কর্ণ লিম্বু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কর্ণ লিম্বু
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম কর্ণ লিম্বু
জন্ম স্থান ঝাপা, নেপাল.[১]
মাঠে অবস্থান স্ট্রাইকার
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব
ঝাপা একাদশ
জার্সি নম্বর ১৪
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
বছর দল ম্যাচ (গোল)
২০১২-২০১৫ মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাব
২০১৫- ঝাপা একাদশ
জাতীয় দল
২০১২ নেপাল (০)
* শুধুমাত্র ঘরোয়া লীগে ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে

কর্ণ লিম্বু (নেপালি: कर्ण लिम्बु) নেপাল এর একজন ফুটবল খেলোয়াড়। তিনি মুলত একজন আক্রমণভাগের খেলোয়াড়। তিনি বর্তমানে ঝাপা একাদশ এর হয়ে ক্লাব ফুটবলে খেলেন এবং নেপাল জাতীয় ফুটবল দল এর হয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে নেপালের হয়ে খেলেন।[২] তিনি নেপালের লীগে নিয়মিত খেলেন এবং একজন ধারাবাহিক গোলদাতা। তবুও তিনি নেপালের জাতীয় দলে খেলার সুযোগ কম পেয়েছেন।[৩] ক্যারিয়ারে তিনি ঝাপা একাদশের পাশাপাশি মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাব এর হয়ে ফুটবল খেলেছেন।

ক্লাব ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাব[সম্পাদনা]

তিনি ২০১২ সালে মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাবে যোগ দেন। দলটির হয়ে তিনি, তিন বছর নেপালের স্থানীয় লীগে খেলেন।
সংকতা বয়েজ স্পোর্টস ক্লাব এর বিপক্ষে ২০১৩-১৪ মারটায়ারস মেমোরিয়াল এ-ডিভিশন লীগের সুপার লীগ অংশের শেষ ম্যাচে গোল করে তিনি লীগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হন। তিনি লীগে ১১ গোল করেন এবং তার দল মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাব লীগে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে।[১]

ঝাপা একাদশ[সম্পাদনা]

মাছিন্দ্রা ফুটবল ক্লাবের হয়ে ৩ বছর খেলার পর, ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে আরও কয়েকজন মাছিন্দ্রা ক্লাবের সতীর্থের সাথে কর্ণ লিম্বু ঝাপা একাদশ দলে যোগ দেন। দলটি ২০১৫ নেপাল জাতীয় লীগ-এ অংশগ্রহণ করে।[৪]

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

২০১৪ সালের ২৫ মার্চ, নেপালের হয়ে লিম্বুর আন্তর্জাতিক ফুটবলে অভিষেক হয়। ইয়েমেন এর বিপক্ষে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচটিতে লিম্বু বদলি হিসেবে খেলেন। ম্যাচের ৭৫ মিনিটে অনিল গুরুং এর বদলি হিসেবে লিম্বু মাঠে নামেন। নেপাল ম্যাচটিতে ২-০ ব্যবধানে পরাজিত হয়।[৫]

কিন্তু ফিলিপাইনের বিপক্ষে পরের প্রীতি ম্যাচের দলে লিম্বুকে রাখা হয় নি।[৬] এছাড়াও আরও বিতর্কিতভাবে, ২০১৫ সালের মার্চে ভারতের বিপক্ষে ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব এর দুটি ম্যাচের জন্য নেপাল দলে লিম্বুকে অন্তর্ভুক্ত করা হয় নি। যার কারণ হিসেবে কৌশলগত ত্রুটির কথা উল্লেখ করা হয়। যদিও সেই সময়ে লিম্বু, নেপালের ঘরোয়া লীগের সেরা স্ট্রাইকার ছিলেন। [৭]

২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে নেপাল জাতীয় দলের তৎকালীন কোচ প্যাট্রিক অসেমস ঘোষণা করেন যে লিম্বু সহ আরও তিনজন খেলোয়াড়কে ২০১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ এর দল থেকে বাদ দেয়া হয়।[৮][৯]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

লিম্বুর জন্ম নেপাল এর ঝাপা জেলার ভদ্রপুর অঞ্চলে। তিনি তার পরিবারে চার ভাইয়ের মাঝে সর্বকনিষ্ঠ। তার স্ত্রী এর নাম বাল কুমার। কর্ণ লিম্বুর সাথে তার স্ত্রী এর পরিচয় হয় স্থানীয় একটি টুর্নামেন্টের পর। কর্ণ লিম্বুর দুটি কন্যাসন্তান রয়েছে।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Karna Limbu: Putting his best foot forward"দ্যা উইক ব্যুরো। my República। ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৪। ১৩ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৫ 
  2. "Karna Limbu Scores A Brace As Jhapa XI Beat FWFC To Move Atop -Goalnepal.com"গোল নেপাল। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  3. Ram Gurung। "Analysis: Karna Limbu deserves place in National team squad"Nepali Football.com। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৫ 
  4. "BREAKING NEWS: Jhapa XI Signs Karna Limbu, Bishal Rai A & Nine Other Players"গোল নেপাল। ৮ জানুয়ারি ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৫ 
  5. "Nepal vs Yemen: Live Commentary"গোল নেপাল। ২৫ মার্চ ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৫ 
  6. "Nepal vs Philippines: Karna Limbu Excluded From The Team"গোল নেপাল। ৮ এপ্রিল ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৪ 
  7. "Axed Striker Karna Limbu: I Was Told I Wasn't Technical Enough To Be In National Team Squad"গোল নেপাল। ৬ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৫ 
  8. "Breaking News: Four Player Axed From Nepal National Team"গোল নেপাল। ১৩ ডিসেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  9. "GoalNepal Vox Pop: Nepalese Fans React To Karna's Exclusion From National Team"গোল নেপাল। ৬ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৫