অ্যান্টিগুয়া এবং বার্বুডার ইতিহাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

সিবোনি ("প্রস্তর মানব") জাতির লোকেরা প্রথম অ্যান্টিগুয়াতে বসতি স্থাপন করেছিল এবং তারা এখানে প্রায় ২৪০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ পর্যন্ত ছিল। এরপর দক্ষিণ আমেরিকার বর্তমান ভেনেজুয়েলা অঞ্চল থেকে আরাওয়াক জাতির লোকেরা ক্ষুদ্রতর অ্যান্টিল দ্বীপপুঞ্জ বেয়ে অভিবাসন শুরু করে এবং সিবোনিদেরকে সরিয়ে অ্যান্টিগুয়াতে বসবাস করা শুরু করে। এরপর যুদ্ধবাজ কারিব জাতির লোকেরা আরাওয়াকদেরকে পার্শ্ববর্তী দ্বীপগুলি থেকে উচ্ছেদ করলেও অ্যান্টিগুয়া বা বার্বুডাতে পা রাখেনি।

১৪৯৩ সালে ক্রিস্টোফার কলাম্বাস দ্বীপগুলিতে পদার্পণ করেন। তিনি বৃহত্তর দ্বীপটির নাম দেন "সান্তা মারিয়া দে লা আন্তিগা"। ১৬৩২ সালে ব্রিটিশরা দ্বীপগুলিকে উপনিবেশে পরিণত করে। ১৬৭৪ সালে স্যার ক্রিস্টোফার কডরিংটন অ্যান্টিগুয়ার প্রথম বড় আকারের চিনির খামার প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি ব্যবসার প্রয়োজনে বার্বুডা দ্বীপটিও লিজ নেন। আজও বার্বুডার একমাত্র শহরটি কর্ডিংটনের নামে নামাঙ্কিত। কর্ডিংটন এবং অন্যান্যরা আফ্রিকার পশ্চিম উপকূল থেকে প্ল্যান্টেশনে কাজ করানোর জন্য ক্রীতদাস নিয়ে আসেন।

১৮৩৪ সালে অ্যান্টিগুয়ার দাসেরা মুক্তিলাভ করে। কিন্তু তারা প্ল্যান্টেশনের মালিকদের উপর অর্থনৈতিকভাবে নির্ভরশীল ছিল। মুক্ত হলেও আবাদী জমির অভাব, ঋণের অভাব, কৃষিভিত্তিক অর্থনীতি, ইত্যাদি কারণে অর্থনৈতিক স্বচ্ছলতা আসে নি। ১৯৩৯ সাল পর্যন্ত শ্রমিকদের অবস্থা খারাপ ছিল। ঐ বছর অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডাতে বাণিজ্য ইউনিয়ন আন্দোলনের জন্ম হয়।

ভেয়ার কর্নওয়াল বার্ড ১৯৪৩ সালে লেবার ইউনিয়নের সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৪৬ সালে তিনি অ্যান্টিগুয়া লেবার পার্টির হয়ে নির্বাচনে অংশ নেন এবং ১৯৫১ সালে লেবার পার্টি সংখ্যাগরিষ্ঠ দলে পরিণত হয়। এরপর তারা আরও অনেকবার নির্বাচনে জেতেন।

১৯৭১ সালের নির্বাচনে প্রোগ্রেসিভ লেবার মুভমেন্ট ক্ষমতায় আসলেও ১৯৭৬ সালে আবার বার্ড ও লেবার পার্টি ক্ষমতায় আসেন এবং এরপরের নির্বাচনগুলিতে ক্রমাগত জয়ী হয়ে হয়ে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত পুনর্নির্বাচিত হন। এরপর বার্ডের ছেলে লেস্টার বার্ড দলের হাল ধরেন এবং তার অধীনে দলটি ২০০৪ সাল পর্যন্ত দেশের ক্ষমতায় ছিল।

২০০৪ সালের মার্চের নির্বাচনে অ্যান্টিগুয়া লেবার পার্টি পরাজয় বরণ করে এবং ইউনাইটেড প্রোগ্রেসিভ পার্টি ১৭টির মধ্যে ১৩টি আসনে জিতে ক্ষমতায় আসে। ২০০৭ সালের মার্চের নির্বাচনেও ইউনাইটেড প্রোগ্রেসিভ পার্টি আবার জয়লাভ করে। বাল্‌ড্‌উইন স্পেনসার বর্তমানে দেশের নেতা।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]