সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search

সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: প্রাণী জগৎ
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: পক্ষী
বর্গ: Passeriformes
পরিবার: Nectariniidae
গণ: Aethopyga
প্রজাতি: A. gouldiae
দ্বিপদী নাম
Aethopyga gouldiae
(Vigors, 1831)

সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি (বৈজ্ঞানিক নাম: Cinnyris Cinnyris) যা টোনা বা টুনি হিসেবেও পরিচিত মৌটুসি জাতের পাখি। বাহারি এই পাখির রঙের মেলা শুধু পুরুষ পাখি বা টোনার দেহেই দেখা যায়। অন্যান্য মৌটুসি-নীলটুনির মতো টুনির দেহ অনুজ্জ্বল জলপাই রঙের।[২]

আকার[সম্পাদনা]

সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি

সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি পাখির ওজন মাত্র ছয় গ্রাম। ঠোঁটের আগা থেকে লেজের ডগা পর্যন্ত লম্বায় মাত্র ১৪-১৫ সেন্টিমিটার, যার মধ্যে লেজ চার ও ঠোঁট দুই সেন্টিমিটার। লেজ ছোট ও গোলাকার। পেট হালকা হলদে। মাথা ও মুখমণ্ডল ধূসর বা নীলচে ধূসর। অন্যদিকে, বাহারি টোনার মাথার চাঁদি, মুখমণ্ডল, কান-ঢাকনি ও গলা ধাতব নীল থেকে বেগুনি। মাথার পেছন, ঘাড়, পিঠ ও দেহের ওপরটা সিঁদুরে লাল। ডানার ওপরটা জলপাই। বুক-পেট ও লেজের নিচের দিক হলুদ। লেজের পালক নীল। এদের চোখ বাদামি রঙের। ঠোঁট, পা ও নখ কালো।[২]

স্বভাব[সম্পাদনা]

সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি গানের পাখি। এরা চমৎকার জিট্-জিট্ স্বরে গান গায়। বেশ চঞ্চল, বেশিক্ষণ এক জায়গায় থাকে না। বাতাসে ঢেউ খেলিয়ে আলোর ঝিলিকের মতো একগাছ থেকে আরেকগাছে এবং ফুলে ফুলে উড়ে বেড়ায়।[২]

খাদ্য[সম্পাদনা]

এই পাখি অন্যান্য মৌটুসির মতো শূন্যে স্থির থেকে ফুলের মধু পান করে। মধুর অভাবে ছোট ছোট পোকা ও মাকড়সাও খেতে পারে।[২]

প্রজননকাল[সম্পাদনা]

সাধারণত এপ্রিল থেকে আগস্টের মধ্যে প্রজনন করে। গাছের পাতায় মাকড়সার জাল ও শেওলা দিয়ে ছোট ঝুলন্ত বাসা বানায়। বাসার একদিকে থাকে প্রবেশ পথ। তাতে দু-তিনটি সাদাটে ডিম পাড়ে স্ত্রী পাখি, যার ওপর থাকে হালকা লালচে-বাদামি ছিট। ডিম ফোটে ১৪-১৫ দিনে। স্ত্রী ও পুরুষ পাখি একত্রে মিলে ছানাদের খাওয়ায়।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. BirdLife International (২০১২)। "Aethopyga gouldiae"বিপদগ্রস্ত প্রজাতির আইইউসিএন লাল তালিকা। সংস্করণ 2012.1প্রকৃতি সংরক্ষণের জন্য আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১২ 
  2. দেখা মিলল সিঁদুরে হলুদ মৌটুসির,আ ন ম আমিনুর রহমান, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ১০-০৪-২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।