খুবানি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
খুবানি এবং এর খন্ডিত অংশ

খুবানি এক প্রকার ফল। এর গাছের নাম খুবানি গাছ। এটি Prunus প্রজাতির উদ্ভিদ।

পুষ্টিগুণ[সম্পাদনা]

খুবানিতে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, লৌহ ও কপার রয়েছে।[১]

উপকারীতা[সম্পাদনা]

এর উপকারীতাগুলো হলোঃ[১]

  • এটি ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখে বলে শরীর সুস্থ ও সতেজ থাকার পাশাপাশি ক্যান্সারও প্রতিরোধ হয়;
  • ডায়াবেটিস রোগের ক্ষেত্রে রক্তের শর্করা কমিয়ে দেয় বলে এটি উপকারী;
  • এতে প্রচুর লৌক ও কপার থাকায় রক্তস্বল্পতা দূরীভূত হয়।

ব্যবহার[সম্পাদনা]

খুবানির বহুবিধ ব্যবহার রয়েছে; যেমনঃ

  • এটি বিভিন্ন প্রকার মসলাদার রান্নার উপকরণ হিসাবে ব্যবহৃত হয়।[২]
  • ফল-খাদ্য হিসাবে ব্যবহৃত হয়।[৩]
  • তেল হিসাবে এটি ব্যবহৃত হয়।[৪]

উৎপাদন[সম্পাদনা]

তুরস্ক পৃথিবীর সর্বাধিক অ্যাপ্রিকট উৎপাদনকারী দেশ।[৫] এরপরেই ইরান এবং আর্মেনিয়ার অবস্থান।

২০০৫ সালের সর্বাধিক অ্যাপ্রিকট উৎপাদনকারী দেশ
(১,০০০ টন)
 তুরস্ক ৩৯০
 ইরান ২৮৫
 ইতালি ২৩২
 পাকিস্তান ২২০
 গ্রিস ১৯৬
 ফ্রান্স ১৮১
 আলজেরিয়া ১৪৫
 স্পেন ১৩৬
 জাপান ১২৩
 মরক্কো ১০৩
 সিরিয়া ১০১
মোট উৎপাদন ১৯১৬
Source:[৬]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "অ্যাপ্রিকটের (খুবানি) উপকারীতা"। Desun Hospital। ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  2. "মুরগি খোবানি"। এভারগ্রীণ বাংলা। ১৪ নভেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  3. "খোবানি খাদ্য"। Источник। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "খোবানি তেল"। Источник। ১৪ মে ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  5. The tendencies of Apricot producers
  6. UN Food & Agriculture Organisation (FAO)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]