নতুন করোনাভাইরাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
উপরের চিত্রটি হ'ল "Novel coronavirus sars-cov-2"

নতুন করোনাভাইরাস (এন-কভি বা nCoV) হল যেকোনো নতুন আবিষ্কৃত করোনাভাইরাস যার চিকিৎসীয় তাৎপর্য এখনো বিশ্লেষিত না হওয়ায় নামকরণ সম্পন্ন হয়নি। করোনাভাইরাস সাধারণত মানুষের মধ্যে এন্ডেমিক এবং এর সংক্রমণ সাধারণ (সাধারণ ঠাণ্ডা, যা মানব করোনাভাইরাস দ্বারা ১৫% ক্ষেত্রে সংঘটিত হয়) হয়, কিন্তু কিছু আন্তঃপ্রজাতি সঞ্চালনের ফলে সংক্রমণযোগ্য প্রকরণ তৈরি হচ্ছে যা ভাইরাসজনিত নিউমোনিয়া এবং কিছু মারাত্মক ক্ষেত্রে তীব্র শ্বাসকষ্টমূলক রোগলক্ষণসমষ্টি তৈরি করে।[১][২][৩]

প্রজাতি[সম্পাদনা]

নিম্ন ভাইরাসগুলোকে প্রাথমিকভাবে "নভেল করোনাভাইরাস" নাম দেওয়া হতে পারে। এর সাথে অনেক সময় আবিষ্কারের বছর যুক্ত হয়, যতদিন না এর নতুন নাম দেওয়া হচ্ছে:

মানুষের মধ্যে রোগ সৃষ্টিকারী নভেল করোনাভিরিডির প্রজাতিসমূহ
প্রাথমিক নাম আনুষ্ঠানিক নাম অনানুষ্ঠানিক নাম মূল হোস্ট আবিষ্কারস্থল সংঘটিত রোগ
২০১৯-এনকভি (2019-nCoV) সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোম করোনাভাইরাস ২ (সার্স-কভি-২)[ক][৪][৫] সার্স ভাইরাস ২ বাদুর উহান, চীন করোনাভাইরাস রোগ ২০১৯ (কোভিড-১৯)[খ][৬]
২০১২-এনকভি (2012-nCoV) মিডল ইস্ট রেসপিরেটরি সিনড্রোম-সম্পর্কিত করোনাভাইরাস (মার্স-কভি)[গ] মিডল ইস্ট ভাইরাস, মার্স ভাইরাস, ক্যামেল ফ্লু ভাইরাস উট, বাদুর জেদ্দা, সৌদি আরব মিডল ইস্ট রেসপিরেটরি সিনড্রোম (মার্স)
২০০৫-এনকভি (2005-nCoV) মানব করোনাভাইরাস এইচকেইউ১ (এইচকভি-এইচকেইউ১) নিউ হ্যাভেন ভাইরাস ইদুর হংকং, চীন নামকরণ করা হয়নি, খুব বিরল কিছু ক্ষেত্রে বলা হয় করোনাভাইরাস রেসপিরেটরি সিনড্রোম-এর সাধারণ প্রকরণ
২০০২-এনকভি (2002-nCoV) সিভিয়ার এ্যাকিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোম (সার্স-কভি-২)[ক] সার্স ভাইরাস ভাম, বাদুর ফোসান, চীন সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোম (সার্স)
  1. এই ভাইরাস স্বতন্ত্র কোনো প্রজাতি নয়, বরং একটি SARSr-CoV-এর প্রকরণ
  2. সমার্থক শব্দের মধ্যে আরো আছে ২০১৯ নভেল করোনাভাইরাস নিউমোনিয়া, anilingosa sinensium tedrosi এবং উহান রেসপিরেটরি সিনড্রোম
  3. প্রকরণের মধ্যে রয়েছে HCoV-EMC/২০১২ এবং লন্ডন১ নভেল কভি/২০১২

চারটি ভাইরাসই করোনাভাইরাস গোত্রের বেটাকরোনাভাইরাস গণভুক্ত।

নামকরণ[সম্পাদনা]

"নভেল" শব্দের অর্থ "পূর্বের পরিচিত প্যাথোজেনের নতুন সদস্য" (অর্থাৎ পরিচিত ভাইরাস গোত্রের নতুন সদস্য)। ২০১৫ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যে সংক্রামক রোগ নামকরণের নতুন নীতিমালা প্রকাশ করে তার মধ্যে এই শব্দ ব্যবহারের রীতি অন্তর্ভুক্ত ছিল। ঐতিহাসিকভাবে কিছু রোগের নাম করা হত অবস্থান, নির্দিষ্ট আক্রান্ত কেউ বা নির্দিষ্ট প্রজাতি অনুযায়ী।[৭] বর্তমানে ডব্লিউএইচও এই রীতিকে নিরুৎসাহিত করে।[৮]

আইসিটিভি এবং ডব্লিউএইচও-এর আইসিডি মিলিতভাবে নতুন ভাইরাসের নামকরণ করে থাকে।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Murray and Nadel (2010). Chapter 31.
  2. Cunha (2010). pp. 6–18.
  3. Melmed 2011, পৃ. 636
  4. Gorbalenya, Alexander E. (১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Severe acute respiratory syndrome-related coronavirus – The species and its viruses, a statement of the Coronavirus Study Group"bioRxiv (ইংরেজি ভাষায়): 2020.02.07.937862। ডিওআই:10.1101/2020.02.07.937862 
  5. "Coronavirus disease named Covid-19"। BBC News। .
  6. According to ICD-10 the disease is referred to as "2019-new coronavirus acute respiratory disease [temporary name]". It is not listed in ICD-11.
  7. Ghosh R, Das S. A Brief Review of the Novel Coronavirus (2019-Ncov) Outbreak. Global Journal for Research Analysis. 2020; 9 (2).
  8. "World Health Organization Best Practices for the Naming of New Human Infectious Diseases" (PDF)। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। ২৬ মার্চ ২০২০। সংগ্রহের তারিখ মে ২০১৫  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)