গগনদীপ কাং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গগনদীপ কাং
জন্ম (1962-11-03) ৩ নভেম্বর ১৯৬২ (বয়স ৫৯)
জাতীয়তাIndian
কর্মক্ষেত্রInfectious disease
Vaccines
Enteric infections
Water
Sanitation[১]
প্রতিষ্ঠানChristian Medical College, Vellore
Baylor College of Medicine
প্রাক্তন ছাত্রChristian Medical College, Vellore
উল্লেখযোগ্য
পুরস্কার
Infosys Prize (2016)
ওয়েবসাইট
cmcwtrl.in

গগনদীপ কাং এফএনএ, এফএসসি, এফআরএস[২] (জন্ম: নভেম্বর ৩, ১৯৬২) একজন ক্লিনিশিয়ান বিজ্ঞানী এবং ভারতের ভেলোরে অবস্থিত ক্রিশ্চিয়ান মেডিকেল কলেজে গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল বিজ্ঞান বিভাগের একজন অধ্যাপক। [১] এছাড়াও ভারত সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ স্বায়ত্বশাসিত ট্রান্সলেশনাল স্বাস্থ্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ইনস্টিটিউট, এর অধিকর্তা। এটি ফরিদাবাদে অবস্থিত। .[৩] শিশুদের মধ্যে ভাইরাল সংক্রমণ এবং রোটাভাইরাস ভ্যাকসিনের পরীক্ষা-নিরীক্ষায় নিয়োজিত গবেষণার একজন অগ্রপথিক তিনি। শিশুরা প্রাথমিক জীবনে সংক্রামিত হলে তার দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব, স্যানিটেশন এবং জল নিরাপত্তায সংক্রান্ত বিষয় নিয়েও গবেষণা করেন। তিনি ২০১৬ সালে মর্যাদাপূর্ণ ইনফোসিস পুরস্কার, -এ ভূষিত হয়েছেন জীবন বিজ্ঞানে রোটাভাইরাস এবং অন্যান্য সংক্রামক রোগের ইতিহাস সম্পর্কিত গবেষণার কারণে.[৩][৪][৫]। ২০১৯ সালে তিনি ইংল্যান্ডের বিখ্যাত এবং মর্যাদাপূর্ণ রয়াল সোসাইটির ফেলো নির্বাচিত হ্ন। সোসাইটির ৩৬০ বছরের ইতিহাসে তিনিই প্রথম ভারতীয় মহিলা যিনি এই সম্মানের অধিকারী হয়েছেন। https://www.ndtv.com/science/gagandeep-kang-is-first-indian-woman-to-be-elected-royal-society-fellow-2025717

শিক্ষা[সম্পাদনা]

গগনদীপ কাং ১৯৮৭ সালে ব্যাচেলর অফ মেডিসিন ও ব্যাচেলর অফ সার্জারি(এমবিবিএস) ও ১৯৯১ সালে ভেলোরের ক্রিশ্চিয়ান মেডিকেল কলেজ থেকে মাইক্রোবায়োলজিতে তার এমডি সম্পন্ন করেন এবং ১৯৯৮ সালে পিএইচডি অর্জন করেন।.[৩] তিনি রয়েল কলেজ অফ প্যাথোলজিস্টস এর সদস্য হন এবং ক্রিশ্চিয়ান মেডিক্যাল কলেজে ফিরে আসার আগে হিউস্টন এর বায়লার কলেজ অফ মেডিসিনের মেরি কে। এস্টেসের সাথে পোস্টডক্টরাল গবেষণা করেন।

কর্মজীবন ও গবেষণা[সম্পাদনা]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

  • ২০০৬ বর্ষের মহিলা জীববিজ্ঞানী[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
  • ২০০৮ রয়েল কলেজ অব প্যাথোলজিস্টস, লন্ডন[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
  • ২০০৯ অ্যাবট ওরেশন সম্মাননা, ইন্ডিয়ান সোসাইটি অফ গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজি
  • ২০১০ ফেলো, আমেরিকান একাডেমী অব মাইক্রোবায়োলজি[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
  • ২০১১ ভারতীয় বিজ্ঞান একাডেমীর ফেলো
  • ২০১১ ডঃ ওয়াই এস নারায়না রাও ওরেশন পুরস্কার, ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ
  • ২০১৩ ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্সেসর ফেলো
  • ২০১৪ ররয়ানব্যাক্সী গবেষণা পুরস্কার[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
  • ২০১৬ ভারতীয় জাতীয় বিজ্ঞান একাডেমীর ফেলো
  • ২০১৬ ইনফোসিস পুরস্কার, জীবন বিজ্ঞান[৬]
  • ২০১৯ ফেলো অব দ্য রয়েল সোসাইটি (FRS)[২][৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. গুগল স্কলার দ্বারা সূচীবদ্ধ গগনদীপ কাংয়ের প্রকাশনাসমূহ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
  2. "Gagandeep Kang - Royal Society"Royalsociety.org। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৯ 
  3. "Infosys Prize - Laureates 2016 - Prof. Gagandeep Kang"Infosys-science-foundation.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২০ 
  4. Barath, Harini (৭ মার্চ ২০১৭)। "10 women, 10 questions: Gagandeep Kang"IndiaBioscience.org। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৯ 
  5. "An E-mail Interview with Prof. Gagandeep Kang"। ১ জুলাই ২০১৭: 128। ডিওআই:10.4103/tp.TP_30_17পিএমআইডি 29114495। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৯ 
  6. "Winners of Infosys Prize 2016 announced"। ২০১৬-১১-১৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৪-০৩ 
  7. "Gagandeep Kang enters Royal Society of London as first Indian woman scientist fellow - Times of India"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৯