "What is Janata Curfew: A curfew of the people, by the people, for the people to fight coronavirus"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মার্চ ২০২০ 
  3. "PM Modi Speech on Coronavirus Highlights: Janata Curfew on Sunday, Avoid Panic Buying"News18। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মার্চ ২০২০ 
  4. Reporter, B. S. (২০২০-০৩-২১)। "Covid-19 scare: Telangana may close borders with Maharastra, says CM Rao"Business Standard India। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২১ 
  5. "Autos, Taxis to Remain Off-Road in Delhi During 'Janta Curfew'"News18। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২২ 
  6. "'Janta Curfew' and how states are implementing it- All you need to know"Hindustan Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০৩-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২২ 
  7. "India Indoors: Millions To Observe "Janata Curfew""NDTV.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২২ 
  8. Mar 21, M. K. Ananth | TNN |; 2020। "'Janta Curfew': Tamil Nadu imposes various restrictions on fishing, fishing-related activities | Chennai News - Times of India"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২২ 
  9. Mar 21, Dipak K. Dash | TNN |; 2020। "Janata curfew: 3,700 trains cancelled on Sunday | India News - Times of India"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২২ 
  10. "Coronavirus: Mumbai local closed for general public till March 31"news.abplive.com (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০৩-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২২ 
  11. "'Janta curfew March 22' trends on Twitter as Indians decide to stand in solidarity tomorrow"Hindustan Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০৩-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২২ 
  12. "Rajinikanth, Amitabh Bachchan, Dharmendra Spread Awareness About Janta Curfew"News18। ২০২০-০৩-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২২