এল. কে. সিদ্দিকী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

আবুল হাসনাত লুৎফুল কবির সিদ্দিকী (১৫ এপ্রিল ১৯৩৯ - ১ আগস্ট ২০১৪) ছিলেন বাংলাদেশের একজন খ্যাতনামা রাজনীতিবিদ ও প্রকৌশলী। সাধারণ্যে তিনি এল. কে. সিদ্দিকী নামেই অধিক পরিচিত ছিলেন। তিনি বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের ৭ম ডেপুটি স্পিকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[১]

জন্ম ও পারিবারিক পরিচিতি[সম্পাদনা]

এল. কে. সিদ্দিকী ১৯৩৯ সালের ১৫ এপ্রিল চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার দক্ষিণ রহমতনগর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম আবুল মনসুর লুৎফে আহমেদ সিদ্দিকী।[২] তার স্ত্রীর নাম মাহমুদা সিদ্দিকী; তাদের তিন ছেলে ও এক মেয়ে।[৩]

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

সিদ্দিকী ১৯৫৪ সালে সীতাকুণ্ড আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে প্রথম বিভাগে মেট্রিক পাশ করেন। তিনি ১৯৬১ সালে ঢাকার আহসান উল্লাহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারি -এ স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।[২]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

তিনি দ্বিতীয়, পঞ্চম, ষষ্ঠ ও অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সীতাকুণ্ড থেকে সাংসদ নির্বাচিত হন এবং ১৯৮১-৮২ সালে বিদ্যুৎ, পানিসম্পদ উন্নয়ন ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও ২০০১ সালে পানিসম্পদমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনের পর গঠিত সংসদে ডেপুটি স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন।[৪]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

তিনি ৭৫ বছর বয়সে ২০১৪ সালের ১ আগস্ট বেলা পৌনে ১১টার দিকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় মারা যান।[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সাবেক ডেপুটি স্পিকার ও মন্ত্রী এল কে সিদ্দিকী আর নেই"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  2. "ইঞ্জিনিয়ার এল কে সিদ্দিকী"দৈনিক সুপ্রভাত। সংগ্রহের তারিখ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "বিএনপি নেতা এল কে সিদ্দিকী আর নেই"বিডিনিউজ২৪ ডটকম। সংগ্রহের তারিখ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  4. "এল কে সিদ্দিকী'র মরদেহ চট্টগ্রামে"বিডিনিউজ২৪ ডটকম। সংগ্রহের তারিখ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ 

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]