হারুন লরগাত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হারুন লরগাত
Replace this image male bn.svg
জন্ম হারুন লরগাত
২৬ মে, ১৯৬০ইং
দক্ষিণ আফ্রিকা
পেশা প্রধান নির্বাহী, ব্যবসায়ী, এ্যাকাউন্টেন্ট
যে জন্য পরিচিত সাবেক আইসিসি প্রধান নির্বাহী

হারুন লরগাত (ইংরেজি: Haroon Lorgat; জন্ম: ২৬ মে, ১৯৬০) ভারতীয় বংশোদ্ভূত দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যবসায়ী ও চার্টার্ড এ্যাকাউন্টেন্ট। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ প্রদেশের পোর্ট এলিজাবেথে জন্মগ্রহণ করেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল বা আইসিসি’র প্রধান নির্বাহী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৭৭ থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত হাওয়া বোল দলের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলায় অংশ নিয়েছিলেন। শেষ বছরে এপার্টথিড দলের খেলোয়াড় ছিলেন। হারুন লরগাত সাউথ আফ্রিকান ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড এ্যাকাউন্ট্যান্টসের একজন সদস্য। তিনি কেপটাউন এবং জোহানেসবার্গভিত্তিক ক্যাপেলা ইনভেস্টম্যান্ট হোল্ডিংসের নির্বাহী পরিচালক ছিলেন। এছাড়াও, ২০০২ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত আর্নস্ট এন্ড ইয়াং কোম্পানীর সিনিয়র পার্টনার হিসেবে ছিলেন। এরপরই দুবাইয়ে অবস্থিত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল বা আইসিসি'র প্রধান কার্য্যালয়ে তিনি যোগদান করেন।

২০০৮ সালের এপ্রিল মাসে লরগাতকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের প্রধান নির্বাহী হিসেবে নিযুক্ত করা হয়। ৪ জুলাই, ২০০৮ তারিখে আইসিসি প্রধান হিসেবে নিজ দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন হারুন লরগাত। তিনি উত্তরসূরী হিসেবে অস্ট্রেলিয়ান ম্যালকম স্পিডের স্থলাভিষিক্ত হন।[১] জুন, ২০১২ সালে কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত আইসিসি’র বার্ষিক সভায় তাঁকে প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেয়া হয়।[২] এরপর থেকে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের পরামর্শকের দায়িত্ব পালন করছেন।[৩]

সমালোচনা[সম্পাদনা]

হারুন লরগাত ভারতীয়দেরকে সমর্থন ও সহযোগিতা-সহ ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড বা বিসিসিআইকে বিভিন্নভাবে সমর্থন করেছেন বলে ব্যাপক গুঞ্জন রয়েছে। এছাড়াও, ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে প্রচলিত কাঠামোর পরিবর্তে ১০টি দলের অংশগ্রহণের পক্ষে প্রধান দাবীদার হিসেবে রয়েছেন তিনি। এরফলে আইসিসি’র সহযোগী দলগুলোর অংশগ্রহণ বাঁধার মুখোমুখি হবে। এ বক্তব্যের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত দলগুলো তাঁর কড়া সমালোচনা করে। এছাড়াও, টেস্ট ক্রিকেটভূক্ত দেশ, কোচ এবং ক্রিকেট অনুসারীরাও এ বিষয়ে ব্যাপক সমালোচনা করে।[৪]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

হারুন লরগাতের পূর্বপুরুষগণ ভারতীয় বংশোদ্ভূত ছিলেন। তাঁর পূর্বপুরুষেরা ভারতের দক্ষিণাঞ্চলে অবস্থিত গুজরাট রাজ্যের মানিকপুর-রিথবানিয়া গ্রামে বসবাস করতেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিত। ১০ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮৫ সালে ফারাহ ইব্রাহীমকে বিয়ে করেন। মোহাম্মদ জহির এবং নাসিরা নামে তাদের দু’টি সন্তান রয়েছে।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

পূর্বসূরী:
ম্যালকম স্পিড
আইসিসি প্রধান
৪ জুলাই, ২০০৮-২৮ জুন, ২০১২
উত্তরসূরী:
ডেভ রিচার্ডসন