উপনিবেশক মানসিকতা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

উপনিবেশক মানসিকতা বলতে উপনিবেশস্থাপনকারীর প্রভুত্বকামী মানসিকতা বোঝায়, যার ফলে উপনিবেশক উপনিবেশিতকে নিজের চেয়ে অনুন্নত ভাবে এবং উপনিবেশিতকে শাসনের অধিকার রাখে বলে মনে করে।[১][২] একে অনেকে ঔপনিবেশিক মানসিকতাও বলে থাকে।[১] বিউপনিবেশায়ন সম্পূর্ণ না হওয়ায় এখনও ব্রিটিশদের রেখে যাওয়া রাষ্ট্রকাঠামোর উপর চলছে বাংলাদেশ নামক উত্তরউপনিবেশী রাষ্ট্র।[৩][৪] উপনিবেশক মানসিকতা থেকেই পাকিস্তানি শাসকরা ব্রিটিশদের মতো এদেশের মানুষদের উপনিবেশকদের দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখত।[৪]

উপনিবেশক মানসিকতার কারণে বাংলাদেশে প্রশাসনিক কর্মকতারা জনসাধারণের কাছ থেকে 'স্যার' সম্বোধন দাবি করে, লিখেছেন আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন[১] ঔপনিবেশিক রাষ্ট্রকাঠামো প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের "পাবলিক সার্ভেন্টের পরিবর্তে ‘লর্ড অব পাবলিক’" বানিয়ে ফেলে।[১] হাসানুল হক ইনুও বাংলাদেশের আমলাদের মানসিকতাকে উপনিবেশক মানসিকতা বলেছেন।[৫] জনগণের ভোটে নির্বাচিত অনেক জনপ্রতিনিধিকেও নিয়োগকর্তা জনগণ 'স্যার' না বললে বিরক্ত হতে দেখা যায়।[১] ২০১০ সালে বিসিএস ক্যাডারদের উদ্দেশে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ঔপনিবেশিক মানসিকতা থেকে বেরিয়ে এসে জনগণের কল্যাণে কাজ করতে হবে।[৬] ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের কার্যালয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে হাসিনা ঔপনিবেশিক মানসিকতা ত্যাগের আহ্বান জানিয়ে লাল দালান আর নয় বলে এগুলো ভেঙে ফেলে নতুন ভবন নির্মাণের ওপর গুরুত্বারোপ করেছিলেন।[৪] ২০১৮ সালের জেলা প্রশাসক সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের উপনিবেশক মানসিকতা বর্জন করতে আহ্বান জানিয়েছিলেন।[৭][৮][৯] উপনিবেশক মানসিকতার বিপরীত মানসিকতা হল উপনিবেশী মানসিকতা। উপনিবেশী মানসিকতার ফলে উপনিবেশিত ব্যক্তি উপনিবেশকের উপনিবেশায়ন মেনে নেয় এবং প্রতিবাদ করে না।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "প্রজাতন্ত্র ও ঔপনিবেশিক মানসিকতা"কালের কণ্ঠ। ২০১৮-০১-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-০২ 
  2. "খালেদা জিয়াকে আটকে রাখা ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক মানসিকতা: বি চৌধুরী"Bangla Tribune। ২০১৯-০২-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-০২ 
  3. রিবেরু, বিধান (২০১৭)। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র। কলকাতা: আত্মজা পাবলিশার্স। পৃষ্ঠা ১২৮। 
  4. "উপনিবেশ নেই, মানসিকতা আছে"www.jugantor.com। ২০১৯-০২-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-০২ 
  5. "আমলাতান্ত্রিক মানসিকতা গণতন্ত্রের বাধা: ইনু"প্রথম আলো। ২০১৯-০২-০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-০২ 
  6. "সরকারি কর্মকর্তাদের প্রধানমন্ত্রী: ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দের ঊর্ধ্বে উঠে জনগণের জন্য কাজ করুন"archive.prothom-alo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-০২ 
  7. "ঔপনিবেশিক মানসিকতা থেকে বেরিয়ে এসে দেশপ্রেম ও নিষ্ঠার সাথে জনগণের সেবা করুন- প্রধানমন্ত্রী (ইনকিলাব)"প্রিয়.কম (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৯-০২-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-০২ 
  8. "জেলা প্রশাসকদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ২৩ নির্দেশনা"Jugantor। ২০১৯-০২-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-০২ 
  9. "ডিসিদের ঔপনিবেশিক মানসিকতা পরিহারের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর"Jugantor। ২০১৯-০২-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-০২