এ. কে. এম. মোশাররফ হোসেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এ. কে. এম. মোশাররফ হোসেন
এ. কে. এম. মোশাররফ হোসেন.jpeg
জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
অক্টোবর ২০০১ – জুন ২০০৫
প্রধানমন্ত্রীখালেদা জিয়া
ময়মনসিংহ-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
জুন ১৯৯৬ – ২০০৬
পূর্বসূরীআবু রেজা ফজলুল হক বাবলু
উত্তরসূরীকে এম খালিদ বাবু
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মআনু. ১৯৩৭
কান্দিগাঁও, মুক্তাগাছা, ময়মনসিংহ
মৃত্যু১৭ অক্টোবর ২০২০(2020-10-17) (বয়স ৮২–৮৩)
ঢাকা
মৃত্যুর কারণকোভিড-১৯
জাতীয়তাবাংলাদেশী
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল
দাম্পত্য সঙ্গীজিনাত মোশাররফ
সন্তানদুই ছেলে

এ. কে. এম. মোশাররফ হোসেন (আনু. ১৯৩৭–২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০) একজন বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ ও সংসদ সদস্য ছিলেন। তিনি ২০০১ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ সরকারের জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ছিলেন।[১]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

মোশাররফ হোসেন আনু. ১৯৩৭ সালে ময়মনসিংহ জেলার মুক্তাগাছার কান্দিগাঁওয়ে জন্মগ্রহণ করেন।

রাজনীতি[সম্পাদনা]

মোশাররফ হোসেন জেনারেল হুসেন মুহাম্মদ এরশাদের সামরিক শাসনামলে আমলাতান্ত্রিক দায়িত্ব পালন করেছিলেন।[২] তিনি ১৯৯৬ এবং ২০০১ সালে ময়মনসিংহ-৫ থেকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের প্রার্থী হিসাবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।[৩] তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের দ্বিতীয় খালেদা মন্ত্রিসভায় জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।[৪][৫] তিনি অক্টোবর ২০০১ থেকে জুন ২০০৫ পর্যন্ত প্রতিমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। নাইকো রিসোর্স দুর্নীতির অভিযোগে তিনি ২১ মে ২০০৬ সালে মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগ করেন। তিনি ২০০৮ সালের বাংলাদেশ সাধারণ নির্বাচনে ময়মনসিংহ-৫ আসনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল থেকে মনোনীত হয়েছিলেন।

রাজনীতিতে জড়িত হওয়ার পূর্বে তিনি শিল্পসচিব ও বিসিআইসির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি দৈনিক দিনকালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন।[৬][৭]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

এ কে এম মোশাররফ হোসেন জিনাত মোশাররফের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। জিনাত জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচিত প্রাক্তন জাতীয় সংসদ সদস্য। তাদের দুই পুত্র সন্তান রয়েছে।[৮]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

২০২০ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর মোশাররফের কোভিড-১৯ ধরা পড়লে তাকে ঢাকার ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১৭ অষ্টোবর রাতে তিনি সেখানেই মৃত্যু বরণ করেন।[৮] তাকে মুক্তাগাছা উপজেলার কান্দিগাঁও গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. নিজস্ব সংবাদদাতা (১৭ অক্টোবর ২০২০)। "সাবেক প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ আর নেই"এনটিভি। সংগ্রহের তারিখ ১৯ অক্টোবর ২০২০ 
  2. Khan, Sharier। "Dubious leaderships, graft led to gas crisis"archive.thedailystar.net। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  3. "Parliament Election Result of 1991,1996,2001 Bangladesh Election Information and Statistics"ভোট মনিটর নেটওয়ার্ক (ইংরেজি ভাষায়)। ২৮ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  4. "AKM Mosharraf asked to surrender before trial court"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ৪ নভেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  5. "AKM Mosharraf, ex-MP Milon freed on bail"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  6. অনলাইন রিপোর্ট (১৭ অক্টোবর ২০২০)। "করোনায় মারা গেলেন সাবেক জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন"দ্য ডেইলি স্টার। সংগ্রহের তারিখ ১৯ অক্টোবর ২০২০ 
  7. স্টাফ রিপোর্টার (১৮ অক্টোবর ২০২০)। "বিএনপি নেতা এ কে এম মোশাররফ হোসেনের ইন্তেকাল"দৈনিক মানবজমিন। সংগ্রহের তারিখ ১৯ অক্টোবর ২০২০ 
  8. "সাবেক প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ আর নেই"এন টিভি। ২০২০-১০-১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৮ 
  9. "চিরনিদ্রায় সাবেক প্রতিমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন"এন টিভি। ২০২০-১০-১৮। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৮