কাজী জাফরউল্লাহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কাজী জাফরউল্লাহ
আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য
কাজের মেয়াদ
২৩ অক্টোবর ২০১৬ – বর্তমান
জাতীয় সংসদের সদস্য
কাজের মেয়াদ
২০০১ – ২০০৬
পূর্বসূরীকাজী আবু ইউসুফ
ব্যক্তিগত বিবরণ
জাতীয়তাবাংলাদেশি
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
দাম্পত্য সঙ্গীনিলুফার জাফর
প্রাক্তন শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
পেশারাজনীতিবিদ

কাজী জাফরউল্লাহ একজন বাংলাদেশি রাজনীতিবিদ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী কমিটি সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য।[১] তিনি ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফরিদপুর-৪ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

জাফরউল্লাহ ১৯৪৯ সালের এপ্রিলে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন।[২] তার পিতার নাম কাজী মাহাবুব উল্লাহ ও মাতার নাম বেগম জেবুন্নেসা। তিনি সেইন্ট গ্রেগরী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৬৪ সালে মাধ্যমিক ও ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন।[২]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

জাফরউল্লাহ ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে ফরিদপুর-৪ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[৩] ২০১৪২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একই আসনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে মজিবুর রহমান চৌধুরীর কাছে পরাজিত হন।[৩]

২০১৬ সালের ২৩ অক্টোবর আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনে জাফরউল্লাহ সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী কমিটির সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।[১]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

জাফরউল্লাহ ব্যক্তিগত জীবনে নিলুফার জাফরের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। নিলুফার জাফর, ২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফরিদপুর-৪ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[৩] ২০১৬ সালে প্রকাশ হওয়া পানামা পেপারসে এই দম্পতির নাম প্রকাশিত হয়েছিল এবং বৃটিশ ভার্জিন আইল্যান্ডে অফসোর কোম্পানি রয়েছে বলে তখন পানামা পেপারসে উল্লেখ করা হয়।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হলেন যারা"সমকাল। ১৫ ডিসে ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসে ২০১৮ 
  2. "Begum Zebunnessa and Kazi Mahbubullah Janakalyan Trust."Lha Charitable Trust। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসে ২০১৮ 
  3. "হেভিওয়েট প্রার্থী জাফরউল্লাহর পথের কাঁটা নিক্সন চৌধুরী"Jugantor। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসে ২০১৮ 
  4. "Bangladeshis not outside Panama Papers"The Daily Observer। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-০৭