উট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
উট
A one-humped camel
ড্রোমেডারি উট, Camelus dromedarius
Bactrian Camel b d.jpg
ব্যাকট্রিয়ান উট, Camelus bactrianus
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Animalia
পর্ব: Chordata
শ্রেণী: Mammalia
বর্গ: Artiodactyla
পরিবার: Camelidae
গোত্র: Camelini
গণ: Camelus
ক্যারোলাস লিনিয়াস, ১৭৫৮
Species

Camelus bactrianus
Camelus dromedarius
Camelus gigas (জীবাশ্ম)[১]
Camelus hesternus (জীবাশ্ম)[২]
Camelus sivalensis জীবাশ্ম)[৩]
Camelus moreli (জীবাশ্ম)

Dromedary Range.png
ড্রোমেডারি উটের ব্যাপ্তি

উট বা উষ্ট্র কুঁজ-বিশিষ্ট একটি চতুষ্পদ প্রাণি।

উটের পূর্বপুরুষেরা সম্ভবতঃ উত্তর আমেরিকায় আবির্ভূত হয়। পরে একভাগ বেরিং প্রণালী পার হয়ে এশিয়া ও উত্তর আফ্রিকায় চলে যায়, যাদের উত্তরসূরী হল ড্রোমেডারী ও ব্যাক্ট্রীয়ান উট। মরুভূমিতে বহুযুগ বাস করার ফলে আজ উট মরূভূমির জাহাজ হয়ে সহিষ্ণুতার প্রতীক। অন্য একভাগ চলে যায় দক্ষিণ আমেরিকায় যাদের উত্তরসূরী লামা(llama) ও ভিকুন্যা (Vicugna)। আলপাকা সম্ভবতঃ ভিকুন্যার গৃহপালিত বংশধর।

উটের পায়েও গরুর মত চেরা খুর। কিন্তু উটের পায়ের তলায় নরম প্যাড আছে যা গরুর নেই। গরুর মত উটও রোমন্থন করে বা জাবর কাটে। কিন্তু সাধারণ রোমন্থনকারীদের মতো চার কক্ষ-বিশিষ্ট পাকস্থলি বদলে উটের পাকস্থলি তিন কক্ষ-বিশিষ্ট। তাই অনেকে এদের ছদ্ম রোমন্থক বলেন।

ড্রোমেডারী উটের একটা কুঁজ থাকে আর ব্যাকট্রীয়ান উটের থাকে দুটো। যখন উট ভালোকরে খেতে পায় তখন এর কুঁজ চর্বিতে ভর্তি হয়ে শক্ত টানটান অবস্থায় থাকে। যখন উট অভুক্ত অবস্থায় অনেকদিন থাকে তখন চর্বির অনেকটাই শক্তি উৎপাদনে ক্ষয় হয়ে যায় আর এর কুঁজ নরম থলথলে হয়ে যায়।

মরুভূমিবাসী মানুষরা গরু-ছাগলের বদলে উট পালন করে। উট তাদের মালপত্র বয়, গাড়ি টানে। গৃহপালিত উটের মাংস ও দুধ খাওয়া হয়। ঘোড়ার মত উটের পিঠে দৌড় ও অন্যান্য বিনোদন খুবই উপভোগ্য।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Camelus gigas"ZipcodeZoo। BayScience Foundation, Inc। সংগৃহীত ১৩ আগষ্ট, ২০১৩ 
  2. Worboys, Graeme L.; Francis, Wendy L.; Lockwood, Michael (৩০ মার্চ ২০১০)। Connectivity Conservation Management: A Global Guide। Earthscan। পৃ: ১৪২। আইএসবিএন 9781844076048 
  3. Falconer, Hugh (১৮৬৮)। Palæontological Memoirs and Notes of the Late Hugh Falconer: Fauna antiqua sivalensis। R. Hardwicke। পৃ: ২৩১।