কমলেশ্বর ভট্টাচার্য্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কমলেশ্বর ভট্টাচার্য্য
জন্ম(১৯২৮-০৮-২৯)২৯ আগস্ট ১৯২৮
মৃত্যুমার্চ ১৬, ২০১৪(2014-03-16) (বয়স ৮৫)[১]
জাতীয়তাব্রিটিশ ভারতীয় (১৯২৯-১৯৪৭)
ভারতীয় (১৯৪৭-২০১৪)
জাতিসত্তাবাঙালি
পেশাঅধ্যাপক, গবেষক

কমলেশ্বর ভট্টাচার্য্য (২৯শে আগস্ট ১৯২৮ - ১৬ই মার্চ ২০১৪) একজন বাঙালি ভারতবিদ ও সংস্কৃত ভাষাবিদ ছিলেন।

প্রথম জীবন[সম্পাদনা]

কমলেশ্বর ভট্টাচার্য্য ১৯২৮ খ্রিস্টাব্দের ২৯শে আগস্ট ব্রিটিশ ভারতের ঢাকা শহরের উত্তরে একটি ছোট গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৪৭ খ্রিস্টাব্দে ভারত স্বাধীনতা লাভ করলে কমলেশ্বরের পরিবার পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার উত্তরপাড়া শহরে চলে আসেন। ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাচীন ভারতীয় ইতিহাস বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম হয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। এরপর তিনি বারাণসী থেকে সংস্কৃত নিয়ে পড়াশোনা করেন। ১৯৫৫ খ্রিস্টাব্দে তিনি ছাত্রবৃত্তি নিয়ে গবেষণার জন্য ফ্রান্সের প্যারিস শহরে যান।[২] ১৯৬০ খ্রিস্টাব্দে তিনি সেন্ত্রে ন্যাশনাল দে লা রিসার্চে সায়েন্টিফিক প্রতিষ্ঠানে গবেষক হিসেবে যোগ দেন।

কম্বোডিয়ার ওপর গবেষণা[সম্পাদনা]

১৯৬১ খ্রিস্টাব্দে কম্বোডিয়ার বিভিন্ন শিলালিপি ও মূর্তি বিশ্লেষণ করে সেই অঞ্চলে ব্রাহ্মণ্য ধর্মের ইতিহাস নিয়ে তিনি ফরাসি ভাষায় লেস রিলিজিওন্স ব্রাহ্মণিকোয়েস দান্স ল'আন্সিয়েন কম্বোজ, দ'আপ্রেস ল'এপিগ্রাফি এত ল'আইকনোগ্রাফি (ফরাসি: Les religions brahmaniques dans l'ancien Cambodge, d'après l'épigraphie et l'iconographie) নামক একটি গবেষণামূলক প্রামাণ্য গ্রন্থ রচনা করেন। এছাড়া তিনি কম্বোডিয়ায় প্রাপ্ত সংস্কৃত লিপির ওপর লেস রিসার্সেস সুর লে বোকাবুলায়ের দেস ইন্সক্রিপসন্স দু কম্বোজ (ফরাসি: Les recherches sur le vocabulaire des inscriptions sanskrites du Cambodge) নামক প্রামাণ্যগ্রন্থ রচনা করেন। তিনি অগস্টে বার্থ, অ্যাবেল বার্গেইন, লুই ফিনোত, জর্জ সেডেস ইত্যাদি ফরাসি সংস্কৃত ভাষাবিদ ও গবেষকদের কৃত কম্বোডিয়ায় প্রাপ্ত সংস্কৃত শিলালালিপিগুলির অনুবাদগুলিকে সংশোধন করেন। ১৯৬২ খ্রিস্টাব্দে তিনি ফ্রান্স থেকে সাহিত্যে ডক্টরেট ডিগ্রী লাভ করেন।

ভারতীয় দর্শনের ওপর গবেষণা[সম্পাদনা]

কমলেশ্বর ভট্টাচার্য্য ভারতীয় দর্শন সম্বন্ধে গবেষণার জন্য ফরাসী ভারতবিদ লুই রেনো দ্বারা বহুলাংশে প্রভাবিত ছিলেন। পালি ভাষায় রচিত তিপিটক ও অন্যান্য সংস্কৃত গ্রন্থ থকে বিস্তর গবেষণা করে তিনি ১৯৭৩ খ্রিস্টাব্দে ল'আত্মন-ব্রাহ্মণ দান্স লে বৌদ্ধিজমে আন্সিয়েন (ফরাসি: L'Ātman-Brahman dans le bouddhisme ancien) নামক একটি গ্রন্থ রচনা করেন।[৩] এরপর তিনি মধ্যমক দর্শনের মতো আধুনিক বৌদ্ধ দর্শনের দিকে নজর দেন। নাগার্জুন রচিত ও পরবর্তীকালে রাহুল সাংকৃত্যায়ন দ্বারা আবিষ্কৃত বিগ্রহব্যবর্তনী নামক গ্রন্থটিকে তিনি ১৯৮৯ খ্রিস্টাব্দে সংস্কৃত থেকে ইংরেজি ভাষায় অনুবাদ করেন।[৪]

জীবনের শেষ চল্লিশ বছর তিন ভারতীয় দর্শন, তর্কশাস্ত্র ও কাব্যশাস্ত্র নিয়ে ব্যাপক গবেষণা চালান। তিনি নব্য-ন্যায়ের ওপর লে সিদ্ধান্ত লক্ষণ প্রকরণ দু তত্ত্বচিন্তামণি দে গঙ্গেসা, আভেক লা দীধিতি দে রঘুনাথ শিরোমণি এত লা টীকা দে জগদীশ তর্কালঙ্কার (ফরাসি: Le Siddhānta lakṣaṇa prakaraṇa du Tattvacintāmaṇi de Gangeśa, avec la Dīdhiti de Raghunātha Śiromaṇi et la Țikā de Jagadīśa Tarkālamkāra.) নামক গ্রন্থটি রচনা করেন। এছাড়া তিনি যজ্ঞপতি উপাধ্যায়ের তত্ত্বচিন্তামণিপ্রভা সম্পাদনা করে প্রকাশ করেন। এই সমস্ত গ্রন্থে তিনি ভারতের দার্শনিক চিন্তাধারার সঙ্গে ব্যাকরণ বিজ্ঞানের গভীর যোগসূত্রের ওপর জোর দেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৭৮ খ্রিস্টাব্দে কোলেজ দ্য ফ্রঁসের সংস্কৃত চেয়ার থেকে জঁ ফিলিওজা অবসর গ্রহণ করার পর সর্বসম্মতিক্রমে কমলেশ্বর এই পদের জন্য নির্বাচিত হন, কিন্তু সেই বছরেই প্রশাসনিক সিদ্ধান্তে পদটি বিলুপ্ত করা হয়।[২] সেন্ত্রে ন্যাশনাল দে লা রিসার্চে সায়েন্টিফিক প্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ ছত্রিশ বছর গবেষণা করার পর তিনি ১৯৯৬ খ্রিস্টাব্দের সেপ্টেম্বর মাসে প্রথম শ্রেণী গবেষণা অধিকর্তা হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন। ১৯৬৭ থেকে ১৯৬৯ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে তিনি ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়, ১৯৭৭ থেকে ১৯৭৯ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে টরন্টো বিশ্ববিদ্যালয় এবং ১৯৮০ খ্রিস্টাব্দে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। অবসর গ্রহনের পর তিনি জার্মানির বোন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক হসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৬ খ্রিস্টাব্দে এশিয়াটিক সোসাইটি তাঁকে তাঁর উচ্চমানের গবেষণার জন্য স্বর্ণপদক প্রদান করে। ২০০৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে সেন্টার ফর খমের স্টাডিজ নামক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের বোর্ড সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।

রচিত গ্রন্থাবলী[সম্পাদনা]

  • Les Religions brahmaniques dans l'ancien Cambodge, d'après l'épigraphie et l'iconographie.
  • Rabindranath Tagore: Le Vagabond et autres histoires.
  • L'Ātman-Brahman dans le Bouddhisme ancien.
  • The Dialectical Method of Nāgārjuna (Vigrahavyāvartānī).
  • Recherches sur le vocabulaire des inscriptions sanskrites du Cambodge.
  • Le Siddhānta lakṣaṇa prakaraṇa du Tattvacintāmaṇi de Gangeśa, avec la Dīdhiti de Raghunātha Śiromaṇi et la Țikā de Jagadīśa Tarkālamkāra.
  • Some thoughts on Early Buddhism with special reference to its Relation to the Upaniṣads. Acharya Dharmananda Kosambi Memorial Lectures at the Bhandarkar Oriental Research Institue, Poona, 1997. Published 1998: Post-graduate and Research Department Series N° 41.
  • A Selection of Sanskrit Inscriptions from Cambodia
  • Edition of Yajñapati Upādhāya's Tattvacintāmaṇiprabhā (Anumānakhaṇḍa)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "শোক"কালের কন্ঠ। ২৪ মার্চ ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৩ আগস্ট ২০১৫ 
  2. ভদ্র, গৌতম (১৩ আগস্ট ২০১৫)। "বাঙালি পণ্ডিত বিদায় নিয়েছেন, কী এসে গেল"আনন্দবাজার পত্রিকা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ আগস্ট ২০১৫ 
  3. Kamaleswar Bhattacharya (১৯৭৩)। L'ātman-brahman dans le bouddhisme ancien। École française d'Extrême-Orient। পৃষ্ঠা 183। 
  4. The Dialectical Method of Nāgārjuna (Vigrahavyāvartānī). Delhi: Motilal Banarsidass, 1978