ওয়েবক্যাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
বৈশিষ্টসূচক কম খরচে ওয়েবক্যাম যা ব্যক্তিগত কম্পিউটারের সাথে ব্যবহৃত করা হয়।

ওয়েবক্যাম হলো বিশেষ ধরণের ভিডিও ক্যামেরা যা একটি কম্পিউটারের সাথে ইউএসবির মাধ্যমে যুক্ত হয়ে ইন্টারনেটে ভিডিও আদান-প্রদান করতে পারে। ১৯৯১ সালে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় এ ওয়েবক্যাম আবিষ্কার হয়। একুশ শতক থেকে ল্যাপটপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো ল্যাপটপেই ওয়েবক্যাম যুক্ত করা শুরু করেছে।

industrial CT scanning
A webcam installed near Sumburgh Head lighthouse, (shetland). The cliffs are home to large numbers of seabirds and the area is an RSPB nature reserve.

প্রযুক্তি[সম্পাদনা]

ওয়েবক্যামে সাধারণত একটি লেন্স (উপরে), ইমেজ সেন্সর (নিচে), এবং সমর্থনকারী সার্কিট।

ওয়েবক্যামে লেন্স, ইমেজ সেন্সর ও মাইক্রোফোন থাকে। ওয়েবক্যামে সাধারণত চার্জ কাপল্‌ড ডিভাইস বা কপ্লিমেন্টারি মেটাল-অক্সাইড-সেমিকন্ডাক্টর সেন্সর ব্যবহার করা হয়, তবে সস্তা হওয়ার কারণে কপ্লিমেন্টারি মেটাল-অক্সাইড-সেমিকন্ডাক্টর অধিক ব্যবহার করা হয়।

ওয়েবক্যাম বা ওয়েব ক্যামেরা হচ্ছে এক ধরণের ভিডিও ক্যামেরা, যা বাস্তব সময়ের ভিডিও ধারণ করে এবং একটি কম্পিউটার নেটওয়ার্কের মাধ্যমে তা কোনো মনিটরে প্রদর্শন করে৷ বাস্তব সময়ের ভিডিও চিত্র ধারণের পর তা ব্যবহারকারী নিজে দেখতে পারে অথবা ইমেইল ইত্যাদির মাধ্যমে অন্য কোথাও প্রেরণ করতে পারে৷ আই পি ক্যামেরা(যা সাধারণত ইথারনেট বা ওয়াই-ফাই এর মাধ্যমে সংযুক্ত হয়), যেভাবে মূল সিস্টেমের সাথে সংযু্ক্ত হয়ে থাকে, ওয়েবক্যাম সেভাবে যুক্ত না হয়ে সাধারণত ইউএসবি ক্যাবলের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে থাকে৷

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

ওয়েবক্যাম সাধারণত এর কম মূল্য কিন্তু ব্যবহারের ক্ষেত্রে অধিক সুবিধার জন্য সুপরিচিত৷[১] দূর হতে ভিডিও কথোপকথনের ক্ষেত্রে ওয়েবক্যাম যেমন বিভিন্ন সুবিধা প্রদান করে থাকে, তেমনি এর বাণিজ্যিক মূল্যও কম৷[২][৩]

ব্যবহার[সম্পাদনা]

ওয়েবক্যাম এর সর্বাধিক ব্যবহার হচ্ছে ওয়েব লিঙ্ক তৈরির মাধ্যমে একটি কম্পিউটার বা ডিভাইসকে অপর একটি কম্পিউটার বা ডিভাইসের সাথে সংযুক্ত করে ভিডিও কথোপকথনের সুবিধা প্রদান৷ এক্ষেত্রে কম্পিউটার বা ডিভাইসটি একটি ভিডিও ফোন অথবা ভিডিও কনফারেন্স স্টেশন হিসাবে কাজ করে৷ এছাড়া ওয়েবক্যাম নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষন, কম্পিউটার ভিশন, স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে, নিরাপত্তা ক্ষেত্রে, ভিডিও সম্প্রচার এবং সামাজিক ভিডিও রেকর্ড করা ইত্যাদি কাজেও ব্যবহৃত হয়ে থাকে৷[৪]

বিভিন্ন ধরণের কাজে বিভিন্ন রকমের সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে ওয়েবক্যামকে বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে৷

ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রথম উন্নতকরণের কাজ করা হয় ১৯৯১ সালে, ক্যমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগে৷[৫] ১৯৯৪ সালে প্রথম সাদা কালো ওয়েবক্যাম বাণিজ্যিকভাবে বাজারে আসে৷ এটি বাজারজাত করে আমেরিকার একটি কোম্পানি কানেকটিক্স৷ ১৯৯৪ সালের আগস্ট মাসে প্রথম অ্যাপল ম্যাকিনটোশ এর কুইকক্যাম বাজারে আসে৷ এ ওয়েবক্যামগুলোর দাম ছিলো ১০০ ডলার করে৷ ১৯৯৫ সালের অক্টোবরে পার্সোন্যাল কম্পিউটার এ ওয়েবক্যাম ব্যবহারের জন্য মাইক্রোসফট উইন্ডোজ সিরিয়াল পোর্ট ও সফ্টওয়্যার বাজারে নিয়ে আসে৷

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Handbook of Distance Learning for Real-Time and Asynchronous Information Technology Education"। Editors: Solomon Negash, Michael E. Whitman, Amy B. Woszczynski, Ken Hoganson, Herbert Mattord.। 
  2. "How Much Resolution is Enough? Picking a Webcam"। ebay। 
  3. "Five Best Webcams"। lifehacker। 
  4. "Augmented Reality Lets You Try On Clothes from Online Shops"। TIME। 
  5. "Coffee Cam"। University of Cambridge।