বিষয়বস্তুতে চলুন

৪ কোর (পাকিস্তান)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
৪ কোর
সক্রিয়১৯৬৫ - বর্তমান
দেশ পাকিস্তান
আনুগত্য পাকিস্তান সেনাবাহিনী
শাখাপাকিস্তান সেনাবাহিনী
ধরনকোর (কয়েকটি ডিভিশন মিলে তৈরি সেনা ফরমেশন)
ভূমিকাবড় ধরনের যুদ্ধ
আকারপ্রায় ৪০,০০০ সদস্য (সৈনিক, কর্মকর্তা এবং জেনারেলসহ)
কোর সদর-দপ্তরলাহোর, পাঞ্জাব, পাকিস্তান
ডাকনামলাহোর কোর

৪ কোর হচ্ছে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর একটি কোর (কয়েকটি ডিভিশন মিলে তৈরি একটি সেনা ফরমেশন/ফিল্ড কোর)। ষাটের দশকে তৈরি হওয়া এই কোর ছিলো স্বাধীন দেশ পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর দ্বিতীয় কোর।[১]

ইতিহাস

[সম্পাদনা]

পাকিস্তান সেনাবাহিনী পঞ্চাশের দশকেই (১৯৫৭ সালে) তাদের প্রথম কোর (১ কোর) তৈরি করে ফেলে এবং আরো কয়েকটি কোর বানানোর পরিকল্পনা তখন সেনাপ্রধান জেনারেল আইয়ুব খানের মাথায় ছিলো; আইয়ুব ১৯৫৮ সালে পাকিস্তানের সরকার পদে অধিষ্ঠিত হলে পাকিস্তান সেনাবাহিনীকে শক্তিশালী এবং আধুনিকায়নের ক্ষেত্রে আগের চেয়ে আরো বেশি মনোযোগী হয়েছিলেন, তিনি জেনারেল মুসা খানকে নতুন সেনাপ্রধান হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিলেন ১৯৫৮ সালেই এবং মুসাও চাচ্ছিলেন যে পাকিস্তান সেনাবাহিনী প্রতিবেশী দেশ ভারতের সঙ্গে যুদ্ধ করার জন্য আকারে আরো বড় হোক।

ষাটের দশকের মাঝদিকে হঠাৎ ভারতের সঙ্গে পাকিস্তানের যুদ্ধ বাঁধে, তখন পাকিস্তানের হাতে ছিলো মাত্র একটি কোর (১ কোর); আরো বেশ কয়েকটি কোর এবং ফিল্ড আর্মি (কয়েকটি কোর দিয়ে গঠিত) বানানোর পরিকল্পনা সেনাবাহিনী সদর-দপ্তরে চলছিলো যদিও পাকিস্তান সেনাবাহিনীর তখন অত ডিভিশন ছিলোনা যে আরো একটি কোর এবং আরো উঁচু পর্যায়ে তারা ফিল্ড আর্মি তৈরি করবে।

১৯৬৫ সালের যুদ্ধ শেষে মাত্র একটি ব্রিগেড নিয়ে গঠিত হয়েছিলো ৪ কোর, এবং ৬ষ্ঠ সাঁজোয়া ডিভিশন (নবগঠিত) এই কোরে যুক্ত হয় ১৯৬৬ সালে, ১৮তম এবং ২৩তম পদাতিক ডিভিশন পরে এই কোরের অধীনে যুক্ত হয়; লেঃ জেনারেল আতিকুর রহমান এই কোরের প্রথম অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। ১৯৭১ সালে ভারতের সঙ্গে যুদ্ধের সময় কোরের অধিনায়ক ছিলেন লেঃ জেনারেল বাহাদুর শের।[২] শুরু থেকেই এই কোরের সদর-দপ্তর পাঞ্জাব প্রদেশে ছিলো।

তথ্যসূত্র

[সম্পাদনা]
  1. আমার নিজের দেশেই আমি বিদেশীঃপূর্ব পাকিস্তান (১৯৬৯-৭১), লেখকঃ মেজর-জেনারেল খাদিম হোসেন রাজা
  2. "History of Pakistan Army"