অ্যালবাস ডাম্বলডোর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অ্যালবাস ডাম্বলডোর
হ্যারি পটার চরিত্র
Harry Potter
রিচার্ড হ্যারিস কর্তৃক রূপায়িত অ্যালবাস ডাম্বলডোর, হ্যারি পটার সিরিজের প্রথম দুটি চলচ্চিত্রে
হাউজ গ্রিফিন্ডর
আনুগত্য অর্ডার অফ দ্য ফিনিক্স (কাল্পনিক সংগঠন); হগওয়ার্টস
অভিনেতা রিচার্ড হ্যারিস (প্রথম দুটি চলচ্চিত্রে), মাইকেল গ্যামবন (পরের চলচ্চিত্রগুলোতে)
প্রথম উপস্থিতি হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফার্স স্টোন

অ্যালবাস পার্সিভ্যাল উলফ্রিক ব্রায়ান ডাম্বলডোর (ইংরেজিতে Albus Percival Wulfrick Brian Dumbledore) ব্রিটিশ লেখিকা জে. কে. রাউলিং রচিত হ্যারি পটার উপন্যাস-সিরিজের এক কাল্পনিক চরিত্র তথা অন্যতম মুখ্যচরিত্র। সিরিজের অধিকাংশ সময়ে তাঁর উপস্থিতি হগওয়ার্টস স্কুল অফ উইচক্র্যাফট অ্যান্ড উইজাড্রির হেডমাস্টার হিসেবে। ডাম্বলডোর-সংক্রান্ত একটি প্রাক-কাহিনি থেকে জানা যায়, তিনি ছিলেন "অর্ডার অফ দ্য ফিনিক্স" নামক সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা ও নেতা। এই সংগঠনটি সিরিজের মুখ্য খলচরিত্র লর্ড ভল্ডেমর্টের বিরুদ্ধে সংগ্রামের জন্য গঠিত হয়।

রাউলিং বলেছেন, ডাম্বলডোর নামটি তিনি গ্রহণ করেন "বাম্বলবি" শব্দটির একটি আদি আধুনিক ইংরেজি রূপ থেকে[১]; কারণ তাঁর "কল্পনায় তিনি [ডাম্বলডোর] হাঁটার সময় গুনগুন করতেন"।[২]

চারিত্রিক বিকাশ[সম্পাদনা]

গ্লসেস্টারশায়ারের উইন্টারবর্নের যে সেন্ট মাইকেলস স্কুলে রাউলিং পড়াশোনা করেন, সেখানকার হেডমাস্টার অ্যালফ্রেড ডান ছিলেন ডাম্বলডোর চরিত্রটির সৃষ্টির অনুপ্রেরণা।[৩][৪] লেখিকার মতে, ডাম্বলডোর তাঁর প্রিয় চরিত্রগুলির অন্যতম।[৫][৬] তিনি মনে করেন, ডাম্বলডোর হলেন "সদগুণের এক আধার"। তাই তিনি ডাম্বলডোর সম্পর্কে লিখতে ভালবাসেন।[৭] তিনি আরও দাবি করেন যে, তাঁকে তাঁর পাঠকদের কাছে কিছু জানাতে হলে ডাম্বলডোরই তাঁর হয়ে বলে দেন। কারণ ডাম্বলডোর হ্যারি পটার জগৎ সম্পর্কে "প্রায় সবকিছুই জানেন"।[৮] যদিও রাউলিং জানিয়েছেন, ডাম্বলডোর এই বলে খেদ প্রকাশ করেন যে তাঁকে "সব কিছুর জ্ঞান রাখতে হয়, তাঁকে জ্ঞানের ভার বহন করতে হয়। তিনি আর জানতে চান না।"[৯] কেন্দ্রীয় চরিত্র হ্যারি পটারের অভিভাবক হিসেবে "ডাম্বলডোর ছিলেন এক প্রজ্ঞাবান ব্যক্তি। তিনি জানতেন যে জীবনে সম্ভাব্য যা কিছু আসছে তার জন্য প্রস্তুত হতে হ্যারিকে কিছু কঠিন পাঠ নিতে হবে। তাই তিনি অন্যান্য ছাত্রছাত্রী যা সাধারণভাবে করতে দিতেন না, তা করতে হ্যারিকে অনুমতি দেন। এমনকি অনিচ্ছাসত্ত্বেও হ্যারিকে সেই সব জিনিসের মুখোমুখি হতে দেন, যা থেকে তিনি স্বয়ং তাঁকে রক্ষা করতে চাইতেন।"[১০] ১৯৯৯ সালের একটি সাক্ষাৎকারে রাউলিং জানান, তাঁর কল্পনায় ডাম্বলডোর চরিত্রটি "অনেকটা জন গিলগাড ধরনের, মানে, বেশ বয়স্ক এবং বেশ মহিমান্বিত।"[১১] ছাত্রাবস্থায় ডাম্বলডোর ছিলেন গ্রিফিনডোর হাউজের সদস্য।[১২]

২০০৭ সালের ১৯ অক্টোবর, নিউ ইয়র্ক সিটির কার্নেজি হলে বক্তব্য রাখার সময় এক তরুণ গুণমুগ্ধ রাউলিংকে জিজ্ঞাসা করেন যে ডাম্বলডোর কোনোদিন তাঁর "সত্যকারের প্রণয়ী"কে খুঁজে পেয়েছিলেন কিনা। রাউলিং বলেন, তাঁর সবসময়ই মনে হয় যে ডাম্বলডোর সমকামী। তিনি গেলার্ট গ্রিন্ডেলওয়াল্ডের প্রেমে পড়েছিলেন। গ্রিন্ডেলওয়াল্ড তাঁর প্রেম গ্রহণ করেছিলেন কিনা সেকথা রাউলিং স্পষ্ট করেননি, কিন্তু এটুকু বলেছেন যে এই প্রণয় ছিল ডাম্বলডোরের জীবনের এক "বিরাট ট্র্যাজেডি"।[১৩][১৪][১৫] মাগলদের উপর জাদুকরদের কর্তৃত্বস্থাপনের ধারণাটি যে এককালে ডাম্বলডোর সমর্থন করেছিলেন তার কারণ ও উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করতে গিয়ে রাউলিং বলেন: "প্রেমে পড়ে তিনি তাঁর নৈতিকতা সম্পূর্ণ বিস্মৃত হন। আমার মনে হয় তারপরই তিনি ওই সব বিষয়ে নিজের বিচারবিবেচনার প্রতি বিশ্বাস হারিয়ে ফেলে অযৌন মানসিকতাসম্পন্ন হয়ে পড়েন। তিনি ব্রহ্মচর্য ও পুথিগত জীবনকেই বেছে নেন।"[১৬] হগওয়ার্টসের গুজব ছিল ডাম্বলডোর ডাম্বলডোর’স আর্মির প্রতিষ্ঠাতা। এই গুজবের কারণ অবশ্য অরর তথা অর্ডার অফ দ্য ফিনিক্স সদস্য কিংসলে শ্যাকলবোল্টের একটি শক্তিশালী কনফান্ডাস চার্ম।

উপস্থিতি[সম্পাদনা]

প্রথম তিন উপন্যাস[সম্পাদনা]

হ্যারি পটার সিরিজের প্রথম উপন্যাস হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফার্স স্টোন-এর প্রথম অধ্যায়ে ডাম্বলডোর সারের লিটল হুইঙ্গিং -এর ৪ নং প্রাইভেট ড্রাইভের ঠিকানায় উপস্থিত হন। এই সময় হ্যারির পিতামাতা লর্ড ভল্ডেমর্টের হাতে নিহত হন এবং ভল্ডেমর্ট দুর্বলতর একটি রূপে রূপান্তরিত হয়ে যান। ডাম্বলডোরের সিদ্ধান্তে সদ্য-অনাথ হ্যারির স্থান হয় ভার্নন ও পেতুনিয়া ডার্সলির সংসারে। ডাম্বলডোর জানতেন যে হ্যারির মায়ের আত্মবিসর্জন ফলে সৃষ্ট একটি বিশেষ জাদু হ্যারিকে রক্ষা করবে। এই কারণে তিনি রক্তসম্বন্ধের জাদুটির আবাহন করেন এবং হ্যারির মাসি পেটুনিয়া ডার্সলে হ্যারিকে তাঁর গৃহে আশ্রয় দিলে সেই জাদুটি কার্যকর হয়। প্রেমবন্ধনের পুরনো জাদুটির ফলে হ্যারির স্পর্শ ভল্ডেমর্টের কাছে অসহনীয় হয়। ডাম্বলডোর হ্যারিকে ডার্সলেদের বাড়ির দোরগোড়ায় রেখে যান। সঙ্গে রেখে যাওয়া একটি চিঠিতে তিনি পুরো পরিস্থিতিটি ব্যাখ্যা করেছিলেন।

হগওয়ার্টসে ডাম্বলডোর হ্যারির কাছে এরিসেডের আয়নার গোপন রহস্যটি উদ্ঘাটিত করেন। ডাম্বলডোর দাবি করেছিলেন, এই আয়নার সামনে দাঁড়ালে তিনি দেখেন যে তিনি "একজোড়া মোটা উলের মোজা ধরে আছেন।" শেষ বইতে এই ঘটনার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে হ্যারি বলেছিল যে ডাম্বলডোর তাকে যা যা বলেছিলেন তার মধ্যে সম্ভবত এটিই একমাত্র অসত্যভাষণ। আয়নাটিকে কোনোভাবে মন্ত্রপ্রভাবিত করে ডাম্বলডোর এর মধ্যে পরশপাথরটিকে এমনভাবে লুকিয়ে রাখেন একমাত্র যে "এটি খুঁজতে চাইবে... কিন্তু ব্যবহার করতে চাইবে না" সেই পাথরটি খুঁজে পাবে। যে রাতে প্রফেসর কুইরিনাস কুইরেল, হ্যারি, রন উইজলিহারমায়োনি গ্রেঞ্জার পাথরটি উদ্ধার করতে ডানজিওন বা ভূগর্ভস্থ কক্ষে প্রবেশ করে, সেই রাতে জাদু মন্ত্রকের নকল বার্তা পেয়ে ডাম্বলডোর হগওয়ার্টসের বাইরে যাত্রা করেন। পরে যাত্রাপথে তিনি উপলব্ধি করেন যে হগওয়ার্টসে তাঁর প্রয়োজন পড়েছে। তারপর যথাসময়ে ফিরে এসে তিনি হ্যারিকে কুইরেল ও ভল্ডেমর্টের হাত থেকে রক্ষা করেন। ডানজনের ঘটনার পর বইয়ের শেষ কথোপকথনে তিনি হ্যারিকে জানান যে ভল্ডেমর্ট কেন হ্যারিকে হত্যা করতে চায় তা জানার পক্ষে হ্যারি এখনও বেশ ছোটো।

হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য চেম্বার অফ সিক্রেটস উপন্যাসে ডাম্বলডোর সন্দেহ করেন যে টম রিডল কোনোভাবে ছাত্রছাত্রীদের উপর ঘটা হামলার সঙ্গে জড়িত। কারণ, তিনি দোষী সম্পর্কে প্রশ্ন করেছিলেন, “কে নয়, কিভাবে?” হ্যারি যখন রিডলের ডায়েরিতে পুরনো স্মৃতি প্রত্যক্ষ করছিল, তখন সেখানে অতীতের অপেক্ষাকৃত অল্পবয়স্ক ডাম্বলডোর উপস্থিত হন এবং রিডলকে জিজ্ঞাসা করেন যে সে ছাত্রছাত্রীদের উপর সংঘটিত হামলা সম্পর্কে কিছু জানে কিনা। উপন্যাসের শেষার্ধে চেম্বার অফ সিক্রেট খোলার পর ছাত্রছাত্রীদের উপর এক ব্যাসিলিস্কের হামলা শুরু হলে লুসিয়াস ম্যালফয় হগওয়ার্টসের হেডমাস্টারের পদ থেকে ডাম্বলডোরের অপসারণের জন্য বিদ্যালয়ের অন্য এগারোজন গভর্নরের উপর চাপ সৃষ্টি করেন। কিন্তু গভর্নরেরা যখন জানতে পারেন যে জিনি উইজলিকে চেম্বার অফ সিক্রেটে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে তখন তাঁরা ডাম্বলডোরকে পুনরায় বহাল করেন এবং তারপরই জানা যায় যে লুসিয়াস ডাম্বলডোরের অপসারণের জন্য গভর্নরদের উপর চাপ সৃষ্টি করেছিলেন।

হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য প্রিজনার অফ আজকাবান উপন্যাসের সূচনায় হত্যাকারী অনুমানে ধৃত সিরিয়াস ব্ল্যাক আজকাবান থেকে পালিয়ে গেলে ডাম্বলডোর বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের নিরাপত্তার খাতিরে ডিমেন্টরদের বিদ্যালয় চত্বরের প্রহরায় থাকার অনুমতি দিতে বাধ্য হন। ব্ল্যাক বিদ্যালয়ের মধ্যে ঢুকে পড়লে ডাম্বলডোর বিদ্যালয় ও তৎসংলগ্ন প্রাঙ্গনের সমস্ত প্রবেশপথ বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দেন। একটি কুইডিচ ম্যাচ চলাকালীন ডিমেনটরদের উপস্থিতির কারণে হ্যারি তার ঝাড়ু থেকে পড়ে গেলে ডাম্বলডোর স্বভাববিরুদ্ধভাবে ডিমেনটরদের উপর অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হন এবং নিজের ছড়ি ব্যবহার করে হ্যারিকে ধীরে ধীরে নিরাপদবভাবে মাটিতে নামিয়ে আনেন। বইয়ের শেষদিকে ডাম্বলডোর হারমায়োনিকে তার মন্ত্রক-অনুমোদিত টাইম-টার্নারটি ব্যবহার করে তিন ঘণ্টা সময় পিছিয়ে গিয়ে হিপোগ্রিফ বাকবিক ও সিরিয়াসকে তাদের অন্যায় মৃত্যুদণ্ডাজ্ঞার হাত থেকে উদ্ধার করতে বলেন।

চতুর্থ ও পঞ্চম উপন্যাস[সম্পাদনা]

গবলেট অফ ফায়ারে ডাম্বলডোরের ভূমিকায় মাইকেল গ্যামবন

হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য গবলেট অফ ফায়ার উপন্যাসে ডাম্বলডোর ট্রাইউইজার্ড টুর্নামেন্ট সম্পর্কে সকলকে অবহিত করেন। তিনি এই প্রতিযোগিতার বিচারকের পদটিও অলংকৃত করেন। গবলেট অফ ফায়ার থেকে হ্যারির নাম বেরিয়ে এলে ডাম্বলডোর রেগে না গিয়ে শান্তভাবেই হ্যারিকে জিজ্ঞাসা করেন সে নিজে অথবা কোনো বড়ো ছাত্রকে দিয়ে তার নাম গবলেটে প্রদান করেছিল কিনা। হ্যারি উত্তরে জানায় যে সে সেরকম কিছুই করেনি। ডাম্বলডোর তাকে বিশ্বাস করেন। উপন্যাসের শেষে ভল্ডেমর্টের মুখোমুখি হওয়া হ্যারি সেডরিক ডিগরির মৃতদেহটি জড়িয়ে ধরে ফিরে এলে ডাম্বলডোরের ভয়ের কারণটি বোঝা যায়। অ্যালাস্টার মুডি (প্রকৃতপক্ষে পলিজ্যুস পোশন ব্যবহার করা বার্টি ক্রাউচ জুনিয়র) হ্যারিকে ডাম্বলডোরের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করে দুর্গের মধ্যে তাঁর অফিসে নিয়ে যান। ডাম্বলডোরের তৎক্ষণাৎ সন্দেহ হয়। তিনি মিনার্ভা ম্যাকগোনাগলসেভেরাস স্নেইপকে নিয়ে হ্যারিকে উদ্ধার করতে উপস্থিত হন। ক্রাউচকে জেরা করে তিনি প্রকৃত ঘটনা জানতে পারেন। এরপর ডাম্বলডোর হ্যারির কাছ থেকে ভল্ডেমর্টের প্রত্যাবর্তনের প্রত্যক্ষ বিবরণ শোনেন। কয়েক ঘণ্টা পর হ্যারি ঘুম থেকে জেগে উঠে শোনে যে উইং-এ জাদুমন্ত্রী কর্নেলিয়াস ফাজের সঙ্গে ম্যাকগোনাগল ও ডাম্বলডোরের তর্কবিতর্ক চলছে। ডাম্বলডোর ও ফাজের মধ্যে মতানৈক্য হয় এবং ফাজ ভল্ডেমর্টের প্রত্যাবর্তনের কথা সম্পূর্ণ অস্বীকার করেন।

হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য অর্ডার অফ দ্য ফিনিক্স উপন্যাসে ভল্ডেমর্টের প্রত্যাবর্তনের কথা বলার জন্য ডাম্বলডোর উইজেনগামোটের চিফ ওয়ারলকের পদ থেকে অপসৃত হন, ইন্টারন্যাশনাল কনফেডারেশন অফ উইজার্ডস সংস্থার চেয়ারম্যান পদ থেকে নির্বাচনের মাধ্যমে তাঁকে পদচ্যুত করা হয় এবং তাঁর অর্ডার অফ মার্লিন ফার্স্ট ক্লাস সম্মানটিও প্রায় কেড়ে নেওয়া হয়। এরই মধ্যে তাঁকে এবং হ্যারিকে অবদমিত করে রাখার জন্য দ্য ডেইলি প্রফেট নামক সংবাদপত্রটি ব্যবহার করে মন্ত্রক। উপন্যাসের শুরুতে ফাজকে ক্রুদ্ধ করে তুলে ডাম্বলডোর হ্যারির বিচারসভায় একজন সাক্ষী (অ্যারাবেলা ফিগ) নিয়ে প্রবেশ করেন এবং হ্যারিকে বিদ্যালয় থেকে বিতাড়িত হওয়া থেকে রক্ষা করেন। ডাম্বলডোর তাঁর সহায়তায় এগিয়ে এসেছেন দেখে হ্যারির ভাল লাগে। কিন্তু ডাম্বলডোর যখন তার সঙ্গে কথা না বলে, এমনকি তার দিকে না তাকিয়েই চলে যান, তখন সে বিরক্ত হয়ে রেগে ওঠে।

এর পরের বছর, মন্ত্রক বাইশতম শিক্ষাসংক্রান্ত ডিক্রি জারি করে ডলোরাস আমব্রিজকে ডিফেন্স এগেনস্ট দ্য ডার্ক আর্টস শিক্ষক নিযুক্ত করে। ডাম্বলডোর এই পদে প্রার্থী নির্বাচন করতে পারেননি। আমব্রিজের মাধ্যমে ফাজ হগওয়ার্টস ও ডাম্বলডোরের উপর ক্ষমতার জাল বিস্তার করেন। তাঁর ভয় ছিল ডাম্বলডোর মন্ত্রকের ক্ষমতাচ্যুত করতে অপ্রাপ্তবয়স্ক জাদুকরদের একটি বাহিনী তৈরি করছেন। আমব্রিজ তাঁর ক্লাসে ছাত্রছাত্রীদের ব্যবহারিক প্রতিরক্ষামূলক অনুশীলন নিষিদ্ধ করেন। এর ফলে হ্যারি, হারমাইনি ও রন কয়েকজন বন্ধুকে একত্রিত করে ডাম্বলডোর’স আর্মি গঠন করে। মন্ত্রক এই বাহিনীর অস্তিত্ব সম্পর্কে অবহিত হলে, ডাম্বলডোর হ্যারিকে বিদ্যালয় থেকে বিতাড়িত হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করতে সংগঠনের সব মিথ্যা দায় নিজের কাঁধে নেন। ফলে দ্বিতীয় বারের জন্য তিনি হগওয়ার্টসের হেডমাস্টারের পদ থেকে অপসৃত হন।

এরপর দীর্ঘ সময় ডাম্বলডোরের কোনো সংবাদ পাওয়া যায় না। বইয়ের শেষে ডিপার্টমেন্ট অফ মিস্ট্রিজ বা রহস্য বিভাগে তিনি আবার উপস্থিত হন অর্ডারের সদস্যদের ডেথ ইটারদের হাত থেকে রক্ষা করতে। বেলাট্রিক্স লেস্ট্র্যাঞ্জ ছাড়া সকলকেই অ্যান্টি-ডিসঅ্যাপারিশন জিক্সের মাধ্যমে বেঁধে ফেলেন তিনি। ফলে তারা আর পালাতে পারে না। ভল্ডেমর্ট হ্যারির উপর অ্যাভাডা কেডাভ্রা শাপ নিক্ষেপ করলে ডাম্বলডোর তাকে রক্ষা করেন। ফলে ডার্ক লর্ডের সঙ্গে তাঁর ভয়ানক লড়াই শুরু হয়। ডাম্বলডোর ভল্ডেমর্টকে পরাভূত করলে ভল্ডেমর্ট হ্যারির দেহে প্রবেশ করেন। তিনি ভেবেছিলেন, ভল্ডেমর্টকে হত্যা করতে গিয়ে ডাম্বলডোর হ্যারিকেও হত্যা করবেন। কিন্তু হ্যারির শুদ্ধ হৃদয় ভল্ডেমর্টকে এতটাই যন্ত্রণা দেয় যে তিনি হ্যারির দেহ ছেড়ে বেরিয়ে আসতে বাধ্য হন। তারপর তাঁর উদ্দেশ্য ব্যর্থ হওয়াতে তিনি বেলাট্রিক্সের সঙ্গে পালিয়ে যান। ভল্ডেমর্ট অদৃশ্য হয়ে গেলে ডাম্বলডোর ফাজকে সমস্ত ঘটনার বর্ণনা দেন। তাঁকে হগওয়ার্টসের হেডমাস্টার পদে পুনর্বহাল করা হয় এবং সমস্ত হৃতসম্মান ফিরিয়ে দেওয়া হয়। বইয়ের একেবারে শেষে ডাম্বলডোর হ্যারিকে জানান যে ভল্ডেমর্ট হ্যারিকে নিজের সমকক্ষ হিসেবে নির্বাচন করেছেন এবং শেষে তাঁদের একজনকে অপর জনকে হত্যা করতে হবে।

ষষ্ঠ উপন্যাস[সম্পাদনা]

হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য হাফ-ব্লাড প্রিন্স উপন্যাসে ডাম্বলডোর হ্যারিকে প্রাইভেট ড্রাইভ থেকে তুলে নিয়ে যান হোরাস স্লাগহর্নের নিকট। হ্যারির মাধ্যমে তিনি স্লাগহর্নকে হগওয়ার্টসের শিক্ষকরূপে পুনরায় যোগ দেওয়ার জন্য পীড়াপীড়ি করেন। এই সময় হ্যারি লক্ষ্য করে ডাম্বলডোরের ডান হাতটি শুষ্ক ও কালো হয়ে গেছে। বিদ্যালয়-চলাকালীন ডাম্বলডোর হ্যারিকে নিজের অফিসে ডেকে পাঠিয়ে ভল্ডেমর্টের অতীত সম্পর্কে তাকে অবহিত করেন। বলেন, এসব কথা জানা হ্যারির পক্ষে অত্যন্তই প্রয়োজনীয়। এই পাঠের সময় হ্যারি অন্যান্যদের স্মৃতিতে অবগাহন করে ভল্ডেমর্টের অতীত এবং বিভিন্ন গণহত্যার মাধ্যমে তাঁর ক্ষমতায় আরোহণের নানা তথ্য জানতে পারে। জানা যায়, অমরত্ব লাভের আশায় ভল্ডেমর্ট ছয়টি হরক্রাক্স সৃষ্টি করেছেন। তাঁর আত্মার শেষ অংশটুকুই কেবল রয়েছে তাঁর শরীরে। তাই ভল্ডেমর্টকে হত্যা করতে হলে হ্যারিকে আগে তাঁর হরক্রাক্সগুলিকে ধ্বংস করতে হবে। পাঠ-চলাকালীনই হ্যারি ডাম্বলডোরকে সতর্ক করে দেয় যে অপর এক ছাত্র ড্রেকো ম্যালফয় বিদ্যালয়ে ভল্ডেমর্টের হয়ে কাজ করছে। ভল্ডেমর্ট ড্রেকোর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, যা হচ্ছে তার সম্পর্কে তাঁর জ্ঞান হ্যারির থেকে বেশিই আছে।

উপন্যাসের শেষদিকে ডাম্বলডোর হ্যারিকে একটি গুহায় নিয়ে যান। ডাম্বলডোরের বিশ্বাস ছিল যে এই গুহায় ভল্ডেমর্টের একটি হরক্রাক্স রাখা আছে। গুহায় হরক্রাক্সের পাত্র থেকে একটি পানীয় ডাম্বলডোরকে পান করতে হয়। সেটি পান করতে গিয়ে তিনি চিৎকার করে ওঠেন, তীব্র মানসিক যন্ত্রণায় কষ্ট পান এবং দুর্বল হয়ে পড়েন। পান করার পর তিনি জলের জন্য চিৎকার করতে থাকেন। হ্যারি অনন্যোপায় হয়ে হ্রদ থেকেই জল তুলে আনতে যায়। কিন্তু পাত্রটি জলে ডোবানো মাত্র লেকে বসবাসকারী |ইনফেরির দল হ্যারিকে জলের তলায় টেনে নিয়ে যায়। এদিকে জল পান করে ডাম্বলডোর কথঞ্চিত সুস্থ হন এবং চারপাশে অগ্নিবলয় সৃষ্টি করেন। লকেটটি নিয়ে ডাম্বলডোর ও হ্যারি চলে আসে হগসমেড গ্রামে। তাঁরা ফিরলে মাদাম রোজমার্তা তাঁদের জানান যে অ্যাস্ট্রোনমি টাওয়ারের উপর জাদুবলে ডার্ক মার্ক সৃষ্টি করা হয়েছে। হ্যারি ও ডাম্বলডোর দুজনেই রোসমার্টার ঝাড়ুতে চেপে টাওয়ারের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। টাওয়ারে হ্যারিকে ডাম্বলডোর দেহবন্ধনকারী শাপ দিয়ে ইনভিজিবিলিটি ক্লোকের মধ্যে বন্দী রাখেন। তারপর ডাম্বলডোরের সঙ্গে ড্রেকোর হত্যার প্লট নিয়ে কিছু কথাবার্তা হয়। এমন সময় অন্য কয়েকজন ডেথ ইটার টাওয়ারে প্রবেশ করে এবং ডাম্বলডোরকে হত্যা করার জন্য ড্রেকোকে উস্কাতে থাকে। ড্রেকো ডাম্বলডোরকে হত্যা করতে অসমর্থ হলে স্নেপ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন এবং কিলিং কার্স দিয়ে ডাম্বলডোরকে হত্যা করেন।

মৃত্যুর অব্যবহিত পরে হেডমাস্টারের অফিসে ডাম্বলডোরের প্রতিকৃতিটি জাদুবলে উপস্থিত হয়। ছাত্রছাত্রী, হগওয়ার্টের শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মচারী, জাদুমন্ত্রকের সদস্যগণ, ভূত, সেনট্যার ও মারপিপল প্রভৃতি সকলেই ডাম্বলডোরের অন্ত্যেষ্টিতে উপস্থিত হন। হগওয়ার্টসের হ্রদের ধারে বেগুনি মখমলে ঢেকে সাদা শ্বেতপাথরের সমাধিতে তাঁকে সমাহিত করা হয়। জানা গেছে যে ডাম্বলডোরই একমাত্র হেডমাস্টার যাঁকে বিদ্যালয়প্রাঙ্গনে সমাহিত করা হয়েছিল।

সর্বশেষ উপন্যাস[সম্পাদনা]

হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ডেথলি হ্যালোস এ রাউলিং ডাম্বলডোরের পূর্ববর্তী জীবন ও মৃত্যুর রহস্য প্রকাশ করেন। এই বইয়ের মাধ্যমে জানা যায় যে, অ্যালবাসের বাবা মা ছিলেন পার্সিভাল ও কেন্ড্রা ডাম্বলডোর। অ্যারিয়ানা ও অ্যাবেরফোর্থ নামে তার দুই ভাইবোনও ছিল। অ্যারিয়ানা যখন ছয় বছর বয়স ছিল, তখন কয়েকজন মাগল ছেলে তাকে আক্রমণ করে। এর ফলশ্রুতিতে, সে মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্থ হয়ে পড়ে এবং তার জাদুক্ষমতা তার নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। পার্সিভাল মগল ছেলেগুলোর উপর প্রতিশোধ নিতে গিয়ে গ্রেফতার হয় এবং আজকাবানে মারা যায়। এরপর ডাম্বলডোর পরিবার গড্রিক্স হলোতে চলে আসে। সেখানে, অ্যারিয়ানার নিয়ন্ত্রণহীন জাদুর বিস্ফোরণে একটি দূর্ঘটনা ঘটে, এতে কেন্ড্রা মারা যায়। ফলে, অ্যালবাস হয়ে যান পরিবারের কর্তা এবং তার ভাইবোনদের দেখাশোনার দায়িত্বও তার উপর বর্তায়।

কিছুদিন পর, গেলার্ট গ্রিন্ডেলওয়াল্ড নামে একজন তরুণ জাদুকর গড্রিক্স হলোতে আসে এবং অ্যালবাসের সাথে তার বন্ধুত্বের সৃষ্টি হয়। তারা দুইজনেই ছিলেন অসাধারণ প্রতিভাসম্পন্ন জাদুকর। তারা ডেথলি হ্যালোস সংগ্রহের মাধ্যমে পৃথিবীতে জাদুকরদের শাসন প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখতে থাকে্ন। কিন্তু এটি কখনোই বাস্তবায়িত হয়নি। কারণ, অ্যালবাস, অ্যাবেরফোর্থ ও গ্রিন্ডেলওয়াল্ডের মধ্যে এক সময় তর্কাতর্কি শুরু হয় এবং তারা লড়াই করা শুরু করে। এসময় তাদের যে কোন একজনের মন্ত্রের আঘাতে অ্যারিয়ানা মারা যায়। এই ঘটনার জন্য অ্যালবাস সারা জীবন অপরাধবোধে ভুগতেন। এই কারণে তিনি তিনবার মন্ত্রী হওয়ার সুযোগ পেয়েও তা গ্রহণ করেননি। বরং হগওয়ার্টসে শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নেন।

অবশেষে ১৯৪৫ সালে তিনি তখনকার সেরা কালো জাদুকর গ্রিন্ডেলওয়াল্ডকে পরাজিত করেন। এর মাধ্যমে তিনি এল্ডার ওয়ান্ডের মালিক হন। মৃত্যুর আগ মুহূর্তে ড্রেকো ম্যালফয় এর হাতে নিরস্ত্র হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি এ জাদুদন্ডটির মালিক ছিলেন। পটারদের মৃত্যুর আগে, ডাম্বলডোর জেমস পটারের কাছ থেকে অদৃশ্য হওয়ার আলখাল্লাটি নিয়েছিলেন, কারণ সেটিও একটি ডেথলি হ্যালোস ছিল। পরবর্তীতে তিনি এ আলখাল্লাটি হ্যারিকে দিয়ে দেন।

স্নেইপের শেষ স্মৃতির মাধ্যমে ডাম্বলডোরের মৃত্যুর প্রকৃত রহস্য উদঘাটিত হয়। হ্যারি জানতে পারে যে, অভিশপ্ত আংটি হরক্রাক্সটি উদ্ধার করার সময় ডাম্বলডোর একটি মারাত্মক ভুল করেছিলেন। তিনি হাত দিয়ে আংটিটি স্পর্শ করে ফেলেন। এসময় সেভেরাস স্নেইপ তাকে রক্ষা করেন। কিন্তু, এটা নিশ্চিত হয়ে যায় যে, ডাম্বলডোর এক বছরের মধ্যেই মারা যাবেন। এটা জানার পর, ডাম্বলডোর স্নেইপকে আদেশ করেন যেন, সে তাকে হত্যা করে। অর্থাৎ ডাম্বলডোরের মৃত্যু তাদের দুইজনের মধ্য পরিকল্পিত ছিল।

বইয়ের শেষ দিকে, হ্যারি যখন জীবন মৃত্যুর মাঝামাঝি একটি স্থানে অবস্থান করছিল, তখন ডাম্বলডোর শেষবারের মত আবির্ভূত হন এবং হ্যারির কাছে তার অতীত জীবনের কাহিনী ব্যাখ্যা করেন। এসময় ডাম্বলডোর হ্যারিকে জানান যে, হ্যারি ইচ্ছা করলে এখান থেকে পরবর্তী জীবনে যেতে পারবে, আবার ইচ্ছা করলে, ভলডেমর্টকে মোকাবেলা করার জন্য তার শরীরেও ফিরে যেতে পারবে। হ্যারি ভলডেমর্টকে পরাজিত করার পর, সে ডাম্বলডোরের পোর্ট্রেটের সাথে ডেথলি হ্যালোসগুলোর বর্তমান অবস্থান সম্পর্কে আলোচনা করে। এপিলগ হতে জানা যায় যে, হ্যারি তার দ্বিতীয় ছেলের নাম ডাম্বলডোর ও স্নেইপের নামানুসারে 'অ্যালবাস সেভেরাস পটার' রাখে।

চলচ্চিত্রে রূপায়ন[সম্পাদনা]

প্রথম দুটি চলচ্চিত্রে রিচার্ড হ্যারিস ডাম্বলডোরের ভূমিকায় অভিনয় করে। পরবর্তী চলচ্চিত্রসমূহেও তার অভিনয় করার কথা ছিল। তিনি অসুস্থ হওয়া সত্ত্বেও অভিনয় করে যেতে চেয়েছিলেন।[১৭] কিন্তু ২০০২ সালের ২৫ অক্টোবর তিনি মারা যান।[১৮]

স্যার ইয়ান ম্যাককেলেনকে ডাম্বলডোরের চরিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি এ চরিত্রে অভিনয় করতে রাজি হননি। কেননা লর্ড অফ দ্য রিংস চলচ্চিত্রসমূহে তিনি প্রায় একই ধরনের চরিত্র গ্যান্ডালফের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন।[১৯]

পরবর্তীকালে হ্যারিসের মৃত্যুর চার মাস পরে স্যার মাইকেল গ্যামবন এ চরিত্রের জন্য নির্বাচিত হন।[২০] গ্যামবন ডাম্বলডোরকে ফুটিয়ে তোলার জন্য হ্যারিসকে অনুসরণ করেননি, বরং তিনি তার নিজস্ব ব্যক্তিত্বের মাধ্যমে ডাম্বলডোরকে রূপায়ন করেন। তার মাঝে ওয়েলশের প্রভাব পরিলক্ষিত হয়।[২১][২২] গ্যামবন পরবর্তী সবগুলো চলচ্চিত্রে ডাম্বলডোরের চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

চরিত্রায়ন[সম্পাদনা]

শারীরিক বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

বইগুলোতে ডাম্বলডোরকে একজন আদর্শ জাদুকর হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। তিনি লম্বা ও পাতলা, তার কোমর পর্যন্ত রূপালি রঙের চুল এবং দাড়ি রয়েছে। তার চোখের রঙ বৈদ্যুতিক নীল রঙের। অ্যারিয়ানার শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে, অ্যাবেরফোর্থ তাকে তাদের বোনের মৃত্যুর জন্য দায়ী করে এবং তার নাকে আঘাত করে। এরপর থেকেই দৃশ্যত তার নাক ভাঙ্গা। তিনি অর্ধচন্দ্রাকৃতির চশমা পরেন। তিনি যখন তরুণ ছিলেন, তখন তার চুলের রঙ পিঙ্গল বা লালচে বাদামি বর্ণের ছিল। তার হাঁটুর উপর লন্ডন আন্ডারগ্রাউন্ডের ম্যাপের আকৃতির একটি কাটাদাগ রয়েছে। তিনি সবসময় এমনকি মাগলদের মধ্যেও চাঁদ ও তারাখচিত বিভিন্ন রঙ্গের আলখাল্লা পরেন।

ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

পুরো সিরিজে, ডাম্বলডোর "রক্তের বিশুদ্ধতা" বিষয়টিকে গুরুত্বহীন মনে করেন। তিনি বিশ্বাস করেন, একজন মানুষের চরিত্র তার জন্ম ও রক্তের বিশুদ্ধতা বা বংশের গৌরব দ্বারা বিচার করা যায় না; বরং তাকে বিচার করতে হয় তার কর্ম, যোগ্যতা ও মননশীলতা দিয়ে। তার মতে, "কোন একজন কোথায় জন্মগ্রহণ করল সেটা কোন বড় ব্যাপার নয়; বড় ব্যাপার হচ্ছে, সে কি হিসেবে গড়ে উঠল।" ভলডেমর্ট ডাম্বলডোরকে মাডব্লাড ও মাগলদের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে আখ্যায়িত করে। ডাম্বলডোর ভলডেমর্টকে তার নাম ধরেই ডাকেন এবং তিনি অন্যদেরকেও এ ব্যাপারে উৎসাহিত করেন। তবে তিনি ভলডেমর্টের মুখোমুখি হলে তাকে টম নামে সম্বোধন করেন।

বইগুলোতে অনেক চরিত্রই মনে করে যে, ডাম্বলডোরের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা হল, তিনি বিশ্বাসের অযোগ্য অনেককেও বিশ্বাস করে থাকেন। অন্য চরিত্ররা এ নিয়ে তাকে সমালোচনা করলেও, কখনো প্রশ্নবিদ্ধ করে নি। যদিও, সিরিজের শেষে জানা যায় যে, ডাম্বলডোর উপযুক্ত কারণেই এ ধরনের লোকদেরকে বিশ্বাস করতেন। এছাড়া, তিনি সবসময়ই জানতেন আসলে ঠিক কি ঘটতে চলেছে, যদিও অন্যরা তা বুঝতে পারত না। রাউলিং এর মতে, "যদিও ডাম্বলডোরকে প্রথম ছয়টি বইয়ের জন্য অপরিহার্য মনে হয়, তিনি আসলে একজন ম্যাকিয়াভেলিয়ান চরিত্র। তিনি সবসময়েই জানেন, কি করতে হবে।"[২৩]

অসাধারণ মেধাবী, জ্ঞানী ও বিচক্ষণ জাদুকর হওয়া সত্ত্বেও ডাম্বলডোরকে খুবই এক্সেন্ট্রিক বা খেয়ালি মনের ধিকারী হিসেবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। যেমন, প্রথম বইয়ে, তিনি ঘোষণা করেন যে, তিনি স্কুলের উদ্দেশ্যে "কয়েকটি কথা" বলতে চান, এরপর তিনি যা বলেন তা হলঃ "নিটউইট, ব্লুবার, অডমেন্ট, টুইক।" ডাম্বলডোর প্রায়ই হাস্যরসাত্মক কথা বলেন, এমনকি মাঝে মাঝে খামখেয়ালিপূর্ণ মন্তব্যও করে থাকেন, বিশেষ করে সংঘাতের সময়, যা অনেকসময় তার বিরুদ্ধবাদীদের ক্ষুব্ধ করে তোলে। তিনি সবসময়ই অসাধারণ ধৈর্য ও সহনশীল, এমনকি তার শত্রুদের প্রতিও। তিনি সঙ্গীত ভালবাসেন এবং সঙ্গীতকে তিনি সকল জাদুর উর্ধে কল্পনা করেন।[২৪]

২০০৫ সালে এক সাক্ষাৎকারে রাউলিং বলেন, "অসীম বিচক্ষণতা কাউকে আবেগতাড়িত ভুল থেকে রক্ষা করতে পারে না, এবং আমি মনে করি, ডাম্বলডোর হলেন এর উদাহরণ।"[২৫]

ডাম্বলডোর মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত, উইজেনগেমোটের চিফ ওয়ারলক এবং ইন্টারন্যাশনাল কনফেডারেশন অফ উইজার্ডসের সুপ্রিম মাগওয়াম্প পদে অধীষ্ঠিত ছিলেন। তার জীবদ্দশায় তিনি অসংখ্যবার জাদুমন্ত্রী হওয়ার আমন্ত্রণ ফিরিয়ে দিয়েছেন। কারণ, তার অতীত জীবনের অভিজ্ঞতার আলোকে, ক্ষমতার ব্যাপারে তিনি নিজেকে বিশ্বাস করতেন না। অসাধারণ জাদুক্ষমতার জন্য তিনি 'অর্ডার অফ মার্লিন, ফার্স্ট ক্লাস' সম্মাননা লাভ করেন।

জাদুক্ষমতা ও দক্ষতা[সম্পাদনা]

তরুণ বয়স থেকেই, ডাম্বলডোরের অসাধারণ প্রতিভা ও জাদুক্ষমতা প্রকাশ হতে থাকে। হগওয়ার্টসে অধ্যয়নকালে, ডাম্বলডোর হগওয়ার্টসের ইতিহাসের সবচেয়ে মেধাবী ছাত্র হিসেবে পরিচিতি পান এবং স্কুল কর্তৃক প্রদত্ত সকল পুরস্কার নিজের করে নিতে থাকেন। তার N.E.W.T. পরীক্ষায় তিনি যা যা করেন, কোন জাদুদন্ড এর আগে তা করতে সক্ষম হয়নি। রাউলিং বলেছেন, ডাম্বলডোর মূলত স্বশিক্ষিত। যদিও তিনি হগওয়ার্টসে কিছু অসাধারণ শিক্ষক পেয়েছিলেন।[২৬] এতদসত্ত্বেও, ডাম্বলডোরের মধ্যে কোন অহংকার বা অহমিকাবোধ নেই। এছাড়া তিনি তার যোগ্যতা, বুদ্ধিমত্তা ও ক্ষমতা সম্পর্কে সম্পূর্ণ সচেতন। হাফ-ব্লাড প্রিন্সে তিনি হ্যারিকে বলেন যে, তিনিও ভুল করেন। তবে যেহেতু তিনি অধিকাংশ লোকের চেয়ে চালাক, তার ছোট একটি ভুল অনেক বড় ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

ডাম্বলডোর নন ভার্বাল স্পেলের ব্যবহারে অত্যন্ত দক্ষ। তিনি একজন রসায়নবিদও বটে। তিনি একসময় বিশ্ববিখ্যাত রসায়নবিদ ও পরশপাথরের স্রষ্টা নিকোলাস ফ্লামেলের সহকর্মীও ছিলেন। ডাম্বলডোর ড্রাগন রক্তের বারটি ব্যবহার আবিষ্কার করেন। তার পেট্রোনাস হল ফিনিক্স পাখি।[২৭] ডাম্বলডোর পেট্রোনাস ব্যবহার করে সংবাদ আদান প্রদান করার পদ্ধতিও আবিষ্কার করেন।

ডাম্বলডোরের পছন্দের উপাদান হল আগুন। তিনি অদৃশ্য হওয়ার আলখাল্লা ব্যবহার না করেই শক্তিশালী ডিসইলিয়শন চার্ম ব্যবহারের মাধ্যমে অদৃশ্য হতে পারেন। তিনি অকলামেন্সি ও লেজিলিমেন্সিতেও অত্যন্ত দক্ষ। ডাম্বলডোর ট্রান্সফিগারেশনেও বেশ দক্ষ কেননা, তিনি হেডমাস্টার হওয়ার পূর্বে হগওয়ার্টসে ট্রান্সফিগারেশন বিষয়ের শিক্ষক ছিলেন। এছাড়া চার্মস ও পোশনেও তিনি দক্ষ ছিলেন। ডাম্বলডোর ভলডেমর্ট পূর্ববর্তী যুগের ভয়ঙ্কর কালো জাদুকর গ্রিন্ডেলওয়াল্ডকে পরাজিত করার জন্য বিখ্যাত। ডাম্বলডোর মার্মিশ (মারপিপলদের ভাষা) ও গবলডেগুক (গবলিনদের ভাষা) এ অত্যন্ত পারদর্শী।[২৮]

ডাম্বলডোর চকলেট ফ্রগ কার্ডেও বর্ণিত হয়েছেন। যা একটি গৌরবজনক বিষয়।[২৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Dumbledor" in Merriam–Webster
  2. Rowling, J. K. (1999-03-19)। "Barnes and Noble interview, March 19, 1999"। AccioQuote!। সংগৃহীত 2007-02-28 
  3. Albus Dumbledore. Winter Bourne. Retrieved 1 September 2007.
  4. Archaeology. Southlos.gov.uk. Retrieved 1 September 2007.
  5. Barnes and Noble & Yahoo! chat with J.K. Rowling, barnesandnoble.com, 20 October 2000
  6. J K Rowling at the Edinburgh Book Festival
  7. "J.K. Rowling Interview," CBCNewsWorld: Hot Type, July 13, 2000
  8. Mzimba, Lizo, moderator. Chamber of Secrets DVD interview with Steve Kloves and J.K. Rowling, February 2003.
  9. "Living with Harry Potter"
  10. Fry, Stephen, interviewer: J.K. Rowling at the Royal Albert Hall, 26 June 2003.
  11. Lydon, Christopher. J.K. Rowling interview transcript, The Connection (WBUR Radio), 12 October 1999
  12. Hermione gives this information to Harry in Philosopher's Stone on the Hogwarts Express.
  13. "Rowling dubs Dumbledore of 'Harry Potter' books as gay"। সংগৃহীত 2007-10-20 
  14. "J.K. Rowling outs Hogwarts character"। Associated Press। 2007-10-20। সংগৃহীত 2007-10-22 
  15. "JK Rowling says wizard Dumbledore is gay"Reuters। 2007-10-20। সংগৃহীত 2008-08-02 
  16. Amini, Adeel (2008-03-09)। "Minister of Magic"। Mugglenet.com। সংগৃহীত 2008-03-14 
  17. Jeff Jensen (28 October 2005)। "A Look Back"Entertainment Weekly। সংগৃহীত 10 October 2007 
  18. "Actor Richard Harris dies"। BBC News। 25 October 2002। আসল থেকে 6 December 2002-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত 3 March 2010 
  19. Michael Hinman (29 November 2007)। "No Regrets For McKellen In Turning Down Harry Potter"। SyFy Portal। সংগৃহীত 30 November 2007 
  20. "Dumbledore and Sirius cast for Azkaban"Newsround। 21 February 2003। সংগৃহীত 10 October 2007 
  21. Vaughan, Johnny; Henry, Lenny. (2004). Head to Shrunken Head. [DVD]. Warner Bros. Pictures.
  22. Siobhan Synnot (30 May 2004)। "Olivier, Dumbledore and two broken ribs"The Scotsman। সংগৃহীত 30 November 2007 
  23. Harry Potter's Author J. K. Rowling Meets With L.A. Students, Plots Her Next Move Retrieved on 16 April 2008.
  24. টেমপ্লেট:HP1ref, chapter 7
  25. Spartz, Emerson, and Melissa Anelli. "MuggleNet and The Leaky Cauldron interview Joanne Kathleen Rowling" Part 1, 16 July 2005. Retrieved on 21 October 2007.
  26. Spartz, Emerson, and Melissa Anelli. "MuggleNet and The Leaky Cauldron interview Joanne Kathleen Rowling" Part 3, 16 July 2005. Retrieved on 21 October 2007.
  27. "J. K. Rowling at the Edinburgh Book Festival", www.accio-quote.org, 15 August 2004. Retrieved on 21 October 2007.
  28. "Webchat with J.K. Rowling", Harry Potter at Bloomsbury, 30 July 2007. Retrieved on 21 October 2007.
  29. http://www.jkrowling.com/textonly/en/wotm.cfm

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]