শ্রীলঙ্কায় সমকামীদের অধিকার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সমকামী অধিকার : শ্রীলঙ্কা শ্রীলঙ্কা
LocationSriLanka.png
শ্রীলঙ্কা
সমকামী অধিকার?অবৈধ, যদিও যে কোনো প্রেম বা যৌনতার ব্যাপারে কোনো পরিষ্কার আইন নেই।
লিঙ্গ স্বীকৃতিলিঙ্গ পরিবর্তনের অনুমতি আছে।
সামরিক চাকরিতেসামরিক বাহিনীতে ঢুকার অনুমতি নেই কিন্তু সামরিক বাহিনী কারো যৌনতা বা প্রেম বিবেচনা করে চাকরী দেয়না।
বৈষম্য নিরাপত্তাকোনো প্রকার আইনী রক্ষা বা সুবিধা আলাদাভাবে দেওয়া হয়না যদিও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে সব ধরণের অভিযোগই করা যায় এবং আদালতেও মামলা তোলা যায়।
পারিবারিক অধিকার
সম্পর্কের স্বীকৃতিসমকামীদের পক্ষে কোনো আইন নেই বা এরূপ কোনো সম্পর্ক স্থাপনের ক্ষেত্রে বিশেষ কোনো নিষেধাজ্ঞাও নেই।
বাঁধা:
আইনে বিয়ে সম্বন্ধে বলা আছে শুধুমাত্র একজন নারী এবং পুরুষের মধ্যে সংঘটিত হতে হবে।
সন্তান দত্তককোনো সমকামী যুগল বা হিজড়া কোনো বাচ্চাকে দত্তক নিলে তারা আইনী জটিলতায় পড়তে পারেন।

সমকামিনী, সমকামী, উভকামী বা কামিনী এবং হিজড়ারা শ্রীলঙ্কায় অনেকটা স্বাধীনভাবেই চলাফেরা করতে পারেন যদিও আইনগতভাবে বা সমাজে সমপ্রেম বা যৌনতা ঠিক বৈধ নয়। শ্রীলঙ্কার সংবিধানে বা রাষ্ট্রীয় আইনে সমকামিতা বা বিষম লিঙ্গের মধ্যে প্রেম এবং যৌনতা নিয়ে স্পষ্ট করে কিছু উল্লেখ নেই, খালি বলা আছে একজন পুরুষ অপর একজন নারীকে ধর্মীয়ভাবে বা আদালতের মাধ্যমে বিয়ে করে সংসার করবে। শ্রীলঙ্কার কলম্বো শহরে প্রতি বছরেই সমকামীদের আনন্দ মিছিলের আয়োজন করা হয় এবং এরূপ আয়োজনে সমাজ বা রাষ্ট্র কোনো বিরূপ মন্তব্য করেনা।

২০১০ সালে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত 'সমকামীদের হয়রানি করা যাবেনা' সম্মেলনে শ্রীলঙ্কার সরকারদলীয় প্রতিনিধিরা যোগ দিয়েছিলো এবং শ্রীলঙ্কায় সমকামীদেরকে কোনো রূপ হয়রানি বা অত্যাচার করা হবেনা বলে তারা স্বাক্ষর করে, যদিও সমকামিতা বৈধ করার ব্যাপারে তারা কিছু বলেনি।[১]

সমলিঙ্গের যৌনতার ব্যাপারে আইন[সম্পাদনা]

শ্রীলঙ্কা যখন ব্রিটিশদের শাসনাধীন ছিলো তখন তারা সমকামীদের জন্য কোনো আলাদা সাজার ব্যবস্থা করে রেখে যায়নি যেমনটি তারা ভারতে ১৮৬০ সালে করেছিলো।[২] আধুনিক শ্রীলঙ্কায় '১৬ বছরের নিচে কেউ দৈহিক মিলন করতে পারবেনা' নামক একটি আইন চালু করা হয়, এই আইনের কোথাও বলা হয়নি যে দৈহিক মিলনকারীদেরকে বিবাহিত হওয়া বাধ্যতামূলক বা বিষম লিঙ্গের হতে হবে।[৩]

২০১৭ সালের জানুয়ারীতে শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি মৈত্রীপাল সিরিসেনা বলেন যে তার দেশে সব ধরণের মানবাধিকার রক্ষা করা হবে।[৪][৫]

স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

সেরকমভাবে যদিও কোনো প্রকার সামাজিক স্বীকৃতি নেই, তবে তারপরেও সমকামী যুগলরা শিক্ষিত সমাজে অনেকটা স্বাধীনভাবেই চলাফেরা করতে পারে।

সংবিধানে বৈষম্যবাদ নিয়ে আইন[সম্পাদনা]

অনুচ্ছেদ ১২[সম্পাদনা]

শ্রীলঙ্কা সরকারের এক প্রতিনিধি দল ২০১৪ সালে সুইজারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত এক মানবাধিকার বিষয়ক সম্মেলনে যোগ দিয়ে বলে সমকামীরা তাদের দেশে কখনোই কোনো প্রকার হয়রানি বা অত্যাচারের শিকার হলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তা ব্যবস্থা নেয়।[৬] শ্রীলঙ্কার সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১২ তে বলা আছেঃ[৭]

(১) শ্রীলঙ্কার সকল নাগরিক বা বিদেশ থেকে আগত সকল মানুষ রাষ্ট্রীয় আইনের চোখে সমান।

(২) এই দেশের কোনো নাগরিক বা বিদেশের কোনো নাগরিক এই ভূখণ্ডে যে কোনো ধর্ম পালন বা ত্যাগ করতে পারবেন।

(৩) এই দেশে কোনো মানুষকে তার ধর্ম বা অন্য কোনো অসামর্থতা বা অন্য কোনো ব্যক্তিগত বিষয়ে কোনো প্রকার মানসিক বা শারীরিক আক্রমণ করা যাবেনা, তবে ধর্মীয় উগ্রবাদ এবং অন্যান্য সন্ত্রাসবাদের ক্ষেত্রে রাষ্ট্র শক্ত ব্যবস্থা নেবে।

উপরোক্ত পয়েন্ট অনুযায়ী শ্রীলঙ্কায় সমকামীদেরকে কিছু বলা হয়না।[৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Anti-LGBTI push at U.N. falls short Erasing 76 Crimes
  2. "Status of LGBTIQ persons within Sri Lanka's legal framework"Daily News। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-৩১ 
  3. "Sodomy Laws, Sri Lanka"। galpn.org। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০২-০৫ 
  4. Sri Lanka Keeps Homosexuality A Crime, But Bans Anti-LGBT Discrimination NewNowNext
  5. Campaign, Human Rights। "Sri Lanka Pressured to Remove Anti-LGBTQ Laws by E.U. Trade Deal | Human Rights Campaign"Human Rights Campaign (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-৩১ 
  6. brian (২০১৪-১০-২০)। "Sri Lanka Government Says LGBT Rights Are Constitutionally Protected"OutRight (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-৩১ 
  7. THE CONSTITUTION OF THE DEMOCRATIC SOCIALIST REPUBLIC OF SRI LANKA
  8. "Sri Lanka Keeps Homosexuality A Crime, But Bans Anti-LGBT Discrimination"LOGO News। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-৩১