সাদা বাঘ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মাদ্রিদ চিড়িয়াখানায় একটি সাদা বাঘ
(video) জাপানের একটি চিড়িয়াখানায় সাদা বাঘ

সাদা বাঘ হল একধরনের বেঙ্গল টাইগার যার শরীরের বর্ণ সাদা। এই ধরনের বাঘ ভারতের আসাম, বিহার এবং অন্যান্য কিছু রাজ্যে মাঝেমধ্যে দেখা যায়।[১] সাদা বাঘ বা ধোলাই বাঘ বাংলার বাঘের একটি রঙ্গক রূপ। এটি সুন্দরবন অঞ্চলের মধ্য প্রদেশ, আসাম, পশ্চিমবঙ্গ এবং বিহারের সময়কালে বিশেষ করে বন্যায় সুন্দরবন অঞ্চলে এবং বিশেষ করে পূর্ব রাজ্য রেওয়াতে দেখা জেত। [1] এ ধরনের বাঘের মধ্যে রয়েছে বাঙালি বাঘের মত কালো দাগ, তবে দু একটি সাদা বাঘ কাছাকাছি এমন কোট বহন করে।

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

সাদা রয়েল বেঙ্গল বাঘ তাদের শরীরের রঙের কারণে বৈশিষ্টপূর্ণ।

সাদা বাঘ

এই জাতের বাঘের বৈজ্ঞানিক নাম Panthera tigris tigris (যেহেতু এরা বেঙ্গল টাইগার এর বর্ণসংকর) তাদের শরীরের সাদা লোমের কারণ ফিওমেলানিনের অনুপস্থিতি। এটির উপস্থিতির কারণে অন্যান্য রয়েল বেঙ্গল বাঘের লোম সাধারণত কমলা বা বাদামি রঙের হয়ে থাকে। অন্যান্য রয়েল বেঙ্গল বাঘের সাথে তুলনা করলে দেখা যায় যে, সাদা বাঘ তুলনামূলকভাবে দ্রুত বৃদ্ধি পায় এবং তাদের ওজনও হয় বেশি। জন্মের সময়ও তারা তুলনামূলকভাবে কিছুটা বড় থাকে। ২-৩ বছর বয়সে সাদা বাঘ প্রাপ্ত বয়স্ক হয়ে থাকে। সাদা পুরুষ বাঘ সাধারণত ওজনে ২০০ থেকে ২৬০ কেজি এবং দৈর্ঘ্যে ৩ মিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। জেব্রার মত সাধা বাঘেরও সাদা-কালো দাগগুলো আঙুলের ছাপের মত অনন্য হয়ে থাকে; একটি বাঘের নকশার সাথে অন্য কোন বাঘের মিল খুজে পাওয়া যায় না। একটা সাদা বাঘ জন্মের জন্য মা ও বাবা উভয় বাঘকেই সাদা রঙের হএ হবে। ১০০০০ বাঘ জন্মের ক্ষেত্রে কেবল একটি বাঘ প্রাকৃতিকভাবে সাদা রঙের হয়ে থাকে। বর্তমানে বিশ্বে কয়েক শত সাদা বাঘের অস্তিত্বের খবর জানা গেছে, যার মধ্যে প্রায় একশটি রয়েছে ভারতে। তবে সাদা বাঘের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়ছে। ভারতের উরিষ্যা রাজ্যের নন্দনকানন চিড়িয়াখানায় ৩৪টি সাদা বাঘ রয়েছে। এখানে জন্ম হওয়া বেশ কয়েকটি সাদা বাঘ ভারতের অন্যান্য চিড়িয়াখানা এবং বিভিন্ন দেশে পাঠানো হয়েছে।

সাদা রঙের লোমের কারণে এধরনের বাঘ বেশ জনপ্রিয়। সাদা রঙের সাইবারিয়ান বাঘের অস্তিত্ব বৈজ্ঞানিকভাবে প্রতিষ্ঠিত নয়, যদিও বিভিন্ন সময় সাইবেরিয়া অঞ্চলে সাদা বাঘ দেখার খবর পাওয়া গেছে।

সাদা বাঘ

ডোরাকাটাযুক্ত সাদা বাঘ[সম্পাদনা]

অধিকাংশ সাদা বাঘই এরকম, ও এদের ডোরাকাটা দাগ থাকে। এরা এলবিনো নয়। এক বিশেষ জিন মিউটেশন এর কারনে বাঘেদের লোম সাদা হয়। কিন্তু চামড়াতে ডোড়াকাটা দাগ থেকেই যায়।

ডোরাহীন সাদা বাঘ[সম্পাদনা]

কিছু সাদা বাঘ ডোরাহীন হয়। এদের কে Snow white Tiger ও বলা হয়। ধারনা করা হয়, এই বাঘ গুলো এলবিনো, আর এদের চামড়াই সাদা, তাই এদের ডোরাকাটা দাগ থাকে না।

মজার তথ্য[সম্পাদনা]

বাঘ দের ডোরাকাটা দাগ এদের চামড়ার মধ্যেই থাকে। তাই একটা সুস্থ বাঘ এর সব লোম চেছে ফেললেও এর ডোরাকাটা দাগ থেকেই যায়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. McDougal, C. (1977) The Face of the Tiger. Rivington Books and André Deutsch, London.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]