হার্বিন আন্তর্জাতিক বরফ এবং তুষার ভাস্কর্য উৎসব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হারবিন বরফ উৎসব
Ice Snow World.jpg
২০০৪ এর হার্বিন আন্তর্জাতিক বরফ এবং তুষার উৎসব
ধরণশীত উত্সব
তারিখসমূহ০৫ জানুয়ারি - ২৫ ফেব্রুয়ারি
অবস্থান (সমূহ)হেলোজিঙ্গ, হার্বিন, চীন
কার্যকাল১৯৬৩ - বর্তমান
ওয়েবসাইট
www.isharbin.com
হার্বিন আন্তর্জাতিক বরফ এবং তুষার ভাস্কর্য উৎসব
Harbin Ice Festival.jpg
হারবিন বরফ উৎসব
চীনা 哈尔滨国际冰雪节

হারবিন বরফ উৎসব (চীনা: 哈尔滨国际冰雪节; ফিনিন: Hā'ěrbīn Guójì Bīngxuě Jié) হচ্ছে চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের শহর হার্বিনের শীতল-স্থাপত্য। জিলিয়ান প্রদেশের হার্বিন শহরের জিনগুয়েতান ন্যাশনাল ফরেস্ট নামের লেক ঘেরা পার্কে এ উত্সবের আয়োজন করা হয়ে থাকে। প্রতিবছর জানুয়ারির ৫ তারিখ থেকে হার্বিনে প্রদেশের হেলোজিঙ্গ শহরে আয়োজিত হয় হার্বিন ইন্টারন্যাশনাল আইস অ্যান্ড স্নো স্কাল্পচার ফেস্টিভ্যাল এবং এটি চলে ফেব্রুয়ারি ২৫ তারিখ পর্যন্ত। উৎসবের গোড়াপত্তন হয়েছিল ১৯৬৩ সালে। তবে টানা আয়োজিত হচ্ছে ১৯৮৫ সাল থেকে।[১][২]

তাপমাত্রা[সম্পাদনা]

সাইবেরিয়ার খুব কাছেই হারবিন শহর। গ্রীষ্মে হারবিনের গড় তাপমাত্রা থাকে ২১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শীতকালে থাকে মাইনাস ১৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি। বার্ষিক সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নামতে পারে মাইনাস ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত। আর হারবিন শহরের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে সোংহুয়া নদী।[১]

বরফের স্থাপত্য[সম্পাদনা]

হারবিন উৎসবে থাকে নানা আয়োজন। তার মধ্যে প্রধান আকর্ষণ হলো বরফের অট্টালিকা আর স্থাপত্য। এ ছাড়া থাকে তুষার দিয়ে গড়া পৌরাণিক সব চরিত্র, বিভিন্ন প্রাণীর অবয়ব কিংবা প্রাচীন প্রাসাদ। সোংহুয়া নদী থেকে দুই-তিন ফুট চওড়া বরফের চাঁই এনে তৈরি করা হয় অট্টালিকাগুলো। বরফ কাটতে ব্যবহূত হয় বিশেষ বিশেষ বাটালি, কুঠার ও করাত। আর বরফগুলো আলোকভেদী করার জন্য শিল্পীরা ব্যবহার করেন বিশুদ্ধ পানি। অট্টালিকাগুলো দাঁড়িয়ে গেলে সাজানো হয় বর্ণিল আলো দিয়ে। ব্যবহার করা হয় লেজার। হারবিন ইন্টারন্যাশনাল আইস অ্যান্ড স্নো স্কাল্পচার ফেস্টিভ্যালে থাকে কয়েকটি বিভাগ। একেকটি বিভাগে চলে একেক রকম ‘শীতল প্রদর্শন’। যেমন আইস অ্যান্ড স্নো ওয়ার্ল্ডে গেলে দেখা মেলে দুনিয়ার সবচেয়ে বড় ও মজার মজার সব বরফ-ভাস্কর্য। ঝাওলিন পার্কে গেলে চোখ জুড়াবে বরফের বিচিত্র লণ্ঠন দেখে। তুষারের অন্য রূপ চোখে পড়ে সান আইল্যান্ড সিনিক এরিয়ায়। তুষার-জাদুঘরও আছে।[১]

গ্যালারি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. হার্বিনের বরফ উৎসব,মাহফুজ রহমান, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ২৫-০১-২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।
  2. বরফ ভাস্কর্য,কালের কণ্ঠ। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ০৫-০১-২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]