আজিম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আজিম
জন্ম
নূরুল আজিম খালেদ রউফ

(১৯৩৭-০৭-২৩)২৩ জুলাই ১৯৩৭
হবিগঞ্জ, সিলেট, পূর্ব বঙ্গ
মৃত্যু২৬ মার্চ ২০০৩(2003-03-26) (বয়স ৬৫)
পেশাঅভিনেতা
কার্যকাল১৯৬০-১৯৯০-এর দশক
দাম্পত্য সঙ্গীসুজাতা (বি. ১৯৬৭; মৃ. ২০০৩)

আজিম নামে সুপরিচিত নূরুল আজিম খালেদ রউফ (২৩ জুলাই ১৯৩৭ - ২৬ মার্চ ২০০৩)[১] ছিলেন একজন বাংলাদেশী অভিনেতা। ১৯৬০ ও ১৯৭০-এর দশকে লোককাহিনী নির্ভর ও প্রণয়ধর্মী চলচ্চিত্রে প্রধান অভিনেতা হিসেবে তিনি সুখ্যাতি অর্জন করেন। ১৯৬০ সালে এহতেশাম পরিচালিত রাজধানীর বুকে চলচ্চিত্রে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে তার বড় পর্দায় আত্মপ্রকাশ হয়। প্রধান অভিনেতা হিসেবে তার প্রথম চলচ্চিত্র মুস্তাফিজের উর্দু ভাষার পায়েল। তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রসমূহ হল হারানো দিন (১৯৬২), ডাকবাবু (১৯৬৬), সাইফুল মুল্‌ক্‌ বদিউজ্জামাল (১৯৬৭), সাত ভাই চম্পা (১৯৬৮) এবং ভানুমতি (১৯৬৯)। পরবর্তীকালে তিনি টাকার খেলা (১৯৭৪) চলচ্চিত্র দিয়ে পরিচালক হিসেবেও আত্মপ্রকাশ করেন। তার নির্মিত অন্যান্য চলচ্চিত্রসমূহ হল প্রতিনিধি, জীবন মরণ, বদলা, গাদ্দার, এবং দেবর ভাবী

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

নূরুল আজিম খালেদ রউফ[২] ১৯৩৭ সালের ২৩শে জুলাই তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের পূর্ব বঙ্গের (বর্তমান বাংলাদেশ) সিলেটের হবিগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মুন্সেফ হওয়ার কারণে দেশের বিভিন্ন স্থানে তার শৈশব কাটে। পরে ঢাকার হাটখোলায় স্থায়ী হন।[১]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

আজিম চলচ্চিত্রে আগমন করেন রাজধানীর বুকে (১৯৬০)-এ একটি ক্ষুদ্র চরিত্রে অভিনয় দিয়ে। তার বন্ধু রবীন ঘোষ এই ছবির সঙ্গীত পরিচালক ছিলেন। ১৯৫৯ সালে যখন এই ছবির চিত্রায়ন চলছিল, তিনি আজিমকে পরিচালক এহতেশামের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন এবং চরিত্রটি পাইয়ে দেন। তিনি হারানো দিন (১৯৬১) ছবিতে আরেকটি ছোট চরিত্রে কাজ করার পরে তিনি ইবনে মিজানের অসমাপ্ত আওর গম নেহি ছবিতে খলচরিত্রে অভিনয় করেন।[১] পরের বছর তিনি রহমান-রওশন আরা অভিনীত নতুন সুর (১৯৬২) ছবিতে খল চরিত্রে অভিনয় করেন। একই বছর তিনি উর্দু ভাষার পয়সেবেওয়াকুফ এবং বাংলা ভাষার মেঘ ভাঙ্গা রোদ চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধ হন।[১] কাজী খালেক পরিচালিত মেঘ ভাঙ্গা রোদ (১৯৬৪) ছবিতে তার বিপরীতে ছিলেন সুজাতা

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. খোকন, লিয়াকত হোসেন, রোমান্টিক আজিম
  2. মাজিদ, আলাউদ্দীন (২১ মে ২০১৬)। "ঢালিউডের সেই সেরা সাত দাপুটে নায়ক"বাংলাদেশ প্রতিদিন। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]