অরুণা রায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অরুণা রায়
Aruna Roy (2019).jpg
জন্ম (1946-05-26) ২৬ মে ১৯৪৬ (বয়স ৭৩)
জাতীয়তাভারতীয়
পেশাসমাজকর্মী
পুরস্কাররামোন ম্যাগসেসে পুরস্কার, ২০০০; লাল বাহাদুর শাস্ত্রী রাষ্ট্রীয় পুরস্কার, ২০১০

অরুণা রায় (জন্মঃ ২৬ মে, ১৯৪৬) একজন ভারতীয় রাজনীতিবিদসমাজকর্মী; তিনি শঙ্কর সিং, নিখিল দে ও অন্যান্য অনেকের সাথে মিলে মজদুর কিষাণ শক্তি সংগঠন (MKSS) প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি সমাজের দুর্বল তথা অনগ্রসর অংশের জন্য করা সেবামূলক কাজের জন্য পরিচিত, এছাড়া তিনি ইউপিএ-১ সরকার কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত সোনিয়া গান্ধীর নেতৃত্বাধীন 'রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা সমিতি’র সদস্য ছিলেন।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

অরুণা রায় চেন্নাইতে জন্মগ্রহণ করেন।[১][২] তিনি দিল্লীতে বড় হয়েছেন যেখানে তার বাবা একজন সরকারি কর্মচারী ছিলেন। তিনি দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্দ্রপ্রস্ত মহাবিদ্যালয়ে ইংরেজি সাহিত্য নিয়ে পড়াশোনা করেন।[৩][৪]

তিনি ১৯৬৮ থেকে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত ভারতীয় প্রশাসনিক সেবার (আইএএস) সরকারি কর্মচারী হিসেবে কাজ করেন।

মজদুর কিষাণ শক্তি সংগঠন[সম্পাদনা]

রায় রাজনৈতিক চাকরি থেকে পদত্যাগ করেন এবং দরিদ্র ও প্রান্তিকের বিষয় নিয়ে কাজ করা শুরু করেন। তিনি রাজস্থানের তিলোনিয়াতে সামাজিক কর্ম ও গবেষণা কেন্দ্রের (এসডব্লিউসি) সাথে যুক্ত হয়ে পড়েন।[৫][৬] ১৯৮৭ সালে, নিখিল দে, শঙ্কর সিং ও অন্যান্যদের সাথে তিনি মজদুর কিষাণ শক্তি সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন।[৭]

প্রথমত মজদুর কিষাণ শক্তি সংগঠন লড়াই শুরু করে শ্রমিকদের ন্যায্য ও সমান মজুরি আদায়ের লক্ষ্যে কিন্তু সেই লড়াই ধীরেধীরে ভারতে তথ্যের অধিকার আইন প্রনয়ণর আন্দোলনের রূপ নেয়। অরুণা রায় এমকেএসএস ও এনসিপিআরআই সংগঠন দুটির নেতৃত্ব প্রদান করেন এবং তাদের আন্দোলন সফল হয়, যার ফলস্বরূপ ২০০৫ সালে ভারতে তথ্য জানার অধিকার আইন প্রণয়ন হয়।[৮]

প্রচারাভিযান[সম্পাদনা]

অরুণা রায় দরিদ্র তথা প্রান্তিক মানুষের অধিকারে জন্য বেশ কয়েকটি আন্দোলন করেন এবং সেগুলোর নেতৃত্ব দেন; যেগুলোর সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ আন্দোলন হলো তথ্য জানার অধিকার আইন, কাজের অধিকার আইন (মনরেগা),[৯] এবং খাদ্যের অধিকার আন্দোলন উল্লেখযোগ্য। সম্প্রতি, she has been involved with the campaign for universal, non-contributory pension for unorganised sector workers as a member of the Pension Parishad[১০][১১] and the NCPRI for the passage and enactment of the Whistleblower Protection Law and Grievance Redress Act.[১২][১৩]

পুরস্কার ও অন্যান্য কাজ[সম্পাদনা]

তিনি ২০০৬ সালে পদত্যাগ না করা পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা সমিতির একজন সদস্য হিসেবে কাজ করেছেন।[১৪][১৫]

মজদুর কিষাণ শক্তি সংগঠনের সাথে যৌথভাবে, অরুণা রায়কে গ্রামীণ কর্মীদের প্রতি সামাজিক ন্যায়বিচার ও সৃজনশীল উন্নয়নে অধিকার সম্পর্কিত কজের জন্য ১৯৯১ সালে টাইমস ফেলোশিপ পুরস্কার প্রদান করা হয়েছিল। ২০০০ সালে, তিনি সামাজিক নেতৃত্বের জন্য রামোন ম্যাগসেসে পুরস্কার অর্জন করেন।[১৬] ২০১০ সালে, জন প্রশাসন, শিক্ষা ও ব্যাবস্থাপনায় অসাধারণ কাজের জন্য লাল বাহাদুর শাস্ত্রী রাষ্ট্রীয় পুরস্কার প্রদান করা হয়। [১৭] ২০১১ সালে টাইম ম্যাগাজিন তাকে বিশ্বের প্রভাবশালী একশো ব্যাকির তালিকায় উল্লেখ করে।[১৮] In September 2017 India Times listed Roy as one of the 11 Human Rights Activists Whose Life Mission Is To Provide Others With A Dignified Life[১৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Daughter Of The Dust | Urvashi Butalia | Oct 16,2006"www.outlookindia.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৯-১৭ 
  2. "'I would like to know how I am a traitor'"www.telegraphindia.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৯-১৭ 
  3. "Aruna Roy (Indian activist) -- Encyclopædia Britannica"Encyclopædia Britannica। ৩০ জানুয়ারি ২০১৩। 
  4. "DU has a lot on its ladies special platter"India Today। ৩ জুন ২০০৯। 
  5. Women who dared, by Ritu Menon. Published by National Book Trust, India, 2002. আইএসবিএন ৮১-২৩৭-৩৮৫৬-০. Page 169-170.
  6. Aruna Roy National Resource Center for Women, Govt. of India.
  7. MKSS As a Role Model ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ তারিখে, Civil Society Online. Jan 2012
  8. Blacked out: government secrecy in the information age, by Alasdair Scott Roberts. Cambridge University Press, 2006.
  9. "Matersfamilias | Saba Naqvi | Aug 24,2015"www.outlookindia.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৮-২৭ 
  10. "Pension Parishad calls off strike"The Hindu। ২০১৩-১২-২১। আইএসএসএন 0971-751X। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৮-২৭ 
  11. "Forgotten Brethren | Harsh Mander | Apr 20,2015"www.outlookindia.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৮-২৭ 
  12. "Aruna Roy seeks early passage of grievance redress, whistleblower bills"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৮-২৭ 
  13. Roy, Aruna। "The Fate of RTI After One Year of Modi is a Bad Omen"The Wire। ২০১৫-১০-১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৮-২৭ 
  14. "NAC reconstituted"The Hindu। ৪ জুন ২০০৫। 
  15. "Daughter Of The Dust | Urvashi Butalia | Oct 16,2006"www.outlookindia.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৮-২৭ 
  16. "Ramon Magsaysay Award Citation"। ৭ মে ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  17. Thehindu.com
  18. Thottam, Jyoti (২০১১-০৪-২১)। "The 2011 TIME 100 - TIME"Timeআইএসএসএন 0040-781X। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৮-২৭ 
  19. Anjali Bisaria। "11 Human Rights Activists Whose Life Mission Is To Provide Others With A Dignified Life/"Indiatimes.com 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Gupta, Indra (২০০৪)। India's 50 Most Illustrious Women (ইংরেজি ভাষায়)। New Delhi: Icon Publications। আইএসবিএন 9788188086030 
  • Bail, S; Bansal, S (২০০৪)। Icons of social change (ইংরেজি ভাষায়)। New Delhi: Puffin Books। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]