আরাধ্না

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আরাধ্না
জন্ম নামআরাধ্না জয়ন্তিলাল প্যাটেল
জন্ম (1983-12-20) ২০ ডিসেম্বর ১৯৮৩ (বয়স ৩৫)
উদ্ভবপরিরুয়া, ওয়েলিংটন, নিউজিল্যান্ড
ধরনআর এন্ড বি, সোল, পপ
পেশাগায়িকা, গান লেখক, রেকর্ড প্রযোজক
কার্যকাল২০০৪-বর্তমান
লেবেলডাউন রাইড এন্টারটেইনমেন্ট, রিপাব্লিক রেকর্ড
সহযোগী শিল্পীস্যাভেজ
আদেজি, চে ফু, পিটার টি, ডেভিড ডালাস, পি মানি, ইয়ং সিড

আরাধ্না জয়ন্তিলাল প্যাটেল (জন্ম ২০ ডিসেম্বর ১৯৮৩),আরাধ্না নিউ জিল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী ভারতীয় সংগীত রেকর্ডিং শিল্পী ডন রাইড এন্টারটেইনমেন্ট অধীনে স্বাক্ষরিত ছিলেন। তিনি ২০০৪ সালে একক " হিট স্ট্রংগার" গেয়েছিলেন যা নিউজিল্যান্ডের সিঙ্গেল চার্টে প্রথম স্থানে উঠেছিল।

জীবনী[সম্পাদনা]

প্রারম্ভিক বছর[সম্পাদনা]

আরাধ্না ভারতীয় বংশোদ্ভূত একজন নিউজিল্যান্ডার। [১] তার বাবা জয়ন্তী প্যাটেল ভারতের নাভাসারি, গুজরাত এর মানুষ ছিলেন ও তার মা সিয়া প্যাটেল ছিলেন একজন সামোয়ান। আরাধ্না তার পাঁচ ভাই বোনের মধ্যে বড় ছিলেন। তিনি প্রথম 11 বছর বয়সে গায়িকা হওয়ার আকাঙ্ক্ষা দেখিয়েছিলেন, সে তার মায়ের সাথে ঐতিহ্যগত সামোয়ান এবং দেশের গান করা শুরু করেন। তিনি তার বাবার সাথে যে বলিউড চলচিত্র গুলো দেখতেন তার গানগুলো গাওয়ার চেষ্টা করতেন এবং তার বাবা যে সকল অনুষ্ঠানে গান করতেন সেগুলোতেও উপস্থিত থাকতেন। [২] আরাধ্না ১১ বছর বয়সে নিজের সঙ্গীত রচনা শুরু করেন; তিনি পোরিরুয়া কলেজের স্কুলে গানের দলে যোগ দেন এবং বিদ্রোহের জন্য তাকে পরে বের করে দেওয়া হয়, কিন্তু পরে সে "লোভার" নামক পাঁচটি মেয়েকে নিয়ে দল গঠন করেছিলেন। [২]

পেশা[সম্পাদনা]

"আই লাভ ইউ" এল্বামের মাধ্যমে তার আত্মপ্রকাশ হয়, যা রিয়াঞ্জ এর শীর্ষ ২০ এর মধ্যে নির্বাচিত হয় যার মধ্যে তার একক ৫ গান "দে ডোন্ট নো" যা নিউজিল্যান্ডের হিপ হপ তারকা স্যাভেজের বিবাহে বাজানো হয় তাও অন্তর্ভুক্ত ছিল। ২০০৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার প্রযোজক, ডিজে এবং শিল্পী পল ম্যাক এর সাথে আরাধ্না "লাভ ডেক্লারেশন" নামের ক্লাব গান প্রকাশ করে। [৩] ম্যাকের "প্যানিক রুম" এলবামে এই গানটি প্রকাশ পায়। অস্ট্রেলিয়ায় স্থানীয় চার্টগুলিতে এই গানটি এককভাবে # ৩১তম হয়।

২০০৮-বর্তমান[সম্পাদনা]

তার অ্যালবাম "সুইট সোল মিউজিক", "দি জ্যাকসন ৫" কভার " আই ওয়াট ইউ ব্যাক " সহ আরো অনেক গান আইটিউনস সহ আরো অনেক জায়গায় পাওয়া যায় এবং ২০০৮ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারী তারিখে ভ্যালেন্টাইন্স ডে উপলক্ষে বিভিন্ন সঙ্গীত দোকানে গানগুলো প্রকাশিত হয়েছিল।

২০১১ সালে তিনি ডন রাইড এন্টারটেইনমেন্ট এর অধীনে তার তৃতীয় স্টুডিও অ্যালবামের কাজ শুরু করেন। তিনি২০১২সালের আগস্টে একক গান "ওয়েক আপ" প্রকাশ করেন এবং নভেম্বরে ট্রেবেল অ্যান্ড রিভারব অ্যালবামটি মুক্তি পায়।

২০১৬ সালের জুলাই মাসে "ব্রাউন গার্ল" নামে প্যাটেলের চতুর্থ স্টুডিও অ্যালবাম মুক্তি পায়। অ্যালবামটি নিউজিল্যান্ডে নৈমিত্তিক বর্ণবাদ সম্পর্কে তার নিজস্ব অভিজ্ঞতা তুলে ধরে। [১] অ্যালবামটি নিউজিল্যান্ডে প্রথম স্থানে উঠে আসে এবং সুইজারল্যান্ডের অ্যালবাম তালিকায় ও যায়গা করে নেয়। [৪] ২০১৬ সালের নভেম্বরে, তাকে দেওয়া নিউ জিল্যান্ড মিউজিক অ্যাওয়ার্ড প্রত্যাখ্যান করেন। কারন তিনি বিশ্বাস করেন যে "তাকে এই বিভাগে রাখা হয়েছে, কারণ সে বাদামী"। তিনি বলেন, "আপনি একজন গায়ককে সেরা হিপ হপ শিল্পী হিসাবে পুরস্কৃত করতে পারেন না"। [১]

ডিস্কের[সম্পাদনা]

আরাধ্না ডিস্কোগ্রাফি

স্টুডিও অ্যালবাম[সম্পাদনা]

বছর অ্যালবামের বিবরণ শীর্ষ চার্ট অবস্থান সার্টিফিকেশন
(বিক্রয় থ্রেশহোল্ড)
নিউজিল্যান্ডের
[৫]
অস্ট্রেলিয়া
[৬]
২০০৬ আমি তোমায় ভালোবাসি
  • মুক্তিপ্রাপ্ত: ৮ই মে ২০০৬
  • লেবেল: ডন রাইড বিনোদন
  • বিন্যাস: সিডি, ডিজিটাল ডাউনলোড
১৩ -
  • এনজেড : গোল্ড [৭]
২০০৮ মিষ্টি আত্মা সঙ্গীত
  • মুক্তিপ্রাপ্ত: ১৪ই ফেব্রুয়ারী ২০০৮
  • লেবেল: ডন রাইড বিনোদন
  • বিন্যাস: সিডি, ডিজিটাল ডাউনলোড
১৭ -
২০১২ Treble & Reverb
  • মুক্তিপ্রাপ্ত: ৯ নভেম্বর ২০১২
  • লেবেল: ডন রাইড বিনোদন
  • বিন্যাস: সিডি, ডিজিটাল ডাউনলোড
১৪ -
২০১৬ বাদামী মেয়ে
  • মুক্তিপ্রাপ্ত: ২২ জুলাই ২০১৬
  • লেবেল: ডন রাইড বিনোদন
  • বিন্যাস: সিডি, ডিজিটাল ডাউনলোড
[৮] ৭৩

একক[সম্পাদনা]

বছর খেতাব শীর্ষ চার্ট অবস্থান অ্যালবাম
নিউজিল্যান্ডের



</br> [৯]
২০০৬ "ডাউন সময়" আমি তোমায় ভালোবাসি
"আমিও তোমাকে ভালবাসি"
২০১২ "জাগো" ১২ ট্রেবেল এন্ড রিভাররব
"লরেনা বব্ইট" -
২০১৩ "মহান মানুষ" -
২০১৬ "ব্রাউন গার্ল" - [ক] বাদামী মেয়ে

বৈশিষ্ট্যযুক্ত একক[সম্পাদনা]

বছর খেতাব শীর্ষ চার্ট অবস্থান সার্টিফিকেশন
(বিক্রয় থ্রেশহোল্ড)
অ্যালবাম
নিউজিল্যান্ডের
[৯]
২০০৪ " শক্তিশালী হয়ে উঠছে " ( আড়ধনা সমন্বিত আড্ডা ) প্ল্যাটিনাম সর্বদা এবং বাস্তব জন্য
২০০৫ " তারা জানিনা " ( স্যাভেজ আরাধ্না সমন্বিত) স্বর্ণ চাঁদের দীপ্তি
"প্রেম ঘোষণাপত্র" ( পল ম্যাক আড়ধনা সমন্বিত) প্যানিক রুম
২০০৬ "স্পিন 1" ( চে ফু আড়ধনা সমন্বিত) ২০ হাই-স্কোর - চে ফু এর সেরা
২০০৯ "এটি টার্ন এটার" ( ডেভিড ডালাস আড়ধনা সমন্বিত) কিছু অসাধারণ
"উইথ ইউ ইন ইন মাই বিড" (আইজাক এসিলি আরাধনা এবং বফ 1 সমন্বিত) চোখের দেখুন
"সঙ্গীত ( পৃথিবীকে পৃথিবীর কাছাকাছি যেতে দেয়)" (ফ্রেস্কো আড়ধনা সমন্বিত) ১৫ অ অ্যালবাম একক
২০১০ "হ্যাঁ বলুন" ( পি-মানি ডেভিড ডালাস এবং আরাধনা সমন্বিত) সব
২০১১ "আপনার মত" (Monsta আরাধা সমন্বিত) প্রশান্ত মহাসাগরীয় হাইওয়ে

নোট[সম্পাদনা]

  1. "Brown Girl" did not enter the NZ Top 40 Singles Chart, but peaked at number 3 on the NZ Heatseekers Singles Chart.[১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "VNZMAs 2016: Aaradhna gives away her Tui after winning 'in a brown category'"Stuff.co.nz। নভেম্বর ২০১৬। 
  2. "Next Up Aaradhna"। This is Real Music। ১৯ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ আগস্ট ২০০৯ 
  3. "Aaradhna"। NZgirl। ১১ জুন ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ আগস্ট ২০০৯ 
  4. AARADHNA - BROWN GIRL (ALBUM)- Charts.org.nz
  5. "Aaradhna in New Zealand charts"Hung Medien। charts.org.nz। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মে ২০১০ 
  6. "CHART WATCH #379"। auspOp। ৩০ জুলাই ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুলাই ২০১৬ 
  7. "Latest Gold / Platinum Albums"RadioScope। ২ জুন ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুলাই ২০১০ 
  8. "NZ Top 40 Albums Chart"Recorded Music NZ। ১ আগস্ট ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৬ 
  9. Steffen Hung। "New Zealand charts portal"। charts.org.nz। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১১-২১ 
  10. "NZ Heatseekers Singles Chart"Recorded Music NZ। ১ আগস্ট ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৬ 

বাহ্যিক লিঙ্ক[সম্পাদনা]