আব্বাস আলী খান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আব্বাস আলী খান
জন্ম১৯১৪
মৃত্যু১৯৯৯
জাতীয়তাবাংলাদেশী
পেশারাজনীতি
যে জন্য পরিচিতজামায়াত-এ-ইসলামীর আমীর

আব্বাস আলী খান (১৯১৪- ১৯৯৯) ছিলেন বাংলাদেশের একজন রাজনীতিবিদ। তিনি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে বিরোধিতা করেন[১] এবং মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে পশ্চিম পাকিস্তানী শাসকদের উদ্যোগে গঠিত প্রাদেশিক সরকারের মন্ত্রীসভায় যোগ দেন।[২]

মুক্তিযুদ্ধকালীন কর্মকান্ড[সম্পাদনা]

মুক্তিযুদ্ধকালীন তিনি পাকিস্তানের পক্ষে সরাসরি অবস্থান নেন এবং বংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতা করেন। মুক্তিযুদ্ধকালীন সময় পশ্চিম পাকিস্তানী শাসকদের উদ্যোগে ১৯৭১ সালের ৩ সেপ্টেম্বার ডাঃ এ এস মালেককে গভর্নর নিয়োগ করা হয় ও তার অধীনে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে ১৭ সেপ্টেম্বার একটি প্রাদেশিক সরকার গঠন করা হয় যেখানে আব্বাস আলী খান 'শিক্ষামন্ত্রী' হিসাবে নিযুক্ত হন এবং তা গ্রহণ করেন। যুদ্ধ-অব্যাহতির পর মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ বিরোধী কর্মকান্ডের জন্য তিনি দালাল আইন, ১৯৭২-এর অধীনে দোষী-সাব্যস্ত হয়ে যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত হন।[২]

স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশের রাজনীতিতে[সম্পাদনা]

১৯৭৯ সালে ধর্মভিত্তিক রাজনীতির উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হলে জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ তাদের কর্মকান্ড শুরু করে। আব্বাস আলী খান সে সময় এর ভারপ্রাপ্ত আমীরের দায়িত্ব পালন করেন।

রচনাবলী[সম্পাদনা]

  • বাংলার মুসলমানদের ইতিহাস
  • মাওলানা মওদূদীঃ জীবন ও কর্ম।
  • একটি আদর্শবাদী দলের পতনের কারনঃ তার থেকে বাঁচার উপায়[৩]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "এদের চিনুন, মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের শক্তি ও পাকিস্তানের দোসররা যা বলেছে ও করেছে"www.genocidebangladesh.org। Bangladesh Genocide Archive। মার্চ, ২০১৫। ২১ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ ডিসেম্বর ২০১৫  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  2. "পাকিস্তানের পক্ষে ছিল জামায়াত; একাত্তরে কী কী করেছি মনে নেই : মুজাহিদ"দৈনিক সমকাল। ৫ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  3. http://www.amarboi.org/book/detail/584