আইরান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আইরান বা ডুগ
Fresh ayran.jpg
অন্যান্য নামআয়রান, ডোভ, ধল্লে, তান, চালপ বা দই দুধ
ধরনদুগ্ধ্বজাত পণ্য
প্রকারপানীয়
অঞ্চল বা রাজ্যমধ্য এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য, বলকান
পরিবেশনঠান্ডা বা উষ্ণ (পছন্দের উপর নির্ভর করে)
প্রধান উপকরণদই, পানি, লবণ

আয়রান, ডুগ, ধল্লে বা ট্যান হল একটি ঠান্ডা সুস্বাদু দই-জাতীয় পানীয়, যা পশ্চিম এশিয়া, মধ্য এশিয়া, দক্ষিণ এশিয়া, দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপ এবং পূর্ব ইউরোপ জুড়ে জনপ্রিয়। এই পানীয়ের প্রধান উপাদানসমূহ হল দই, পানি এবং লবণ[১][২][৩][৪]পুদিনার মত ভেষজ কিছু উপাদানও ঐচ্ছিকভাবে যোগ করা যেতে পারে। কিছু আইরান কার্বনেটেড ও হয়।

ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

মাহমুদ আল-কাশগারি এর ১১ শতকের বিখ্যাত গ্রন্থ দিওয়ান লুগাত আল-তুর্কে আইরান (মঙ্গোলীয়[৫] ভাষায়. আইরাগ) শব্দটির উল্লেখ করা হয়েছে, যদিও তিনি আইরান কীভাবে তৈরি হয়েছিল তার কোনো তথ্য দেননি[৬]

প্রস্তুতপ্রণালী[সম্পাদনা]

আইরানকে ঠাণ্ডা পরিবেশন করা হয়। সাধারণত ভাজা মাংস বা ভাতের অনুষঙ্গ হিসেবে, বিশেষ করে গ্রীষ্মকালে, আইরানের প্রচলন বেশী[৭][৮]। এটি ঠাণ্ডা বা বরফযুক্ত পানির সাথে দই মিশিয়ে তৈরি করা হয় এবং কখনও কখনও কার্বনেটেড এবং পুদিনা দিয়েও তৈরী করা হয়[৯][১০][১১]। এটিকে বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে "মিশ্রিত দই"[১২][১৩] এবং "বরফযুক্ত পানির সাথে দই মিশিয়ে তৈরি করা সবচেয়ে সতেজ পানীয়" হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে। ইরানিদের মধ্যে পানীয়টি তৈরি করার ঐতিহ্যগত উপায় হল দুধ থেকে (দই ছাড়া) পানির চামড়ায় এটি তৈরী করা, যা ইরানে লুরি এবং ফার্সি ভাষায় মাশক (مشک) এবং আফগানিস্তানে মাস্ক (مسکه) নামে পরিচিত। সাধারণত হরিণ বা ভেড়ার চামড়া দিয়ে তৈরি করা পাত্রে দুধ ঢেলে, এটিকে ঘন্টার পর ঘন্টা নাড়াচাড়া করা হয়, কখনও কখনও কাঠের কাঠামো ব্যবহার করে পশমের দড়ি দিয়ে পানির চামড়া মাটির উপরে রাখা হয় যাতে মিশ্রনের কাজটি সহজ হয়[১৪][১৫]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

আয়রান প্রধাণত তুর্কি উপজাতিদের দ্বারা প্রথম তৈরী করা হয়েছিল[১৬]। অনুরূপ পানীয় অন্যত্রও পাওয়া যেত যেমন ফার্সি ভাষায় ডুগ (دوغ) যা একটি ইরানি গাঁজনযুক্ত পানীয় এবং এটি দীর্ঘদিন ধরে একটি জনপ্রিয় পানীয় হিসেবে প্রাচীন ইরানে (পার্সিয়া) পান করা হত। ১৮৮৬ সালের একটি উৎস দ্বারা দইযুক্ত দুধ এবং পুদিনা দিয়ে তৈরী করা ঠান্ডা পানীয় হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে, যেখানে ডুগ শব্দটি যা দুধের ফার্সি শব্দ থেকে দুশিদান থেকে এসেছে। অন্যান্য অনুরূপ পানীয়গুলির মধ্যে রয়েছে আর্মেনিয়ার ট্যান এবং দক্ষিণ এশিয়ার লস্যি এবং এশিয়ান দেশগুলিতে খুবাই জনপ্রিয়। তবে স্বাদে তারা ডুগ থেকে ভিন্ন হতে পারে।

ভিন্নতা[সম্পাদনা]

আইরানে স্বাদের ভিন্নতা আনার জন্য লবণ, কালো মরিচ, শুকনো পুদিনা, এবং লেবুর রস মেশান হয়। পানীয়টিতে একটি মুচমুচে ভাব প্রদান করার জন্য কাটা শসা যোগ করা যেতে পারে। আলবেনিয়াতে এই পানীয়টি দুপুরের খাবার বা রাতের খাবারের সময়, সাধারণত ভাত এবং কোফতার সাথে পরিবেশন করা হয়। বলকান দেশগুলিতে, পানীয়টি সাধারণত সকালের নাস্তা বা দুপুরের খাবারের সময় পান করা হয়, প্রধাণত ব্যানিত্সা, বোরেক বা অন্যান্য পেস্ট্রির সাথে মিলিয়ে এটি পান করা হয়। আফগানিস্তানে আইরান (আফগানিস্তানে ডুগ নামে পরিচিত) একটি গ্রীষ্মকালীন পানীয়। সেখানে এটি দই, লবণ, পুদিনা, কাটা শসা, বা লেবু দিয়ে তৈরি করা হয় এবং কখনও কখনও কার্বনেটেডও করা হয়। এটি বোলানি, আফগান ফ্ল্যাটব্রেড এবং অন্যান্য পিকনিক খাবারের পাশাপাশি উপভোগ করা হয়।

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Tamime, A. Y., সম্পাদক (২০০৮)। Fermented Milks। John Wiley & Sons। পৃষ্ঠা 124। আইএসবিএন 9781405172387। ২০১৭-০১-১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১২-০৪ 
  2. Jacobson, Sarina; Weiner, Danya (২০০৮)। Yogurt: More Than 70 Delicious & Healthy Recipes। Sterling। পৃষ্ঠা 6। আইএসবিএন 978-1402747595 
  3. Strnadel, Leslie; Erdley, Patrick (২০১২)। Bulgaria। Other Places Travel Guide। Other Places Publishing। পৃষ্ঠা 58। আইএসবিএন 9780982261996। ২০১৬-১২-২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১২-০৪ 
  4. Nazif Shahrani, M. (২০১৩)। The Kirghiz and Wakhi of Afghanistan। University of Washington Press। পৃষ্ঠা 92–93। আইএসবিএন 9780295803784। ২০১৯-১২-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১২-০৪ 
  5. Martine Robbeets; Alexander Savelyev (২০১৭)। Language Dispersal Beyond Farming। পৃষ্ঠা 145। আইএসবিএন 9789027212559 
  6. Reşat Genç (১৯৯৭)। Kaşgarlı Mahmud'a göre XI. yüzyılda Türk dünyası (তুর্কী ভাষায়)। Türk Kültürünü Araştırma Enstitüsü। পৃষ্ঠা 248। 
  7. "Turkish Buttermilk"www.kultur.gov.tr। Ministry of Culture and Tourism, Turkey। ১৮ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১৩ 
  8. Gina Husamettin। "Ayran – Turkish national beverage"balkon3.com। ১২ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১৩ 
  9. Davis, P. H. (১৯৫৬)। "Lake Van and Turkish Kurdistan: A Botanical Journey"The Geographical Journal122 (2): 156–165। জেস্টোর 1790844ডিওআই:10.2307/1790844 
  10. Islamic Republic of Iran (২৬–২৯ জানুয়ারি ২০০৯)। Project Document for a Regional Standard for Doogh (CX/NEA 09/5/8) (PDF)। Tunis, Tunisia: United Nations. Joint FAO/WHO food standards programme of the FAO/WHO coordinating committee for the Near East। ২০১৭-০৫-১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১১ 
  11. Yildiz Fatih (২০১০)। Development and Manufacture of Yogurt and Other Functional Dairy Products। CRC Press। পৃষ্ঠা 10। আইএসবিএন 9781420082081। ২০১৬-১২-২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১২-০৪ 
  12. Halici, Nevin (২৭ এপ্রিল ২০১৩)। "Turkish Delights"। Gastronomica: The Journal of Critical Food Studies। University of California Press। 1 (1): 92–93। ডিওআই:10.1525/gfc.2001.1.1.92 
  13. Lake Van and Turkish Kurdistan: A Botanical Journey P. H. Davis The Geographical Journal, Vol. 122, No. 2 (Jun., 1956), pp. 156–165 Published by: The Royal Geographical Society (with the Institute of British Geographers) Article ডিওআই:10.2307/1790844
  14. "آیین مشک زدن ( استان چهار محال بختیاری )"آپارات - سرویس اشتراک ویدیو। ২০১৫-১১-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-২৮ 
  15. "تهیه لبنیات مثل ماست، دوغ،روغن، و پنیر روستائی کار ساده ی نیست. - YouTube"www.youtube.com। ২০২০-০৮-৩১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-২৮ 
  16. Cooking through History: A Worldwide Encyclopedia of Food with Menus and Recipes, ABC-CLIO, ২০২০, পৃষ্ঠা 23, আইএসবিএন 9781610694568, ayran was a nonalcoholic drink of yogurt and water developed among early Turkic tribes at an unrecorded date