লেঝিম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

লেঝিম (लेझिम) বা লেঝিয়ুম হল একপ্রকার লোকনৃত্য যা প্রধানত ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যে প্রচলিত।

লেঝিম বা লেঝিয়ুম নৃত্যশিল্পীরা নাচের সময় লেঝিম বা লেঝিয়ুম নামে ঝুনঝুনিযুক্ত একপ্রকার করতাল বা মন্দিরা জাতীয় ছোট একটি বাদ্যযন্ত্র ব্যবহার করে থাকে, মূলত বাদ্যযন্ত্রটির নাম থেকেই নৃত্যটির এরূপ নামকরণ করা হয়েছে। নৃত্যশিল্পীরা ধ্রুপদী নৃত্যের সময় এটি ব্যবহার করে থাকে। লেঝিম নৃত্যে সর্বনিম্ন ২০ জন নৃত্যশিল্পী অংশগ্রহণ করেন। এতে ঢোলকি নামে একটি ডঙ্কা বা ঢোল জাতীয় যন্ত্র প্রধান টঙ্কসঙ্গীত হিসাবে ব্যবহৃত হয়। নাচের সময় শিল্পীরা বর্ণিল পোশাক পরিধান করেন। নাচটি প্রায়শই মহারাষ্ট্রের স্কুল, সৈন্যবাহিনী এবং অন্যান্য সংস্থার শারীরিক দক্ষতার অনুশীলন হিসাবে ব্যবহৃত হয় কারণ এতে অনেকগুলো ক্যালিস্থেনিক গতিবিধি জড়িত এবং এটি বেশ শ্রমসাধ্য হতে পারে।

লেঝিমে নাচের চেয়েও বেশি থাকে শারীরিক অনুশীলন এবং কসরৎ। ঐতিহাসিকভাবে মহারাষ্ট্রের গ্রামগুলো এবং গুজরাটের কিছু অংশে নাচটির প্রচলিত কিছু ভিন্ন ধারা ছিল, তবে সেগুলো আজকাল খুব কমই ব্যবহৃত হয়। এক প্রকার লেঝিমে একটি ২.৫ ফুট লম্বা বাঁশের দণ্ডের সাথে একটি লোহার শিকল ব্যবহার করা হয়ে থাকে।[১]

লেঝিম নাচ বিশেষত মহারাষ্ট্রের গ্রামীণ অঞ্চলগুলোতে জনপ্রিয়, যা প্রায়শই গণেশ উৎসব (গণেশ চতুর্থী), গ্রামীণ যাত্রা (ধর্মীয় মিছিল) ও স্কুলে শারীরিক অনুশীলনের অংশ হিসাবে চর্চা করা হয়। [২]

তিনটি প্রধান লেঝিম রয়েছে - মিলিটারি লেঝিম (বরোদরায় জনপ্রিয় এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে প্রতিরক্ষার জন্য মার্শাল আর্ট বা রণকলা হিসাবে ব্যবহৃত হয়), তালথেক্যা এবং সামান্যজনন্ন। ১৯৮২ সালে দিল্লীতে নবম এশিয়ান গেমসে আন্তর্জাতিক দর্শকদের কাছে প্রথম লেঝিম পরিবেশনাটি উপস্থাপন করা হয়েছিল, যেখানে ৪০০ জন সেরা মহারাষ্ট্রীয় লেঝিমশিল্পী এই নৃত্য প্রদর্শন করেছিলেন। [১]

লেঝিম নৃত্যের সরঞ্জামাদির স্থানীয় নামগুলো হল [২] -

  1. লেঝিম- আনুমানিক দেড় ইঞ্চি কাঠের লাঠি (তোদন্না বাঁধলেলি) এবং আদকাভালেল্যা নামে একটি শিকল। শিকলে আঘাতের ফলে মন্দিরা বা করতালের শব্দের মতো একটি শব্দ সৃষ্টি হয়
  2. হালাগি- একটি কারমাবাদ্য
  3. ঢাক- একটি সরু ঢাকি বা ডঙ্কা।
  4. করতাল

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Agarkar, A.J. (১ জানুয়ারি ১৯৫০)। FOLK-DANCE OF MAHARASHTRA (1st সংস্করণ)। Rajabbau। 
  2. Schultz, Anna (১৩ ডিসেম্বর ২০১২)। Singing a Hindu Nation: Marathi Devotional Performance and Nationalism (1st সংস্করণ)। Oxford university press। আইএসবিএন 978-0199730834 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]