শাজিয়া সৈয়দ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শাজিয়া সৈয়দ
জাতীয়তাপাকিস্তানী
শিক্ষাব্যবসায় প্রশাসনে স্নাতকোত্তর
যেখানের শিক্ষার্থীক্লেটন স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাব্যবসাদার-নারী
উপাধিপ্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং ইউনিলিভার পাকিস্তান লিমিটেড এর চেয়ারপারসন।
স্থিতিকালনভেম্বর ২০১৫ -
পূর্বসূরীএহসান আলী মালিক

শাজিয়া সৈয়দ হলেন একজন পাকিস্তানি ব্যবসায়ী। তিনি ইউনিলিভার পাকিস্তান লিমিটেডের বর্তমান চেয়ারপারসন এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। তিনি ২০১৫ সালের নভেম্বর থেকে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে দায়িত্বরত রয়েছেন। এর আগে ২০১৩ সালের নভেম্বর মাস থেকে ২০১৫ সালের অক্টোবর পর্যন্ত তিনি ইউনিলিভার শ্রীলঙ্কার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

এই প্রতিষ্ঠানের সাথে তিনি আছেন ৩০ বছর ধরে। এই প্রতিষ্ঠানে তিনি সমস্ত বিভাগে কাজ করেন।

শিক্ষা এবং ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

শাজিয়ার জন্ম হয় পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের একটি ছোট্ট গ্রামে। তিনি সৈয়দ ক্লেটন স্টেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবসায় প্রশাসনে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন । [১][২]

তিনি বিবাহিত এবং তাঁর দুটি সন্তান রয়েছে। [৩]

পেশা[সম্পাদনা]

সৈয়দ ১৯৮৯ সালের অক্টোবরে ইউনিলিভারে যোগদান করেন এবং ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেছিলেন। [৪]

২০০০ সালের ডিসেম্বরে তিনি ভিয়েতনামে আসেন। যেখানে তাঁকে ইউনিলিভার ভিয়েতনামের ব্যক্তিগত যত্নের পন্য বিভাগের প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। তিনি সেখানে ২০০৩ সালের ডিসেম্বর অবধি তিন বছর যাবৎ কাজ করেছিলেন। [১][২][৩]

২০০৯ সালের এপ্রিল মাসে, তিনি ইউনিলিভার পাকিস্তান লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক পদে নিযুক্ত হন [১] তিনি ইউনিলিভার পাকিস্তান ফুডস লিমিটেডের পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করার সময়, ইউনিলিভার পাকিস্তানের সহায়ক সংস্থা পাকিস্তান স্টক এক্সচেঞ্জের তালিকাভুক্ত হয়েছিলেন। [৩] ২০০৯ সালে, তিনি এক বছর ধরে ইউনিলিভার পাকিস্তানে আইসক্রিম ব্যবসায়ের নেতৃত্বে ছিলেন। [১][২]

২০০৪ সালের জানুয়ারিতে তিনি পাকিস্তানে ফিরে এসে ইউনিলিভার পাকিস্তান লিমিটেডের গৃহ এবং ব্যক্তিগত যত্ন বিপণনের উপ সভাপতি হিসাবে কাজ করেছিলেন, এরপর ২০০৯ সালে তিনি রিফ্রেশমেন্ট বিপণনের ভাইস প্রেসিডেন্ট হন। [৩]

তিনি জানুয়ারী ২০১০ থেকে মার্চ ২০১৬ পর্যন্ত ইউনিলিভার পাকিস্তান ফুডস লিমিটেডের অ-নির্বাহী পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। [১]

তিনি ২০১৩ সালের নভেম্বর মাসে ইউনিলিভার শ্রীলঙ্কা লিমিটেডের প্রথম মহিলা চেয়ারপারসন হয়েছিলেন। তার আগে ইউনিলিভার পাকিস্তান লিমিটেডের একজন নির্বাহী পরিচালক এবং গ্রাহক বিকাশের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। [১][৩][৫]

সৈয়দের নেতৃত্বে ইউনিলিভার শ্রীলঙ্কা ব্যবসায়ের প্রবৃদ্ধি দেখেছিল। [৪][৬] তিনি অক্টোবর ২০১৫ অবধি ইউনিলিভার শ্রীলঙ্কার চেয়ারপারসন ছিলেন। [১]

তিনি এপ্রিল ২০১৪ সালে ইউনিলিভার পাকিস্তানে নির্বাহী পরিচালক হয়েছেন। [১][২]

২০১৫ সালের নভেম্বর মাসে তিনি ইউনিলিভার পাকিস্তান লিমিটেডের চেয়ারপারসন এবং সিইও হন। [৪][৭] মার্চ ২০১৬ সালে সৈয়দকে ইউনিলিভার পাকিস্তান ফুডস লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। [১][২]

পুরস্কার এবং স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

জুলাই ২০১৫ সালে, শ্রীলঙ্কার উইমেন ইন ম্যানেজমেন্ট সৈয়দকে "সেরা আন্তর্জাতিক মহিলা নেতৃত্ব" হিসাবে পুরস্কার প্রদান করে। [৮]

২০১৬ সালে, এক্সপ্রেস ট্রিবিউন তাঁকে কর্পোরেট বিশ্বে পাকিস্তানের অন্যতম স্বীকৃত ব্যক্তিত্ব হিসাবে উল্লেখ করেছেন। [৯]

তিনি পাকিস্তান বিজনেস কাউন্সিলের পরিচালক,[১] ন্যাশনাল ম্যানেজমেন্ট ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নরসের সদস্য এবং ডিন অফ এডিনবার অ্যাওয়ার্ড ফাউন্ডেশন পাকিস্তানের একজন ট্রাস্টি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। [১০]

তিনি ফেব্রুয়ারি ২০১৮ সালে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সহ-সভাপতি হিসাবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। [১১][১২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Shazia Syed"www.bloomberg.com। Bloomberg। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  2. "Pakistan's Only Powerful Women In Business"Profit by Pakistan Today। ৭ মার্চ ২০১৭। ৬ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  3. "First ever female Chairperson at Unilever Sri Lanka Shazia assumes duties"Daily FT (English ভাষায়)। ৪ নভেম্বর ২০১৩। ১২ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  4. "Outgoing: Unilever Pakistan to see change in CEO"The Express Tribune। ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৫। ৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  5. "Leadership change at Unilever Sri Lanka"Unilever Sri Lanka (ইংরেজি ভাষায়)। ১২ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  6. "Change in leadership at Unilever Pakistan"www.thenews.com.pk (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  7. "Five female Pakistani CEOs breaking barriers"Geo News। ১২ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  8. "Unilever Sri Lanka affirms commitment to diversity and inclusion"www.ft.lk (English ভাষায়)। ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  9. "'Pakistan's economy at a juncture of turnaround'"The Express Tribune। ৬ নভেম্বর ২০১৬। ৩ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  10. "Profile - Shazia Syed"। CFA Institute। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  11. Reporter, The Newspaper's Staff (১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮)। "corporate watch"DAWN.COM (ইংরেজি ভাষায়)। ১২ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ 
  12. "Olierhoek elected OICCI president"The News (ইংরেজি ভাষায়)। ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৯