ভাসিলি গ্রসম্যান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Donetsk grossman.jpg

ভাসিলি গ্রস্‌ম্যান (Vasily Grossman) (১৯০৫-১৯৬৪) একজন খ্যাতনামা রুশ লেখক ও সাংবাদিক ছিলেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রেক্ষাপটে রচিত উপন্যাস জীবন ও নিয়তি (Life and Fate) তার শ্রেষ্ঠ গ্রন্থ।

জীবনী[সম্পাদনা]

গ্রস্‌ম্যান ইঊক্রেইনের এক ইহুদি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। মস্কো সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন সময়ে তার সাহিত্যচর্চা শুরু। প্রকৌশলী হিসেবে কর্মজীবন শুরু করলেও ত্রিশের দশকে এসে তা ছেড়ে দেন, সাহিত্যচর্চায় মনোনিবেশের উদ্দেশ্যে। এ সময়ে তিনি ছোটগল্প লেখক হিসেবে মোটামুটি সুনাম অর্জন করেন।

১৯৪১ সালে রাশিয়া দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে। গ্রস্‌ম্যান স্বেচ্ছায় সেনাবাহিনীতে যোগদান করেন। সেনাবাহিনীর পত্রিকার প্রতিবেদক হিসেবে তিনি যুদ্ধক্ষেত্রে তিন বছর অতিবাহিত করেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে রাশিয়ার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যেসব যুদ্ধক্ষেত্র - মস্কো, স্টালিনগ্রাদ, কুর্স্ক (Kursk) ও বার্লিন - প্রতিটি তিনি স্বচক্ষে প্রত্যক্ষ করেন। পূর্ব ইউরোপে নাত্‌সি হত্যাযজ্ঞের (Holocaust) প্রথম স্বাক্ষী ও লিপিকারদের মধ্যেও তিনি অন্যতম। মাইদানেকট্রেব্লিংকা ক্যাম্পের উপর প্রথম প্রতিবেদনগুলো লিখেন। এ সময়ে তার লেখনী তাকে ব্যাপক খ্যাতি এনে দেয়।

কিন্তু যুদ্ধের পর রুশ সরকারের ইহুদি-বিরোধী কার্যকলাপে তার মোহ ভেঙ্গে যায়। গ্রস্‌ম্যান সোভিয়েত ব্যবস্থার উপর বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেন। ১৯৫৯ সালে তার মহাগ্রন্থ জীবন ও নিয়তি যখন লেখা শেষ করেন, সোভিয়েত সরকার সেটির প্রকাশনা নিষিদ্ধ করে দেয়। সোভিয়েত আমলা মিখাইল সুস্‌লভ তাকে জানান যে তার উপন্যাস আগামী দুশো বছরে ছাপা হবে না। ১৯৬৪ সালে মারা যাবার আগে পর্যন্ত তিনি জানতেন না বইটি আদৌ কোনদিন প্রকাশিত হবে কি না।

অবশেষে ১৯৮০ সালে সুইজারল্যান্ডে বইটি মুক্তি পায়। এবং ১৯৮৮ সালে মিখাইল গর্বাচভের শাসনামলে রাশিয়াতেও প্রকাশ পায়। উপন্যাসটি স্টালিনগ্রাদের যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে লেখা। এই উপন্যাসে গ্রস্‌ম্যান সোভিয়েত স্বৈরাচার ও নাত্‌সি স্বৈরাচারের তুলনা করেন এবং রুশ জাতির নিপীড়নের কথা তুলে ধরেন। কোন কোন সমালোচক গ্রস্‌ম্যানের লেখাকে তল্‌স্তয়ের সাথে তুলনা করেছেন। ফ্রান্সের ল্য মোঁদ পত্রিকা বইটিকে 'শতাব্দীর সেরা রুশ উপন্যাস' হিসেবে আখ্যায়িত করে।