এ. মেরিট'স ফ্যান্টাসি ম্যাগাজিন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এ. মেরিট'স ফ্যান্টাসি ম্যাগাজিন-এর ডিসেম্বর, ১৯৪৯ সংখ্যা; প্রচ্ছদশিল্পী পিটার স্টিভেন্স

এ. মেরিট'স ফ্যান্টাসি ম্যাগাজিন (ইংরেজি: A. Merritt's Fantasy Magazine) ছিল ডিসেম্বর, ১৯৪৯ থেকে অক্টোবর, ১৯৫০ সাল পর্যন্ত প্রকাশিত একটি পাল্প ম্যাগাজিন। ১৯৪৩ সালে প্রয়াত খ্যাতনামা লেখক এ. মেরিটের নামাঙ্কিত এ ম্যাগাজিনের মোট ৫টি সংখ্যা প্রকাশিত হয়েছিল। পপুলার পাবলিকেশন্স প্রকাশিত এ ম্যাগাজিন একই প্রকাশনা সংস্থা থেকে প্রকাশিত ফ্যান্টাস্টিক নোভেলস ম্যাগাজিনের পাশাপাশি প্রকাশিত হয়, সম্ভবত এ ম্যাগাজিনের সম্পাদক ছিলেন ম্যারি ন্যাডিঙ্গার, যিনি ফ্যান্টাস্টিক নোভেলস এবং ফেমাস ফ্যান্টাস্টিক মিস্ট্রিস ম্যাগাজিনেরও সম্পাদক ছিলেন। ফেমাস ফ্যান্টাস্টিক মিস্ট্রিস ম্যাগাজিনের সঙ্গী হিসেবে বিবেচিত এ ম্যাগাজিনটিও ঐ ম্যাগাজিনের মতই এ সময়ের বহুল পুনঃপ্রকাশিত এবং জনপ্রিয় বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি বিষয়ক ম্যাগাজিন হয়ে ওঠে।

প্রকাশনা[সম্পাদনা]

জানুয়ারি ফেব্রুয়ারি মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টেম্বর অক্টোবর নভেম্বর ডিসেম্বর
১৯৪৯ 1/1
১৯৫০ ১/২ ১/৩ ১/৪ ২/১
১৯৪৯ সাল থেকে ১৯৫০ সাল পর্যন্ত প্রকাশিত এ. মেরিট'স ফ্যান্টাসি ম্যাগাজিন-এর সংখ্যাসমূহ। এখানে ভলিউম এবং
সংখ্যাসমূহ প্রদর্শিত হচ্ছে। ম্যাগাজিনের সম্পাদক সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি, তবে ম্যারি ন্যাডিঙ্গার হতে পারেন।

১৯৪২ সালে পপুলার পাবলিকেশন্স ফেমাস ফ্যান্টাস্টিক মিস্ট্রিস এবং ফ্যান্টাস্টিক নোভেলস্ পাল্প ম্যাগাজিনদ্বয়ের উভয়েই আগের মুসি কোম্পানির ফ্যান্টাসি সম্পর্কিত লেখাগুলোকে পুনঃপ্রকাশ করত। এপ্রিল, ১৯৪১ সালে ফ্যান্টাস্টিক নোভেলসকে বাজেয়াপ্ত করা হয়, কিন্তু ১৯৪৮ সালের প্রথম দিক থেকে আবারও ফেমাস ফ্যান্টাস্টিক মিস্ট্রিসের সাথেই এ ম্যাগাজিনটি প্রকাশিত হতে থাকে।[১][২] এর পরের বছর পপুলার তাদের এ ধারায় আবারও একটি ফ্যান্টাসি পুনঃপ্রকাশিত ম্যাগাজিন সংযোজন করার সিদ্ধান্ত নেয়। এ. মেরিট'স ফ্যান্টাসি ম্যাগাজিন নামের এ ম্যাগাজিনটি ডিসেম্বর, ১৯৪৯ সালে প্রকাশিত হয়।[৩] আব্রাহাম মেরিট (সাধারণভাবে এ. মেরিট হিসেবে পরিচিত), যার নামানুসারে ম্যগাজিনটি প্রকাশিত হয়, ছিলেন পাল্প যুগের অন্যতম সেরা ফ্যান্টাসি লেখক।[৪] ম্যাগাজিনটি তাঁর এ বিপুল জনপ্রিয়তার সুযোগ নিতে চায়,[৩] তবে মাত্র এক বছর জুড়ে এ ম্যাগাজিনের ৫টি সংখ্যা প্রকাশিত হয় এবং পরবর্তীতে ম্যগাজিনের প্রকাশনা বাতিল করা হয়।[৩]

প্রথম সংখ্যায় প্রকাশিত মেরিটের উপন্যাস "ক্রিপ, শ্যাডো!" ছাড়াও ম্যাগাজিনে বেশকিছু জনপ্রিয় গল্প প্রকাশিত হয়েছিল। তন্মধ্যে জর্জ চালিস ছদ্মনামে ফ্রেডরিক ফ্রস্টের "দ্য স্মোকিং ল্যান্ড" এবং জ্যাক ম্যানের "দ্য নাইন্থ লাইফ" উল্লেখযোগ্য। ম্যাগাজিনের উদ্দেশ্যে তরুণ রবার্ট সিলভারবার্গের লেখা একটি চিঠি এ ম্যাগাজিনের চিঠিপত্র বিভাগে প্রকাশিত হয়।[৩]

ম্যাগাজিনটি কেন সাফল্য অর্জন করতে পারল না, এ বিষয়ে নানা মতামত আছে। সম্পাদক এবং বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনিবিষয়ক ঐতিহাসিক ম্যালকম এডওয়ার্ডস বলেন যে ছয় বছর পূর্বে অর্থাৎ ১৯৪৩ সালে মেরিটের মৃত্যু ম্যাগাজিনটিকে একটি বিপদজনক অবস্থায় স্থাপন করে, যদিও মেরিটের জনপ্রিয়তা ১৯৪০ দশকের শেষদিকেও বহাল ছিল। বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনিবিষয়ক ঐতিহাসিক এবং সমালোচক স্যাম মস্কোউইৎজের মতে, ম্যাগাজিনটি এর জীবদ্দশায় মাত্র ৩টি সংখ্যাতেই মেরিটের লেখা ছাপায়, যার ফলে শুধুমাত্র মেরিটের জনপ্রিয়তার নাম কুড়িয়ে ম্যাগাজিনটি বেশিদূর যেতে পারেনি। সম্ভবত কপিরাইটজনিত কারণে মেরিটের সকল লেখাগুলোকে এ ম্যাগাজিনে প্রকাশ করা সম্ভব ছিল না।[৩]

গ্রন্থাবলীর বিবরণ[সম্পাদনা]

ম্যাগাজিনে কখনই সম্পাদকের নাম উল্লেখিত হয়নি। মেরি ন্যাডিঙ্গার এর পাশাপাশি ফ্যান্টাস্টিক নোভেলস এবং ফেমাস ফ্যান্টাস্টিক মিস্ট্রিস ম্যাগাজিনেরও সম্পাদক ছিলেন। তবে স্যাম মস্কোউইৎজ বলেন, যে সম্ভবত নেডিঙ্গার এ ম্যাগাজিনের সম্পাদক ছিলেন না। ম্যাগাজিনটি এর স্ব্ল্পদৈর্ঘ্যের জীবনের পুরোটা সময়েই পাল্প ধরনে প্রকাশিত হত। এর মোট পৃষ্ঠাসংখ্যা ছিল ১৩২ এবং প্রতিটির মূল্য ছিল ২৫ সেন্ট। প্রতিটি সংখ্যারই কানাডীয় সংস্করণ প্রকাশিত হয়েছিল; এগুলোর সবকটিই মূল সংখ্যার অনুরূপ ছিল, কেবলমাত্র পিছনের কাভারের বিজ্ঞাপন আর ভিন্ন ছিল; আর ম্যাগাজিনের আকার মূল আকারের চেয়ে এক ইঞ্চি দীর্ঘ ছিল।[৩]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. Clareson (1985a), p. 216.
  2. Clareson (1985b), p. 244.
  3. Sanders (1985), pp. 3–6.
  4. Stableford (1993), p. 639.

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]