গায়ত্রী শংকরণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গায়ত্রী শংকরণ
জন্ম
সামালকোট, অন্ধ্রপ্রদেশ, ভারত
পেশাকর্ণাটকের শাস্ত্রীয় বাদ্যযন্ত্রী, গায়িকা,বেহালাবাদক
পুরস্কারপদ্মশ্রী, রোল মডেল ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড, সুরমনি পুরস্কার, ইসাই চুডার পুরস্কার, পল্লবী সিঙ্গার পুরস্কার, শ্রেষ্ঠ শিক্ষক পুরস্কার, গানা কোইল পুরস্কার, রোটারি প্রফেশনাল এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড, ইন্ডিয়ান ফাইন আর্টস সোসাইটি অ্যাওয়ার্ড, ওয়ার্ল্ড তেলুগু ফেডারেশন অ্যাওয়ার্ড, এসেন্দাস এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড, কালাইমামানি পুরস্কার, স্বর্ণ তরঙ্গিণী পুরস্কার
ওয়েবসাইটhttp://www.gayatrisankaran.com/

ড. গায়ত্রী শংকরণ একজন দৃষ্টিহীন গায়িকা, যিনি কর্ণাটকের শাস্ত্রীয় সংগীত জগতের এক সম্পদ।[১] তিনি কর্ণাটকের শাস্ত্রীয় সংগীত গায়িকা ও বেহালাবাদক।[২][৩] তিনি তামিলনাড়ু সরকার এর কাছ থেকে কালাইমামানি পুরস্কার পেয়েছেন।[৪][৫] সংগীতে তার অবদানের জন্য ২০০৬ সালে ভারত সরকার রাষ্ট্রের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক পদক পদ্মশ্রী প্রদান করেন গায়ত্রী শংকরণকে।[৬] তিনিই প্রথম দৃষ্টি প্রতিবন্ধী নারী, যিনি পদ্মশ্রী পুরস্কার লাভ করেন।[২][৭]

জীবনী[সম্পাদনা]

ড. গায়ত্রী শংকরণ কর্ণাটক শাস্ত্রীয় সংগীত জগতের এক নক্ষত্রের নাম। গান গাওয়া ছাড়াও তিনি খুব সুন্দরভাবে বীণা বাজাতে পারেন ও বেহালা বাজাতে পারেন।[৮] অন্ধ্রপ্রদেশের সামালকোট থেকে এসে তামিলনাড়ুর চেন্নাইয়ে বসবাস শুরু করে তার পরিবার। মাত্র তিন বছর বয়সে তিনি তার মা সুব্বুলক্ষ্মী গুরুনাথনের কাছ থেকে গান শেখা আরম্ভ করেন এবং এরপর গান শেখেন আল্লামারাজু সোমেশ্বেরা রাও এর কাছ থেকে। পাক্কালা রামাদোসের কাছ থেকে বেহালা বাজানো শিখেছিলেন তিনি।

তিনি কলাক্ষেত্র ফাউন্ডেশনে ভর্তি হয়েছিলেন। সেখানে রুক্মিণী দেবী অরুন্দালের কাছে সংগীত শিখেছিলেন তিনি। এছাড়াও, তিনি লাগুন্দি জয়রামন, কে জে যেসুদাস, পুদ্দুক্কদু কৃষ্ণমূর্তির মত সংগীতজ্ঞের অধীনে দীক্ষা নিয়েছিলেন।

১৯৮৮ সালে অল ইন্ডিয়া রেডিওতে যোগদানের মাধ্যমে তার কর্মজীবন শুরু হয়। অল ইন্ডিয়া রেডিওতে তিনি কর্ণাটকের শাস্ত্রীয় সংগীত পরিবেশন করতেন।

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এই নারী পড়াশোনায় থেমে থাকেন নি। মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেছিলেন তিনি। তার থিসিসের শিরোনাম ছিল 'স্টাইলিস্টিক অ্যানালাইসিস অব কালিদাইকুরিচি বেদান্ত ভাগাবতার'।[৭]

ড. গায়ত্রী শংকরণ তার বাসায় এবং অন্তর্জালের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সংগীত শিক্ষা দিয়ে থাকেন।[২][৮][৯] তিনি তার শিক্ষার্থীদের মাঝে জনপ্রিয়। তিনি দেশ ও দেশের বাইরে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশনা করে থাকেন।[৩][১০]

তিনি সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় (ভারত) এর দক্ষিণাঞ্চল সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের প্রোগ্রাম কমিটির একজন সদস্য। ভারত সরকারের মিনিস্ট্রি অব সোশ্যাল জাস্টিস অ্যান্ড এমপাওয়ারমেন্ট এর পুরস্কার প্রদান কমিটির একজন সদস্য।[১১]

সংগীত শাস্ত্রে তার অসামান্য অবদানের জন্য তিনি ভূষিত হয়েছেন নানা পুরস্কারে। ২০০৬ সালে ভারতের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট এপিজে আবদুল কালাম আজাদের কাছ থেকে পদ্মশ্রী পুরস্কার গ্রহণ করেছিলেন তিনি।,[২][৬] ২০১১ সালে তামিলনাড়ু রাজ্য সরকার তাকে কালাইমামানি পুরস্কার প্রদান করে।[৪][৫] তিনি ভারত সরকারের মিনিস্ট্রি অব সোশ্যাল জাস্টিস অ্যান্ড এমপাওয়ারমেন্ট থেকে রোল মডেল ন্যাশনাল এওয়ার্ড লাভ করেন। মুম্বাইয়ের সুর সিঙ্গার সামসাথ থেকে লাভ করেছিলেন সুরমানি পুরস্কার। এছাড়াও তিনি ইসাই চুডার পুরস্কার, পল্লবী সিঙ্গার পুরস্কার, শ্রেষ্ঠ শিক্ষক পুরস্কার, গানা কুইল পুরস্কার, রোটারি প্রফেশনাল এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড, ইন্ডিয়ান ফাইন আর্টস সোসাইটি অ্যাওয়ার্ড, ওয়ার্ল্ড তেলুগু ফেডারেশন অ্যাওয়ার্ড, এসেন্দাস এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড, কালাইমামানি পুরস্কার ও স্বর্ণ তরঙ্গিণী পুরস্কার লাভ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "PadmaShri Dr. Gayatri Sankaran - Begada Varnam 'Intha Chala'"। YouTube। ১২ অক্টোবর ২০১২। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৩, ২০১৫ 
  2. "ICCKL"। ICCKL। ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১২, ২০১৫ 
  3. "Tamil Isai Manram"। Tamil Isai Manram। ২০১৫। এপ্রিল ২, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৪, ২০১৫ 
  4. "Kalaimamani"। The Hindu। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৩, ২০১৫ 
  5. "Lakshman Sruthi"। Lakshman Sruthi। ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৪, ২০১৫ 
  6. "Padma Shri" (PDF)। Padma Shri। ২০১৫। নভেম্বর ১৫, ২০১৪ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১১, ২০১৪ 
  7. "The Hindu report"। The Hindu। ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৪, ২০১৫ 
  8. "India Art and Aartists"। India Art and Aartists। ২০১৫। সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৩, ২০১৫ 
  9. "Swann"। Swann। ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৪, ২০১৫ 
  10. "Indians in Kuwait"। Indians in Kuwait। ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৪, ২০১৫ 
  11. "We Got Guru"। We Got Guru। ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৩, ২০১৫