এরিথ্রোজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
এরিথ্রোজ[১]
D-erythrose.svg
ডি-এরিথ্রোজ
L-erythrose.svg
এল-এরিথ্রোজ
নামসমূহ
ইউপ্যাক নামs
(২R,৩R)-২,৩,৪-ট্রাইহাইড্রক্সিবিউটানাল (ডি)
(২S,৩S)-২,৩,৪-ট্রাইহাইড্রক্সিবিউটানাল (এল)
শনাক্তকারী
ত্রিমাত্রিক মডেল (জেমল)
সিএইচইবিআই
কেমস্পাইডার
ইসিএইচএ ইনফোকার্ড ১০০.০০৮.৬৪৩
ইসি-নম্বর
ইউএনআইআই
বৈশিষ্ট্য
C4H8O4
আণবিক ভর ১২০.১০ g·mol−১
বর্ণ হালকা হলুদ সিরাপ
অত্যন্ত দ্রবণীয়
ঝুঁকি প্রবণতা
এনএফপিএ ৭০৪
সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করা ছাড়া, পদার্থসমূহের সকল তথ্য-উপাত্তসমূহ তাদের প্রমাণ অবস্থা (২৫ °সে (৭৭ °ফা), ১০০ kPa) অনুসারে দেওয়া হয়েছে।
YesY যাচাই করুন (এটি কি YesYN ?)
তথ্যছক তথ্যসূত্র

এরিথ্রোজ হল একটি টেট্রোজ স্যাকারাইড, এর রাসায়নিক সংকেত C4H8O4। এর একটি অ্যালডিহাইড মূলক রয়েছে এবং এটি আলডোজ গোত্রের অংশ। এর স্বাভাবিক আইসোমার হল ডি-এরিথ্রোজ।

ফিশার অভিক্ষেপ এরিথ্রোজের দুটি এনঅ্যান্টিমার চিত্রিত করে

ফরাসি ফার্মাসিস্ট লুই ফেউস জোসেফ গ্যারোট (১৭৯৮-১৮৬৯) রুবার্ব থেকে ১৮৪৯ সালে প্রথম এরিথ্রোজ পৃথকীকরণ করেন[২] এবং ক্ষারীয় ধাতুর উপস্থিতি (ἐρυθρός, "লাল") এর লাল রঙের কারণে এটির এই নামকরণ হয়।[৩][৪]

এরিথ্রোজ ৪-ফসফেট হচ্ছে পেন্টোজ ফসফেটের পথ[৫] এবং ক্যালভিন চক্রের মধ্যবর্তী।[৬]

অক্সিডেটিভ ব্যাকটিরিয়া এর একমাত্র শক্তির উৎস হিসাবে এরিথ্রোজ ব্যবহার করে।[৭]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Merck Index, 11th Edition, 3637
  2. Obituary of Garot (1869) Journal de pharmacie et de chimie, 4th series, 9 : 472-473.
  3. Garot (1850) "De la matière colorante rouge des rhubarbes exotiques et indigènes et de son application (comme matière colorante) aux arts et à la pharmacie" (On the red coloring material of exotic and indigenous rhubarb and on its application (as a coloring material) in the arts and in pharmacy), Journal de Pharmacie et de Chimie, 3rd series, 17 : 5-19. Erythrose is named on p. 10: "Celui que je propose, sans y attacher toutefois la moindre importance, est celui d'érythrose, du verbe grec 'ερυθραινω, rougir (1)." (The one [i.e., name] that I propose, without attaching any importance to it, is that of erythrose, from the Greek verb ερυθραινω, to redden (1).)
  4. Wells, David Ames; Cross, Charles Robert; Bliss, George; Trowbridge, John; Nichols, William Ripley; Kneeland, Samuel (১৮৫১)। Annual of Scientific Discovery। Boston: Gould, Kendall, and Lincoln। পৃষ্ঠা 211। সংগ্রহের তারিখ ১১ ডিসেম্বর ২০১৪erythrose discovery. 
  5. Kruger, Nicholas J; von Schaewen, Antje (জুন ২০০৩)। "The oxidative pentose phosphate pathway: structure and organisation"। Current Opinion in Plant Biology6 (3): 236–246। ডিওআই:10.1016/S1369-5266(03)00039-6পিএমআইডি 12753973 
  6. Schwender, Jörg; Goffman, Fernando; Ohlrogge, John B.; Shachar-Hill, Yair (৯ ডিসেম্বর ২০০৪)। "Rubisco without the Calvin cycle improves the carbon efficiency of developing green seeds"। Nature432 (7018): 779–782। ডিওআই:10.1038/nature03145পিএমআইডি 15592419 
  7. Hiatt, Howard H; Horecker, B L (১৩ অক্টোবর ১৯৫৫)। "D-erythrose metabolism in a strain of Alcaligenes faecalis"Journal of Bacteriology71 (6): 649–654। সংগ্রহের তারিখ ১১ ডিসেম্বর ২০১৪