সাইন্টিফিক রিপোর্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সাইন্টিফিক রিপোর্ট  
সংক্ষিপ্ত শিরোনাম (আইএসও ৪)
এসসিআই রিপ (Sci. Rep.)
পাঠ্য বিষয়প্রাকৃতিক বিজ্ঞান
ভাষাইংরেজি ভাষা
সম্পাদকরিচার্ড হোয়াইল
প্রকাশনা বিবরণ
প্রকাশক
প্রকাশনার ইতিহাস
২০১১–বর্তমান
পুনরাবৃত্তিচলমান ইস্যু
হ্যাঁ
লাইসেন্সক্রিয়েটিভ কমন্স
৪.০১১ (২০১৮)
সূচীকরণ
আইএসএসএন২০৪৫-২৩২২ (ইংরেজি)
এলসিসিএন২০১১২৫০৮৮০
ওসিএলসি নং৭৩২৮৬৯৩৮৭
সংযোগ

সাইন্টিফিক রিপোর্ট একটি অনলাইন উন্মুক্ত প্রবেশাধিকার, নেচার পাবলিশিং গ্রুপ দ্বারা প্রকাশিত বৈজ্ঞানিক মেগা জার্নাল, প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের সমস্ত অঞ্চলকে কভার করে। জার্নালটির লক্ষ্য, তাত্পর্য বা প্রভাবের পরিবর্তে কোনও জমা দেওয়া কাগজের বৈজ্ঞানিক বৈধতা নির্ধারণ করা। [১]

বিবরণ[সম্পাদনা]

২৩ অগস্ট ২০১৬-তে, স্কলারলি কিচেনে একটি ব্লগ পোস্ট উল্লেখ করেছেন যে সাইন্টিফিক রিপোর্ট সম্ভবত পিএলওএস ওনকে ছাড়িয়ে বিশ্বের বৃহত্তম হয়ে উঠবে। [২] এটি প্রকৃতপক্ষে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল [৩] এবং পরে এটি ২০১৭ সালের প্রথম প্রান্তিকে নিশ্চিত হয়েছিল [৪]

সূচীকরণ[সম্পাদনা]

জার্নালটি কেমাস্ট্রাল অ্যাবস্ট্রাক্ট সার্ভিস,[৫] বিজ্ঞান উদ্ধৃতি সূচি এবং বাছাই করে সূচকের মেডিকাস / এমইডলাইন / পাবমেডে বিমূর্ত এবং সূচিত হয়। [৬] জার্নাল উদ্ধৃতি প্রতিবেদন অনুসারে, জার্নালটির ২০১৮ এর ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর পরিমাণ ৪.৫২৫ অবস্থানে রয়েছে। [৭]

পিয়ার পর্যালোচনা[সম্পাদনা]

বৈজ্ঞানিক প্রতিবেদনগুলি একটি মেগা জার্নাল হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে, নিবন্ধ প্রক্রিয়াজাতকরণ চার্জের উপর ভিত্তি করে একটি ব্যবসায়িক মডেল সহ পিএলওএস ওয়ানের মত ধারণাগত কয়েক হাজার তালিকাভুক্ত সদস্য সহ [৮] জার্নালের সম্পাদকীয় বোর্ডটি বেশ বড়,। [৯] এর পিয়ার রিভিউ মডেল এমন একটি মানদণ্ড ব্যবহার করে যা গ্রহণযোগ্যতার নিবন্ধগুলির জন্য উল্লেখ করে যে "অবশ্যই বিজ্ঞানসম্মতভাবে বৈধ এবং প্রযুক্তিগতভাবে পদ্ধতি এবং বিশ্লেষণে দৃ sound় হতে হবে" এবং পর্যালোচকদের নিশ্চিত করতে হবে যে নিবন্ধগুলি "তাদের উপলব্ধি, তাত্পর্য বা প্রভাবের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে না",[১০] তবে এই পদ্ধতিটি প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। [১১] ২০১৬ সালের কাগজে কথিতভাবে সদৃশ এবং নকল করা ছবিগুলি যা সমকক্ষ পর্যালোচনার সময় সনাক্ত করা যায়নি তা সমালোচনাও করেছিল। [১২] নিবন্ধটি জুন ২০১৬ এ প্রত্যাহার করা হয়েছিল। [১৩] ২০১৫ সালে সম্পাদক মার্ক ম্যাসলিন পদত্যাগ করেছেন কারণ জার্নালটি অতিরিক্ত ফির বিনিময়ে জীববিজ্ঞান পাণ্ডুলিপিগুলির জন্য একটি দ্রুতগতির পীর-পর্যালোচনা পরিষেবার একটি পরীক্ষার প্রবর্তন করেছিল। [১৪][১৫] এক মাস ধরে এ বিষয়ে বিচার কার্যক্রম চলে। [১৬]

সমালোচনা[সম্পাদনা]

২০১৬ সালে প্রকাশিত জার্নাল একটি চুরির গবেষণামূলক গবেষণাটি প্রত্যাহার না করার কারণে ১৯ নভেম্বরে ২০১৭ সালে,সম্পাদকীয় বোর্ড সদস্য পদত্যাগ করেছেন। যদিও নিবন্ধটি শেষ পর্যন্ত ২০১৮ সালের মার্চ মাসে প্রত্যাহার করা হয়েছিল [১৭]

একটি ২০১৮ এর গবেষণাপত্র দাবি করেছে যে একটি হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সা ইঁদুরগুলিতে ব্যথা কমাতে পারে। এটি 8 মাস পরে বৈজ্ঞানিক সম্প্রদায় থেকে "দ্রুত সমালোচনা" করার পরে প্রত্যাহার করা হয়েছিল। [১৮]

একটি বিতর্কিত বিষয়ে ২০১৮ পত্রিকায় পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল যে সেল ফোনে ঘুরপাক খাওয়া খুব বেশি বাঁকানো ঘাড় কারও মাথার পিছনে একটি "শিং" বাড়াতে পারে। [১৯] কাগজটি পরে সংশোধন করা হয়েছিল। গবেষণাটি প্রথম লেখকের স্বার্থের দ্বন্দ্ব উল্লেখ করতেও ব্যর্থ হয়েছিল। [১৯]

২০১৮ সালে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে বাবুন মলের ছবিতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুখটি লুকানো ছিল। জার্নালটি পরে ছবিটি সরিয়ে দেয়। [২০]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Criteria for publication"Scientific Reports। Nature Publishing Group। 
  2. Davis, Phil (২০১৬-০৮-২৩)। "Scientific Reports On Track To Become Largest Journal In The World"The Scholarly Kitchen। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৮-২৪ 
  3. "Mega-journals: the future, a stepping stone to it or a leap into the abyss?"Times Higher Education। ২০১৬-১০-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-১৬ 
  4. "Scientific Reports Overtakes PLOS ONE As Largest Megajournal"The Scholarly Kitchen। ২০১৭-০৪-০৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৪-০৬ 
  5. "CAS Source Index"Chemical Abstracts ServiceAmerican Chemical Society। ২০১০-০৩-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-২৪ 
  6. "Scientific Reports"NLM CatalogNational Center for Biotechnology Information। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-২৪ 
  7. "Scientific Reports"। 2018 Journal Citation ReportsWeb of Science (Science সংস্করণ)। Clarivate Analytics। ২০১৯।  অজানা প্যারামিটার |শিরোনাম-সংযোগ= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)
  8. "Nature's open-access offering may sound death knell for subs model"The Times Higher Education। ১৩ জানুয়ারি ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জানুয়ারি ২০১১ 
  9. "Editorial Advisory Panel and Editorial Board"Scientific Reports। Nature Publishing Group। 
  10. "Guide to referees"Scientific Reports। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১১-১৮ 
  11. Lowe, Derek (১৫ জুন ২০১৬)। "More on Scientific Reports, And on Faked Papers"In the Pipeline। Science Transnational Medicine। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  12. Palus, Shannon (১০ জুন ২০১৬)। "Author denies accusations of blatant duplication"Retraction Watch। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  13. "Retraction: Novel piperazine core compound induces death in human liver cancer cells: possible pharmacological properties"। ২০১৬। ডিওআই:10.1038/srep29056 
  14. Bohannon, John (২৭ মার্চ ২০১৫)। "Updated: Editor quits journal over pay-for-expedited peer-review offer"। ডিওআই:10.1126/science.aab0391 
  15. Cressey, Daniel (২৭ মার্চ ২০১৫)। "Concern raised over payment for fast-track peer review"। ডিওআই:10.1038/nature.2015.17204 
  16. http://blogs.nature.com/ofschemesandmemes/2015/04/21/fast-track-peer-review-experiment-first-findings
  17. Offord, Catherine (৬ নভেম্বর ২০১৭)। "Mass Resignation from Scientific Reports's Editorial Board"The Scientist। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  18. Oransky, Oran (১১ জুন ২০১৯)। ""Permeable to bad science:" Journal retracts paper hailed by proponents of homeopathy"Retraction Watch। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  19. Marcus, Adam (১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯)। "'Text neck' — aka 'horns' — paper earns corrections"Retraction Watch। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  20. Oransky, Oran (২১ ডিসেম্বর ২০১৮)। ""Unusual aspects" of a figure — aka a cartoon of Trump's face in baboon feces — disappear from a journal"Retraction Watch। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]