লোপামুদ্রা (প্রজাপতি)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

লোপামুদ্রা
(Red Base Jezebel)
Close wing position of Delias pasithoe Linnaeus, 1767 – Red-base Jezebel WLB IMG 9284 47.jpg
ডানা বন্ধ অবস্থায়
Open wing position of Female Delias pasithoe Linnaeus, 1767 – Red-base Jezebel WLB DSC 0002 (23).jpg
ডানা খোলা অবস্থায়
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: Arthropoda
শ্রেণী: Insecta
বর্গ: Lepidoptera
পরিবার: Pieridae
গণ: Delias
প্রজাতি: D. pasithoe
দ্বিপদী নাম
Delias pasithoe
(Linnaeus, 1767)
প্রতিশব্দ

Delias aglaia (Linnaeus, 1758) (non Linnaeus, 1758: preoccupied)
Papilio aglaia Linnaeus, 1758 (non Linnaeus, 1758: preoccupied)

লোপামুদ্রা[১] (ইংরেজিঃ Red-base Jezebel) মাঝারি আকারের কালো, হলুদ, সাদা ও লাল রঙে মোড়ানো পিয়েরিডি পরিবারের এক প্রজাতির প্রজাপতি[২] লোপামুদ্রা সাধারনত দক্ষিণ এশিয়া ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশসমূহে দেখা যায়। এই প্রজাপতির বৈজ্ঞানিক নাম Delias pasithoe বা Delias aglaia aglaia[২]

আকার[সম্পাদনা]

প্রসারিত অবস্থায় লোপামুদ্রার ডানার আকার ৬৮-৮৪ মিলিমিটার দৈর্ঘের হয়।

উপপ্রজাতি[সম্পাদনা]

ভারতে প্রাপ্ত লোপামুদ্রা এর উপপ্রজাতি হল- [৩]

  • Delias pasithoe pasithoe Linnaeus, 1767 – Chinese Red-base Jezebel

বিস্তার[সম্পাদনা]

সাধারণত এই জাতীয় প্রজাপতিটি পূর্ব হিমালয়, নেপাল থেকে মায়ানমার, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া সর্বত্র দেখা যায়। হিমালয়ের ৫০০০ ফুট অবধি এদের পাওয়া যায়। সাধারনত জঙ্গলে এই প্রজাতির প্রজাপতি বেশি দেখা যায়। বাংলাদেশের সিলেট, চট্টগ্রামগাজীপুরের শালবনে এদের দেখা পাওয়া যায়।[৪]

Delias pasithoe curasena (লোপামুদ্রা)

বর্ননা[সম্পাদনা]

তাইওয়ানের একটি লোপামুদ্রা

পুরুষ ও স্ত্রী উভয় লোপামুদ্রারই পেছনের ডানার মাঝের ও কিনারার কোষগুলো উজ্জ্বল হলুদ রঙের হলেও ডানার তলার বা গোড়ার দিকের কোষগুলো টকটকে লাল হয়। এদের শুঁড়, মাথা, বুক ও পেটের ওপরটা কালো এবং পেটের পাশ ও নিচটা ধূসর-সাদা।

পুরুষ[সম্পাদনা]

পুরুষ লোপামুদ্রা মাঝারি আকারের সামনের ডানার ভিত্তি বা তলার রং কালো হয়।

স্ত্রী[সম্পাদনা]

স্ত্রী লোপামুদ্রার সামনের ডানার ভিত্তি বা তলার রং সাধারনত বাদামি-কালো হয়। এছাড়া এদের ডানা প্রসারিত হলে ৬৯-৯২ মিলিমিটার পর্যন্ত লম্বা হয়। স্ত্রী লোপামুদ্রা জানুয়ারি থেকে মার্চে উজ্জ্বল হলুদ উপবৃত্তাকার ১০-২০ টি ডিম দেয়। এরা সাধারনত গাছের পাতায় ডিম দেয়। ডিম ফুটে লালচে-বাদামি শূককীট বের হয়। শূককীটের দেহের প্রতিটি খণ্ড বরাবর সমান্তরাল হলুদ ব্যান্ড রয়েছে, যাতে শক্ত চুল থাকে। বাইরের দিকের চুলগুলো কালো ও ভেতরের দিকেরগুলো হলুদ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bingham, C. T. 1907. Fauna of British India. Butterflies. Volume 2
  2. আ ন ম আমিনুর রহমান (২৩-০৫-২০১৩)। "সুন্দর লোপামুদ্রা"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ 2013-05-23  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  3. "Delias pasithoe Linnaeus, 1767 – Red-base Jezebel"। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৬ 
  4. Dāśagupta, Yudhājit̲̲̲̲̲̲a (২০০৬)। Paścimabaṅgera prajāpati (1. saṃskaraṇa. সংস্করণ)। Kalakātā: Ānanda। পৃষ্ঠা 63। আইএসবিএন 81-7756-558-3 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]