বিষয়বস্তুতে চলুন

চেসনাট (রঙ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
চেসনাটের গোড়ায় ও আশপাশে চেসনাট খুঁজে পাওয়া যেতে পারে
চেসনাট
 
About these coordinates     রঙের স্থানাঙ্ক
হেক্স ট্রিপলেট#954535
sRGBB  (rgb)(149, 69, 53)
CMYKH   (c, m, y, k)(0, 54, 64, 42)
HSV       (h, s, v)(10°, 64%, 58[১]%)
উৎসMaerz and Paul
B: [০-২৫৫] (বাইট)-এ নিয়মমাফিক
H: [০-১০০] (শত)-এ নিয়মমাফিক

চেসনাট[২] হলো বাদামী রঙয়ের একটি মাঝারি লালচে আভা (ডানপাশে/উপরদিকে প্রদর্শিত)। চেসনাট গাছের বাদাম বা বাদামজাতীয় ফলের রঙের সদৃশ হওয়ায় রঙটির নামকরণ করা হয়েছে চেসনাট[৩]

ভারতীয় লাল রঙটিও চেসনাট' রঙের সদৃশ তবে তা পৃথক ও স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যমণ্ডিত।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

এটাও বলা যেতে পারে চেসনাট হলো তাম্র রঙের একটি গাঢ় কালচে আভা যা প্রায় বাদামী রঙের মতোই দেখায়।

ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

চেসনাট গাছের বাদামজাতীয় ফলের রঙ থেকেই চেসনাট রঙের নামকরণ। ইংরেজিতে রঙের নাম হিসেবে চেসনাট শব্দটির রেকর্ডকৃত প্রথম ব্যবহার হয় ১৫৫৫ সালে।[৪] মেরুন রঙের নামটিও চেসনাট ফল থেকেই এসেছে, চেসনাটের ফরাসি প্রতিশব্দ মেরন (marron) এর মধ্য দিয়ে।

চেসনাটের বৈচিত্র্য[সম্পাদনা]

গূঢ় চেসনাট[সম্পাদনা]

চেসনাট (ক্রেয়লা)
 
About these coordinates     রঙের স্থানাঙ্ক
হেক্স ট্রিপলেট#B94E48
sRGBB  (rgb)(185, 78, 72)
CMYKH   (c, m, y, k)(0, 50, 50, 25)
HSV       (h, s, v)(10°, 50%, 75%)
উৎসCrayola
B: [০-২৫৫] (বাইট)-এ নিয়মমাফিক
H: [০-১০০] (শত)-এ নিয়মমাফিক

গূঢ় চেসনাট (Deep chestnut) রঙটি ক্রেয়লা ক্রেয়নে চেসনাট নামে অন্তর্ভুক্ত। এই রঙটি একসময় খুব অল্প ও সীমিত পরিমাণে তৈরি করা হতো এবং তখন এটি পরিচিত ছিলো ভারমন্ট ম্যাপল সিরাপ নামে।

শিশুরা (ভুল করে) নামটিকে ন্যাটিভ আমেরিকানদের ত্বকের রঙের প্রতিনিধিত্বকারী মনে করতে পারে বলে শিক্ষাব্রতীদের অনুরোধে ক্রেয়লা তাদের ক্রেয়ন রঙের তালিকায় এটিকে "ভারতীয় লাল" (ইন্ডিয়ান রেড) নামে অন্তর্ভুক্ত করে যা মূলত ১৯৫৮ সালে তৈরি করা হয়েছিল এবং ১৯৯৯ সালে "চেসনাট" নাম পায়।[৫] বাস্তবে মার্কিন ভারতীয়দের সাথে লাল রঙের কোনও সম্পর্ক নেই তবে এটি একটি আয়রন অক্সাইড রঙ্গক যার ব্যবহার ভারতে জনপ্রিয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "#954535 Hex Colour Code Schemes, Charts, Palettes, Paints & RGB / CMYK / HSL Conversion:"। Encycolorpedia। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৯, ২০১৩ 
  2. Ian Paterson. A Dictionary of Colour: A Lexicon of the Language of Colour. Thorogood Publishing Ltd, 2003
  3. "Wordnik"Wordnik.com। ৩০ জুন ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৮ 
  4. Mish, Frederic C., Editor in Chief Webster's Tenth New Collegiate Dictionary Springfield, Massachusetts, U.S.A.:1994--Merriam-Webster Page 197
  5. "Explore Colors"crayola.com। ২৪ ডিসেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৮