তুলনামূলক ধর্মতত্ত্ব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

তুলনামূলক ধর্মতত্ত্ব হলো ধর্ম নিয়ে গবেষণার বিভিন্ন শাখার অন্যতম শাখা। এটা পৃথিবীর ধর্মগুলোর বিভিন্ন আইন-কানুন ও বিধি-বিধানের তুলনামূলক আলোচনা করে। তুলনামূলক ধর্মতত্ত্ব নিয়ে আলোচনা ব্যক্তিকে বিভিন্ন ধর্মের অভ্যন্তরীণ মৌলিক দর্শন যথা নৈতিকতা, অধিবিদ্যা ও চিরমুক্তির ধারণা সম্পর্কে গভীর জ্ঞান দান করে। এটা সম্পর্কে গভীর জ্ঞান একজন মানুষকে আধ্যাত্মিকতা, ধর্ম ও বিশ্বাস সম্পর্কে গভীর জ্ঞান দান করে।

ভৌগোলিক বিভাজন[সম্পাদনা]

চার্লস জোশেস অ্যাডামস এর মতানুসারে, বিশ্ব ধর্মগুলোর বিভাজনের ক্ষেত্রে পৃথিবীর ভৌগোলিক বিভাজনের রয়েছে একটি লক্ষ্যণীয় ভূমিকা [১]

  1. মধ্যপ্রাচ্যের ধর্মসমূহ যথা: প্রাচীন মিশরীয় ধর্ম, ইহুদিধর্ম, খ্রিস্টধর্ম, ইসলাম, জরাথুষ্ট্রীয় ও বিভিন্ন প্রাচীন ধর্মসমূহ;
  2. পূর্ব এশিয়ার ধর্মসমূহ যথা: চীন, জাপান ও কোরিয়ার অধিবাসীদের ধর্মসমূহ যথা কনফুসিয় ধর্ম, তাও ধর্ম, মহাযান বৌদ্ধধর্ম ও শিন্তো
  3. ভারতীয় ধর্মসমূহ যথা: প্রাচীন বৌদ্ধধর্ম, হিন্দুধর্ম, জৈনধর্ম, শিখধর্ম ও হিন্দু-বৌদ্ধধর্মের মিশ্রণে গড়ে ওঠা বেশকিছু ধর্মবিশ্বাস;
  4. আফ্রিকান ধর্মসমূহ তথা সাহারা অঞ্চলের আফ্রিকার বিভিন্ন সম্প্রদায়ের আচরিত ধর্মসমূহ; মিশরের প্রাচীন ধর্মসমূহ এর বাইরে থাকবে। সেগুলো পরিগণিত হবে মধ্যপ্রাচ্যের প্রাচীন ধর্মগুলোর ভেতরে;
  5. আমেরিকান ধর্মসমূহ তথা দুই আমেরিকা মহাদেশের প্রাচীন ও প্রকৃত অধিবাসী রেড ইন্ডিয়ানদের ধর্মসমূহ;
  6. ওশেনীয় ধর্মসমূহ তথা প্রশান্ত মহাসগরীয় দ্বীপপুঞ্জ, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের অধিবাসীদের ধর্মসমূহ; এবং
  7. প্রাচীন গ্রিস ও রোমের ধর্মসমূহ ও তৎপরবর্তীতে গ্রিক সংস্কৃতি সম্ভূত বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর ধর্ম।

মধ্যপ্রাচ্যের ধর্মসমূহ[সম্পাদনা]

ইব্রাহিমীয় বা পশ্চিম এশীয় ধর্ম[সম্পাদনা]

তুলনামূলক ধর্মতত্ত্বের আলোচনায় ইব্রাহিমীয় ধর্ম বলতে খ্রিস্টধর্ম, ইসলামইহুদি ধর্ম এই তিনটি ধর্মকে বোঝায়। উল্লিখিত তিনটি ধর্মেই ইব্রাহিম কে তাদের ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ বলে মনে করে।

ভারতীয় ধর্মসমূহ[সম্পাদনা]

ভারতীয় ধর্ম বলতে ভারতীয় উপমহাদেশে উদ্ভূত বিভিন্ন ধর্মকে বোঝায়। এর ভেতরে রয়েছে হিন্দুধর্ম, বৌদ্ধধর্ম, জৈনধর্মশিখধর্ম

পূর্ব এশীয় কিংবা তাওধর্ম[সম্পাদনা]

তাও ধর্ম মূলত পূর্ব এশিয়াতাও মতবাদ থেকে সৃষ্ট একটি ধর্ম কিংবা ধর্ম-দর্শন। পূর্ব এশিয়ার বিস্তীর্ণ অংশে বৌদ্ধধর্ম অনেকাংশে তাওধর্মে পরিণত হয়েছে।

তূলনামূলক ক্ষেত্রসমূহ[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]