ভার্লাম শালামভ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ভার্লাম শালামভ
Shalamov.jpg
জীবিকা লেখক, সাংবাদিক, কবি, রাজবন্দী
উল্লেখযোগ্য রচনাসমূহ কোলিমার কাহিনীসমূহ
কোলিমার গল্প, ইংরেজি সংস্করণ

ভার্লাম তিখোনোভিচ শালামভ (রুশ: Варла́м Ти́хонович Шала́мов) (১লা জুলাই, ১৯০৭১৭ই জানুয়ারি, ১৯৮২) একজন বিখ্যাত রুশ লেখক, কবি ও সাংবাদিক ছিলেন। তিনি সোভিয়েত আমলে রাজনৈতিক বন্দী হিসেবে সাইবেরিয়ার কুখ্যাত গুলাগ ক্যাম্প কোলিমা-তে (Kolyma) এক যুগের অধিক সময় সশ্রম কারাদন্ড ভোগ করেন। এই অভিজ্ঞতা অবলম্বনে তিনি কোলিমার গল্প (Kolyma Tales) নামক একটি বই লিখেন যা গুলাগ সাহিত্যের ক্লাসিক হিসেবে স্বীকৃত।

জীবনী[সম্পাদনা]

শালামভের জন্ম রাশিয়ার ভলোগ্‌দা অঞ্চলে এক ধর্মীয় পরিবারে। ১৯২৬ সালে তিনি আইনশাস্ত্র পড়তে মস্কো সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে যান। স্তালিন-বিরোধী কার্যকলাপে লিপ্ত থাকার কারনে সোভিয়েত সরকার ১৯২৯ সালে তাকে তিন বছরের জন্য উরাল পর্বতমালায় কারাদণ্ড প্রদান করে। ১৯৩২ সালে তিনি মস্কোতে প্রত্যাবর্তন করে সাংবাদিকতা পেশায় যোগ দেন এবং গল্প-প্রবন্ধ লেখা শুরু করেন।

১৯৩৭ সালে স্তালিনের ভয়াল মহাশুদ্ধিকরণ (Great Purge) অভিযানের প্রারম্ভে শালামভ পুনরায় গ্রেফতার হন। এবার তাঁকে সুদূর কোলিমা-তে ৫ বছরের জন্য নির্বাসন দেয়া হয়। ১৯৪৩ সালে তাঁকে আরো ১০ বছরের সাজা দেয়া হয়। তাঁর অপরাধ ছিল তিনি ইভান বুনিন-কে একজন "মহান রুশ লেখক" হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন।

বরফাচ্ছন্ন কোলিমার প্রচন্ড শৈত্যে বন্দীদের দিয়ে অমানুষিক পরিশ্রম করানো হয়। শালামভ স্বর্ণখনি ও কয়লাখনিতে কাজ করেন এবং ক্যাম্প থেকে পালিয়ে যাবারও চেষ্টা করেন। ১৯৪৬ সালে অতিশয় দুর্বল অবস্থায় চলে যাবার পর এক ডাক্তার তাকে ক্যাম্পের হাসপাতালে চাকুরি দিয়ে তাঁর জীবন রক্ষা করেন। ১৯৫১ সালে ছাড়া পেয়ে গেলেও হাসপাতালের কাজ চালিয়ে যান ১৯৫৩ সালে স্তালিনের মৃত্যু পর্যন্ত। এ সময়ে বরিস পাস্তের্নাক তাঁর লেখার প্রশংসা করেন।

১৯৫৬ সালে পুনরায় মস্কোতে ফিরে এসে সাংবাদিকতা শুরু করেন। কিন্তু এতদিনে তার স্বাস্থ্য সম্পূর্ণই ভেঙ্গে পড়াতে তিনি পেনশন লাভ করেন। অন্যান্য লেখালেখির পাশাপাশি সুদীর্ঘ ২০ বছর তিনি কোলিমার গল্প-র পান্ডুলিপি লিখে যান। পাস্তের্নাক ও সল্‌ঝেনিত্‌সিনের মতো লেখকদের সাথে তার পরিচয় হয়।

১৯৬৬ সাল থেকে কোলিমার গল্প অল্প অল্প করে পশ্চিমা বিশ্বে প্রকাশিত হতে থাকে। ১৯৭০-এর দশকে এসে অপ্রত্যাশিতভাবে তিনি গ্রন্থটিকে ত্যজ্য করে দেন। অনেকের মতে সোভিয়েত সরকারের চাপের মুখে তিনি এটি করতে বাধ্য হন। ভগ্ন স্বাস্থ্যে জীবনের শেষ কটি বছর তিনি এক প্রৌঢ়নিবাসে অতিবাহিত করেন। ১৯৮২ সালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

কোলিমার গল্প-র সম্পূর্ণ সংস্করণ ১৯৭৮ সালে লন্ডন থেকে মুদ্রিত হয়। অবশেষে ১৯৮৭ সালে মিখাইল গর্বাচভের শাসনামলে বইটি রাশিয়াতেও প্রকাশ পায়। গ্রন্থটি স্তালিনের শাসনের নিষ্ঠুরতার একটি প্রামান্য দলিল এবং বিংশ শতকের শ্রেষ্ঠ রুশ গল্পগুচ্ছের অন্যতম।

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]