কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজ

স্থানাঙ্ক: ২২°২১′০৫″ উত্তর ৯১°৫০′১২″ পূর্ব / ২২.৩৫১৩৮২° উত্তর ৯১.৮৩৬৬৯৫° পূর্ব / 22.351382; 91.836695
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজ
কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজের লোগো.png
Kazem ali school and college, chittagong.jpg
রাতের বেলা প্রতিষ্ঠানটির মূল ফটক
অবস্থান
ড. মুহম্মদ এনামুল হক সড়ক (কলেজ রোড), চকবাজার

,
৪২০৩

স্থানাঙ্ক২২°২১′০৫″ উত্তর ৯১°৫০′১২″ পূর্ব / ২২.৩৫১৩৮২° উত্তর ৯১.৮৩৬৬৯৫° পূর্ব / 22.351382; 91.836695
তথ্য
ধরনবেসরকারি
নীতিবাক্যহে প্রভু আমার জ্ঞান বৃদ্ধি করে দাও।
প্রতিষ্ঠাকাল১৮৮৫; ১৩৬ বছর আগে (1885)
প্রতিষ্ঠাতাকাজেম আলী
বিদ্যালয় বোর্ডচট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড
বিদ্যালয় জেলাচট্টগ্রাম জেলা
তদারকিসানজিদা মোখতার তানজিন
বিদ্যালয় কোডইআইআইএন: ১০৪৪৯১
শ্রেণী১ম-১২শ
ভাষাবাংলা
ওয়েবসাইট

কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজ চট্টগ্রামের ড. মুহম্মদ এনামুল হক সড়কে অবস্থিত একটি বেসরকারি প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি ১৮৮৫ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং এটি কোতোয়ালী থানার অন্তর্গত। এটি চট্টগ্রাম কলেজের দক্ষিণে অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কাজেম আলী তৎকালীন মুসলিম সমাজকে শিক্ষায় অগ্রসর করতে ১৮৮৫ সালে ইংলিশ মিডল স্কুল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। ১৮৮৮ সালে এটির নাম দেয়া হয় চিটাগাং হাই ইংলিশ স্কুল। আরো পরে কাজেম আলী স্কুল হিসেবে পরিবর্তিত হয়।[১][২] ১৮৮৫ সাল থেকে ১৯২১ সাল পর্যন্ত কাজেম আলী এই স্কুলটির প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। কাজেম আলী, তৎকালীন জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কেনা জমিতে স্কুলটি তৈরি করেছিলেন। ইংরেজদের বিপক্ষে থাকা স্থানীয়রা শুরুর দিকে তিনবার স্কুলটি পুড়িয়ে দিয়েছিল। ১৯৯১ সাল থেকে কয়েকবার স্কুলটি কাজেম আলীর পরিবারের সদস্যদের দ্বারা দখল করার চেষ্টা করা হয়েছিল।[৩]

কৃতি শিক্ষার্থী[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "কাজেম আলী স্কুল এন্ড কলেজে কাজেম আলী মাষ্টারের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত"। চট্টগ্রাম ডেইলি। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০২০ 
  2. "কাজেম আলী মাস্টার : শিক্ষা আর সমাজ সেবায় অনন্য পথিকৃৎ"। দৈনিক আজাদী। ১১ আগস্ট ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০২০ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "কাজেম আলী মাস্টারের কথিত পরিবার স্কুল দখলের পাঁয়তারা করছে"। বাংলা নিউজ ২৪। ৬ এপ্রিল ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০২০ 
  4. "এক অদম্য রাজনীতিবিদ মহিউদ্দিন চৌধুরী"। বাংলা ট্রিবিউন। ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০২০