আল-ওয়াদ মসজিদ

স্থানাঙ্ক: ৩৪°০৩′৪৫.৬″ উত্তর ৪°৫৮′৯.৭″ পশ্চিম / ৩৪.০৬২৬৬৭° উত্তর ৪.৯৬৯৩৬১° পশ্চিম / 34.062667; -4.969361
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আল-ওয়াদ মসজিদ
جامع الواد (আরবি)
ⵎⴻⵣⴳⵉⴷⴰ ⵏ ⵊⴰⵎⵄⵍⵡⴰⴷ (বার্বার)
El-oued mosque.jpg
আল-ওয়াদ মসজিদের প্রবেশপথ ও মিনার
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিসুন্নি ইসলাম (মালিকি)
অবস্থান
অবস্থানমরক্কো ফেজ, মরক্কো
আল-ওয়াদ মসজিদ মরক্কো-এ অবস্থিত
আল-ওয়াদ মসজিদ
মরক্কোতে অবস্থান
স্থানাঙ্ক৩৪°০৩′৪৫.৬″ উত্তর ৪°৫৮′৯.৭″ পশ্চিম / ৩৪.০৬২৬৬৭° উত্তর ৪.৯৬৯৩৬১° পশ্চিম / 34.062667; -4.969361
স্থাপত্য
ধরনমসজিদ
স্থাপত্য শৈলীঅ্যালৌউত, মরক্কান, ইসলামি
প্রতিষ্ঠাতাদ্বিতীয় আবু সাইদ উসমান (মাদ্রাসা)
মৌলে সুলায়মান (মসজিদ)
প্রতিষ্ঠার তারিখ১৩২৩ সাল (মাদ্রাসা)
১৭৯২ থেকে ১৮২২ সালের মাঝামাঝি (মসজিদ)
মিনার

আল-ওয়াদ মসজিদ (আরবি: جامع الواد‎, প্রতিবর্ণী. jama' al-wad, অনুবাদ 'নদীর মসজিদ'‎; বার্বার: ⵎⴻⵣⴳⵉⴷⴰ ⵏ ⵊⴰⵎⵄⵍⵡⴰⴷ) মরক্কোর ঐতিহাসিক শহর ফেজের ফেস আল-বালিতে অবস্থিত একটি মসজিদ। এটি অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষে বা উনবিংশ শতাব্দীর শুরুতে, একই নামের চতুর্দশ শতাব্দীর একটি প্রাক্তন মাদ্রাসার স্থানে নির্মিত হয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মসজিদের মিনারের দক্ষিণ পার্শ্ব

মসজিদটি প্রাক্তন আল-ওয়াদ মাদ্রাসার স্থানে অবস্থিত। ১৩২৩ সালে মেরিনিড সুলতান দ্বিতীয় আবু সাইদ উসমান মাদরাসাটি নির্মাণ করেন।[১] মাদ্রাসার নাম (নদীর মসজিদ) নির্দেশ করে এটি ওয়াদ মাসমুদা এর উপরে অবস্থিত। ওয়াদ মাসমুদা হলো ওয়াদ ফেস নদীর সাথে সংযুক্ত একটি খাল যা ঐতিহাসিকভাবে ফেস আল-বালির আন্দালুস কোয়ার্টারের বেশিরভাগ অংশে পানি সরবরাহ করেছে (কয়েক দশক আগে খালটি ভরাট করা হয়েছে)।[১][২] আস-সাহরিজআস-সাবাইন মাদ্রাসার পাশাপাশি এই মাদ্রাসাটিও নিকটবর্তী আন্দালুস মসজিদে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের বাসস্থান ও শিক্ষাদানের জন্য নির্মাণ করা হয়।[১][২][৩][৪] যদিও আন্দালুস মসজিদটি মধ্যযুগে শিক্ষাবৃত্তি ও অধ্যয়নের প্রধান কেন্দ্র ছিল, সম্ভবত পরবর্তীতে আল কারাওইন বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য মাদরাসাগুলোর গুরুত্ব কমে যায়।[২] অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষে বা উনবিংশ শতাব্দীর শুরুতে অ্যালৌউত সুলতান মৌলে সুলায়মান (যিনি ফেজে আরও বেশ কয়েকটি মসজিদ নির্মাণ করেন) মাদরাসাটি ভেঙে ফেলেন এবং সেখানে একটি নতুন মসজিদ নির্মাণ করেন যা এই জেলার অন্যতম প্রধান জামে মসজিদ[২]

স্থাপত্য[সম্পাদনা]

মসজিদটি মরক্কান স্থাপত্যশৈলী অনুসরণ করে। এর একটি বৈশিষ্ট্যপূর্ণ ও বর্গাকার মিনার আছে। মিনারের জানালাগুলোর কাঠামো তুলনামূলক কম সজ্জিত। মসজিদটিতে একটি খুবই বড় আয়তাকার প্রাঙ্গণ (শান) রয়েছে যা আংশিকভাবে ফলের গাছে পরিপূর্ণ।[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Mosquée el oued (Information plaque). Posted on a wall near the entrance of the mosque. ADER-Fes. November 2014.
  2. Le Tourneau, Roger (১৯৪৯)। Fès avant le protectorat: étude économique et sociale d'une ville de l'Occident musulman (ফরাসি ভাষায়)। Casablanca: Société marocaine de librairie et d'édition। ওসিএলসি 761131028 
  3. "Sahrij and Sbaiyin Madrassa Complex"World Monuments Fund (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-২১ 
  4. Parker, Richard B (১৯৮১)। A practical guide to Islamic monuments in Morocco। Charlottesville, VA: Baraka Press। ওসিএলসি 8627931